,

11

সময়-খরচ বেড়েছে বরিশাল-ঝালকাঠি-পিরোজপুরের অবকাঠামো উন্নয়নের

হাওর বার্তা ডেস্কঃ বরিশাল, ঝালকাঠি ও পিরোজপুর জেলার গ্রামীণ অবকাঠামোর উন্নয়নের খরচ ৩০৫ কোটি টাকা বেড়েছে। সময়ও বেড়েছে এক বছর।

মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় বাড়তি খরচ ও সময়ের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পরিকল্পনা কমিশন সূত্র জানায়, ‘গুরুত্বপূর্ণ পল্লী অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প : বরিশাল, ঝালকাঠি ও পিরোজপুর জেলা’ শীর্ষক প্রকল্পের প্রথম সংশোধন অনুমোদন দিয়েছে একনেক। এ প্রকল্পের মূল খরচ ছিল ৯৫০ কোটি টাকা। ৩০৫ কোটি বাড়িয়ে তা করা হয়েছে এক হাজার ২৫৫ কোটি টাকা। প্রকল্পটি ২০১৭ সালের নভেম্বর থেকে ২০২২-এর জুনের মধ্যে বাস্তবায়ন করার কথা ছিল। সেখান থেকে মেয়াদ এক বছর বাড়িয়ে করা হয়েছে ২০২৩ সালের জুন পর্যন্ত।

স্থানীয় সরকার বিভাগ/স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি)।

প্রকল্প সংশোধনের কারণ হিসেবে বাস্তবায়নকারী সংস্থা ও উদ্যোগী মন্ত্রণালয়/বিভাগ বলছে, ‘প্রকল্প এলাকায় নিরবচ্ছিন্ন সড়ক যোগাযোগ নেটওয়ার্ক স্থাপনের জন্য কিছু সড়কের অবশিষ্ট অংশ সমাপ্ত করা হবে। কিছু জনগুরুত্বপূর্ণ সড়ক অন্তর্ভুক্ত করা হবে। প্রকল্পভুক্ত স্কিমগুলোর অগ্রাধিকারক্রম এবং সড়ক সংযোগ ব্যবস্থার সার্বিক সুফল বিবেচনায় স্কিমের তালিকা পুনর্বিন্যাস করা হবে। এলজিইডির হালনাগাদ রেট শিডিউল (২০১৯) অনুযায়ী প্রকল্পের অবশিষ্ট পূর্তকাজের ব্যয় নির্ধারণ করা হবে। প্রকল্পটির কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সমাপ্তির জন্য ২০২৩ পর্যন্ত অর্থাৎ আরও এক বছর প্রয়োজন। বেতন-ভাতাসহ প্রকল্পের পরিচালন খরচ বেড়েছে।’

বরিশালের আগৈলঝাড়া, গৌরনদী, উজিরপুর, বানারীপাড়া, বাবুগঞ্জ, মুলাদী, হিজলা, মেহেন্দীগঞ্জ, বাকেরগঞ্জ ও সদর; ঝালকাঠির রাজাপুর, কাঁঠালিয়া, সদর ও নলছিটি এবং পিরোজপুরের সদর, নাজিরপুর, নেছারাবাদ, ভান্ডারিয়া, কাউখালী, ইন্দুরকানী ও মঠবাড়িয়া উপজেলায় এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

এই তিন জেলার গ্রামীণ সড়ক উন্নয়নের মাধ্যমে কৃষি ও অকৃষি অর্থনীতির গতি সঞ্চার, গ্রামীণ জনগণের জন্য গ্রাম, বাজার, স্বাস্থ্যকেন্দ্র, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও অন্যান্য সেবাপ্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের যাতায়াত সুবিধা বৃদ্ধির মাধ্যমে জীবনযাত্রার মানোন্নয়ন এবং স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা এ প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য।

এসব উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে এই তিন জেলায় ১৩১ দশমিক ৫০ কিলোমিটার উপজেলা সড়ক উন্নয়ন, ২৭৩ দশমিক ১০ কিলোমিটার ইউনিয়ন সড়ক উন্নয়ন, ৮১৭ দশমিক ৭৮ কিলোমিটার গ্রাম সড়ক উন্নয়ন, এক হাজার ৩৭৭ দশমিক ৭৯ মিটার গ্রাম সড়কে ব্রিজ নির্মাণ, ৩ হাজার ৯০০ দশমিক এক মিটার গ্রাম সড়কে কালভার্ট নির্মাণ, বৃক্ষরোপণ ও পরিচর্যা ১০০ কিলোমিটার এবং ২১টি গ্রোথ সেন্টার ও গ্রামীণ বাজার উন্নয়ন করা হচ্ছে এ প্রকল্পের আওতায়।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর