,

জ্যাকুলিন-নোরার বয়ানে ফাঁসছেন আরও ৪ অভিনেত্রী

হাওর বার্তা ডেস্কঃ আর্থিক জালিয়াতি মামলায় কারাগারে আছেন সুকেশ চন্দ্রশেখর। এই মামলায় আগেই জড়িয়েছে বলিউড অভিনেত্রী জ্যাকুলিন ও নোরা ফাতেহির নাম।

এই বিষয়ে দিল্লি পুলিশের ইকোনমিক উইং (ইওডব্লিউ) বৃহস্পতিবার জিজ্ঞাসাবাদ করেছে বলিউড অভিনেত্রী নোরা ফাতেহিকে। বুধবার একই মামলায় টানা ৮ ঘন্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে আরেক অভিনেত্রী জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজকে। এ ছাড়া আরও জেরা করা হয় পিঙ্কি ইরানিকে। পিঙ্কিই সুকেশের সঙ্গে নোরার পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন।

এবার নিকিতা তাম্বোলি, চাহত খান্না, সোফিয়া সিং ও আরুষা পাতিল নামের চার জন স্বল্পখ্যাত অভিনেত্রী ও মডেলের সন্ধান পেয়েছে দিল্লি পুলিশ, তারা সবাই জেলবন্দি চন্দ্রশেখরের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন তিহার জেলে। জ্যাকুলিন ও নোরাকে জিজ্ঞাসাবাদে সুকেশের সঙ্গে এই অভিনেত্রীদের যোগসূত্র মিলেছে বলে পুলিশের বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো দাবি করেছে।

নিজের সহকারী পিঙ্কি ইরানির মাধ্যমেই জ্যাকুলিন ও নোরা ফাতেহির সঙ্গে পরিচয় হয় সুকেশের। জানা গেছে, এই পিঙ্কিই বিগ বস খ্যাত নিকিতা তাম্বোলি, ছোট পর্দার অভিনেত্রী চাহাত খান্না, সোফিয়া সিং ও আরুশা পাতিলের সঙ্গে সুকেশের পরিচয় করিয়েছেন। এই চার নারী সুকেশের কাছ থেকে দামী উপহারও নিয়েছেন।

তদন্ত যত এগুচ্ছে, ততই সুকেশ চন্দ্রশেখরের আরও কীর্তি প্রকাশ্যে আসছে। দিল্লি পুলিশের আর্থিক অপরাধ সংক্রান্ত শাখার দায়ের করা এফআইআর-এর ভিত্তিতেই সুকেশের বিরুদ্ধে এই মামলা ও তদন্ত শুরু হয়েছে ৷ গোয়েন্দাদের দাবি, প্রায় ২০০ কোটি রুপির বেআইনি লেনদেন করেছেন সুকেশ।

এর আগে গত ২ সেপ্টেম্বর এই মামলায় দিল্লি পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদ করে নোরাকে। তার পুরনো বক্তব্যের সঙ্গে আজকের বক্তব্য মিলিয়ে দেখা হবে। দিল্লি পুলিশের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, নোরাকে আগেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তবে কিছু প্রশ্নের নির্দিষ্ট উত্তর পাওয়া যায়নি এখনো। তাই আবারও প্রশ্ন করা হবে তাকে। পিঙ্কির বক্তব্যেও কিছু অসঙ্গতি রয়েছে। এ কারণে নোরা ফাতেহি ও তাকে মুখোমুখি বসিয়ে প্রশ্ন করা জরুরি। পুলিশের ধারণা, এই পুরো ঘটনায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে পিঙ্কি।

‘প্রিভেনশন অব মানি লন্ডারিং অ্যাক্ট’-এর অধীনে ইডি (এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট) কর্মকর্তাদের সামনে আগেই বক্তব্য রেকর্ড করেছেন নোরা। তারপরও বিতর্ক তার পিছু ছাড়ছে না।

গত মাসেই আর্থিক কেলেঙ্কারিতে জ্যাকুলিনকে অভিযুক্ত হিসেবে পেশ করেছে ইডি। দিল্লি হাইকোর্টে পেশ করা সাপ্লিমেন্টারি চার্জশিটে ইডি জানায় কারাবন্দি সুকেশের কাছ থেকে লাভবান হয়েছেন জ্যাকুলিন। সুকেশের তীক্ত অতীতের কথা জানার পরও টাকার লোভে তার সঙ্গে জ্যাকুলিন ঘনিষ্ঠ হয়েছেন বলে দাবি করে ইডি।

ইডিকে জ্যাকুলিন জানিয়েছেন, সুকেশের কাছ থেকে বলিউডের অনেক তারকাই উপহার নিয়েছে। তাহলে কেন তার দিকেই আঙুল উঠছে? এছাড়া পরোক্ষভাবে নোরার দিকেও ইঙ্গিত করেন জ্যাকুলিন। যদিও এখনো নোরাকে অভিযুক্ত হিসেবে মামলায় যোগ করেনি তদন্তকারীরা।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর