,

image-547405-1651547681

শান্তি-সম্প্রীতি বজায় রাখার আহ্বান ঈদ জামাতে

হাওর বার্তা ডেস্কঃ মহামারির কারণে দুই বছর মাঠে ঈদ জামাত হয়নি। এবার করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসায় বড় জামাতে ঈদের নামাজ আদায় করতে পেরেছেন মুসল্লিরা। এ কারণে উচ্ছ্বসিত সবাই।

ঈদুল ফিতরের জামাতে সারাদেশে শান্তি ও সম্প্রীতি বজায় রাখার আহ্বান জানিয়েছেন খতিব। দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষার আহ্বান এসেছে।

মঙ্গলবার ঢাকায় জাতীয় ঈদগাহে নামাজের আগে বক্তব্যে এই আহ্বান জানান জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের খতিব মাওলানা মোহাম্মদ রুহুল আমিন।

দেশের প্রধান ঈদ জামাতের ইমাম বলেন, এ দেশ শান্তি-সম্প্রীতির দেশ। এদেশে সব ধর্মের মানুষ সম্প্রীতি নিয়ে বসবাস করে। শান্তি-সম্প্রীতি বিনষ্ট হয়, আমরা এমন উস্কানিমূলক বক্তব্য পরিহার করব। এধরনের বক্তব্য দেব না।

ঈদের নামাজ শেষে মোনাজাতে বাংলাদেশের কল্যাণ কামনা করেন মাওলানা রুহুল আমিন।

তিনি বলেন, অনেক রক্তের বিনিময়ে এদেশ পেয়েছি আমরা, আল্লাহ। এদেশকে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র থেকে হেফাজত করুন। পৃথিবী থেকে যুদ্ধ যাতে চলে যায়। সকল বালা-মুসিবত থেকে আমাদের রক্ষা করুন।

দুই বছর পর অনুষ্ঠিত এই ঈদ জামাতে বিপুল সংখ্যক মুসলমান অংশ নেন। ৩৫ হাজার মানুষ ধারণ ক্ষমতার মাঠ পরিপূর্ণ হয়ে যাওয়ার পর কদম ফোয়ারার চারিদিকে, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পশ্চিম পাশের সড়ক, শিক্ষা ভবনের পশ্চিম পাশের সড়কে দাঁড়িয়েও অনেকে নামাজ পড়েন।

শিশুরাও বড়দের  সঙ্গে ঈদগাহে এসেছে। তারাও একে অন্যের সঙ্গে কোলাকুলি করেছে।

করোনা নিয়ন্ত্রণে থাকায় শিলিথ স্বাস্থ্যবিধি। তাই আজ সবাই একে অন্যের সঙ্গে মোসাফাহা করেছে।  কোলাকুলি করে সম্প্রীতির বারতা দিয়েছে।

ঈদ উদযাপন উপলক্ষে দেশের সব হাসপাতাল, কারাগার, সরকারি শিশুসদন, প্রবীণনিবাস, ছোটমণি নিবাস, সামাজিক প্রতিবন্ধী কেন্দ্র, আশ্রয়কেন্দ্র, সেফহোমস, ভবঘুরে কল্যাণকেন্দ্র, দুস্থ কল্যাণ ও মাদকাসক্তি নিরাময়কেন্দ্রে উন্নতমানের খাবার পরিবেশনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর