কেউ অতিরিক্ত ভাড়া নেবেন না, চালকদের প্রতি ডিসির আহ্বান

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ঈদযাত্রা নির্বিঘ্ন করতে যৌথ মহড়া দিয়েছে হাইওয়ে পুলিশের কুমিল্লা অঞ্চল, জেলা প্রশাসন, জেলা পুলিশ ও সড়ক বিভাগ। আসন্ন ঈদযাত্রায় মহাসড়কে যান চলাচল অব্যাহত রাখতে গৃহীত পদক্ষেপ পর্যবেক্ষণ করতে এ মহড়ার আয়োজন করা হয়। এ সময় যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় না করতে চালকদের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

আজ বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) দিনব্যাপী কুমিল্লার দাউদকান্দির মেঘনা-গোমতী সেতুর টোলপ্লাজা থেকে শুরু করে পদুয়ার বাজার রেলওভারপাস পর্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগুলো পর্যবেক্ষণ করেন তারা।

এতে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা জেলা প্রশাসক খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান, জেলা পুলিশ সুপার আব্দুল মান্নান, সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সুনীতি চাকমা, হাইওয়ে পুলিশ কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সামছুল হকসহ অন্য কর্মকর্তারা।এ সময় জেলা প্রশাসক খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান ও জেলা পুলিশ সুপার আব্দুল মান্নান চালকদের অতিরিক্ত ভাড়া না নেয়ার জন্য অনুরোধ করেন। পাশাপাশি উল্টো পথে গাড়ি চলাচল, যত্রতত্র পার্কিং, খেয়াল খুশিমতো যাত্রী ওঠানামা না করানোর অনুরোধ করেন তারা। পরে মহাসড়ক পরিদর্শন শেষে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলার পদুয়ার বাজার বিশ্বরোডে এসে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন তারা।

জেলা প্রশাসক খন্দকার মু. মুশফিকুর রহমান জানান, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কসহ কুমিল্লা-নোয়াখালী, কুমিল্লা-সিলেট, কুমিল্লা-চাঁদপুর সব সড়কেই পুলিশ, হাইওয়ে পুলিশ ও জেলা প্রশাসন সমন্বিতভাবে কাজ করছে। অতিরিক্ত ভাড়া ও অবৈধ পার্কিং নিরসণে কাজ করবে মোবাইল কোর্ট। আমরা ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের সমস্যাগুলো চিহ্নিত করেছি। আজ থেকে মহাসড়কে ৩৪ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাঠে থাকবেন।

মোবাইল কোর্ট, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ও কমিউনিটি পুলিশের সদস্যরা মহাসড়কে কাজ শুরু করবেন।জেলা পুলিশ সুপার আব্দুল মান্নান জানান, শুধু যানজট নয়, যাত্রী ও চালকদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে সচেষ্ট রয়েছে পুলিশ। ছিনতাই বা ডাকাতির ঘটনা প্রতিরোধে পুলিশের মোবাইল টিম টহলে আছে। এছাড়া মহাসড়কে সিসি ক্যামেরার মাধ্যমে পুরো মহাসড়ক পর্যবেক্ষণ হচ্ছে। যেন কোথাও কারো কোন অসুবিধা না হয়।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে পুলিশ সুপার আব্দুল মান্নান বলেন, আজ থেকে মহাসড়ক ও আঞ্চলিক সড়কগুলোতে দুই স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থায় পুলিশ সদস্যদের নিয়োজিত করা হয়েছে। হাইওয়ে পুলিশের পাশাপাশি মহাসড়কে জেলা পুলিশের ১৪টি পয়েন্টে টিম আছে। এছাড়াও কুমিল্লা-নোয়াখালী, কুমিল্লা-সিলেট, কুমিল্লা-চাঁদপুর সড়কেও আমাদের টিম আছে। মহাসড়কে রাতের বেলা যাত্রীদের চলাচলের কথা মাথায় রেখে জেলা পুলিশের ১৪টি মোবাইল টিম কাজ করবে। এছাড়াও হাইওয়ে পুলিশেরও অন্যান্য টিমসহ মোটরসাইকেল পেট্রোল টিম থাকবে।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর