,

পাগলের-অভিনয়-scaled

সালমান খান, শাকিব খান, জায়েদ খান; এবার শুভ

হাওর বার্তা ডেস্কঃ পাগলের অভিনয়, ঠিক পাগল বলা শোভনীয় নয়, মানসিক ভারসাম্যহীন। এই চরিত্রে অভিনয় করে সবচেয়ে জনপ্রিয়তা পেয়েছেন বলিউডের সালমান খান। তেরে নাম চলচ্চিত্রের প্রতিটি গান মানুষের মুখে মুখে ফিরেছিল, সালমান খানের প্রতিটি স্টাইল অনুকরণীয় হয়ে ওঠে গোটা উপমহাদেশজুড়ে।

এখনো সালমানের তেরেনামকে ভোলেনি ভক্তরা। এখনো পথে ঘাটে, কোনো অজানা অ্যামপ্লিফায়ারে বেজে ওঠে তেরে নাম চলচ্চিত্রের গান। ২০০৩ সালে মুক্তি পাওয়া ছবিটি ১৯ বছরেও ফিকে হয়নি, এখনো জ্বলজ্বলে; রঙিন।

সালমানের এই চরিত্র বাংলাদেশের পরিচালকদেরও বেশ প্রভাবিত করে। ২০১১ সালে এমবি মানিক শাকিব খানকে নিয়ে নির্মাণ করেন তোর কারণে বেঁচে আছি চলচ্চিত্র। শাকিবের বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন অপু বিশ্বাস। শাকিবকে এই ছবিতে মানসিক ভারসাম্যহীন অবস্থায় দেখা যায়। এটি ব্যবসাসফল ছবি ছিল।

২০১৯ সালে শামীম আহমেদ রনী ঘোষণা দেন ক্ষত চলচ্চিত্র নির্মাণের। জায়েদ খানকে নায়ক করে ছবির মহরত অনুষ্ঠানও সম্পন্ন করেন এফডিসিতে। পোস্টার অবমুক্ত হয়। সেই পোস্টারে জায়েদকে দেখা যায় সালমান শাকিবের কাতারে। জায়েদ খানের সেই লুক অন্তত সালমানের তেরে নাম লুককে মনে করাবেই। পোস্টারেই জায়েদ খান প্রশংসিত হয়েছিলেন। ছবিটি এখন পর্যন্ত নির্মাণ শুরু হয়নি। জায়েদের বিপরীতে ছিলেন পরীমনি, আর এই ছবি নির্মাণে লগ্নি করতে চেয়েছিলেন নায়িকা নিজেই।

২০২২ সালে আরফিন শুভকে দেখা গেল তেরে নাম পরবর্তী লুকে। ঠিক যেন কারাগারের কক্ষ ব বা মানসিক হাসপাতাল। পেছনের দেয়াল, দেয়ালের আঁকিবুকি, আর হাতে একটি তরুণীর ছবি। যেন তেরে নাম ছবির মতোই আরেকটি গল্প। প্রিয় মানুষকে খুঁজে ফেরা, এর বাইরে নতুনত্ব নেই। এটি নূর ছবির প্রথম লুক। অবমুক্ত করা হয়েছে পোস্টার।তেরে নাম পরবর্তী এই কনসেপ্ট কতটা কার্যকরী, কতটা দর্শক হৃদয়গ্রাহী হবে তা সময় বলবে।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর