,

download (9)

৮০ কোটি টাকা ফেরত দেবে জাতীয় সংসদ

হাওর বার্তা ডেস্কঃ চলতি অর্থবছরে ৮০ কোটি টাকা ফেরত দিচ্ছে জাতীয় সংসদ। করোনা মহামারির কারণে সংসদ অধিবেশনের কার্যদিবস কম হওয়া এবং বিদেশ সফর ও প্রশিক্ষণ না হওয়ার কারণে চলতি অর্থবছরে এ অর্থ সাশ্রয় হয়েছে। তবে আগামী ২০২২-২৩ অর্থ বছরের জন্য সাড়ে ৫ কোটি টাকা বাড়িয়ে ৩৪১ কোটি ৮৯ লক্ষ টাকার বাজেট অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

আজ বুধবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সংসদ সচিবালয় কমিশনের ৩৩তম সভায় এ বাজেট অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

সংসদ সচিবালয় কমিশনের চেয়ারম্যান ও স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে কমিটির সদস্য প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা, অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল, আইনমন্ত্রী মন্ত্রী আনিসুল হক, সংসদ বিরোধীদলীয় নেতার পক্ষে ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন। বিশেষ আমন্ত্রণে জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী বৈঠকে যোগদান করেন।

বৈঠক শেষে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, চলতি অর্থ বছরে যে বাজেট ছিলো আমরা তার থেকে খরচ কম করেছি। আজকের বৈঠকে চলতি অর্থ বছরের (২০২১-২২) জন্য ৩১৬ কোটি টাকার সংশোধিত বাজেট অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। আমরা মে মাস পর্যন্ত ১৮৯ কোটি টাকা খরচ করেছি। কর্মকর্তারা যে হিসেব দিয়েছেন তাতে অর্থ বছর শেষে আমরা ৮০ কোটি টাকার মত ফেরত দিতে পারবো। করোনার পরিস্থিতিতে সংসদ অধিবেশনের দিবস কম ছিলো এবং ভ্রমণ ও প্রশিক্ষণ কম হওয়ার কারণে এই সাশ্রয় হয়েছে বলে তিনি জানান।

কমিটি সূত্র জানায়, বৈঠকে জাতীয় সংসদের আগামী ২২-২৩ অর্থবছরে পরিচালন ও উন্নয়ন খাতে ৩৪১ কোটি ৮৯ লক্ষ টাকার প্রস্তাবিত বাজেট প্রাক্কলন অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। গত বছর চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরে জন্য ৩৩৬ কোটি ১৪ লাখ টাকার বাজেট প্রাক্কলন করা হয়েছিল। এছাড়া ২৩-২৪ অর্থ বছরে ৩৬৫ কোটি ৮২ লক্ষ টাকা এবং ২৪-২৫ অর্থ বছরে ৩৯১ কোটি ৪৩ লক্ষ টাকার বাজেট প্রক্ষেপণ অনুমোদন করা হয়। এছাড়া বৈঠকে সংসদ সচিবালয়ে যুগ্ম সচিবের ৫টি পদ বাড়ানোর প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিভিন্ন ধরণের ভাতা বাড়ানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, সার্বভৌম প্রতিষ্ঠান জাতীয় সংসদে সংশ্লিষ্টদের বেতন-ভাতাসহ আনুষঙ্গিক ব্যয় নির্বাহের জন্য সংসদ সচিবালয় কমিশন বৈঠকে বাজেট বরাদ্দ অনুমোদন দেওয়া হয়। পরে তা অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। এছাড়া কমিশন বৈঠকে সংসদ সচিবালয়ের নতুন পদ সৃষ্টি, প্রকল্প প্রণয়নসহ বিভিন্ন নীতি নির্ধারণী সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর