ঢাকা ০৯:১৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জয়ের পথে টাইগাররা

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ০৫:১১:১৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুন ২০১৫
  • ৪১৩ বার

সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে দুই তরুণ পেসার ডানহাতি তাসকিন আর বাহাতি মুস্তাফিজুর এবং পাশাপাশি সাকিবের কার্যকরী আঘাতে জয়ের সুবাস পাচ্ছে বাংলাদেশ। উদ্বোধনী জুটিতে ৯৫ রান তোলার পর এই ত্রয়ের আক্রমণে ভারতের স্কোর দাঁড়ায় ১২৮/৫। তাসকিন এবং মুস্তাফিজুরের জোড়া উইকেট শিকারের পাশাপাশি অধিনায়ক ধোনিকে ফিরিয়ে ভারতকে খাদের কিনারে ফেলে দেন সাকিব। বাংলাদেশের জয়ের আর ভারতের সম্মানরক্ষার মাঝে দাড়িঁয়ে শুধু রায়না।
বাংলাদেশের দেয়া ৩০৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামা ভারতের দুই ওপেনার শিখর ধাওয়ান এবং রোহিত শর্মা ৯৫ রানের বেশ ভালো একটা শুরু এনে দিলেও তাসকিনের আক্রমণে তা এখন সুদূর অতীত। ভারতের বিপক্ষেই অভিষেকে ৫ উইকেট নেয়া তাসকিন আহমেদ আবারো হন্তারকের ভুমিকায় আবির্ভূত। জোড়া আঘাতে ভারতকে ব্যাকফুটে ঠেলে দেন তিনি। ১৬তম ওভারের শেষ বলে শিখর ধাওয়ানকে মুশফিকের ক্যাচ বানিয়ে ফিরিয়ে দেন সাজঘরে। এরপর ১৭.২ ওভারে বিরাট কোহলিকেও একই ভাবে ফিরিয়ে দিলেন তরুণ এই তুর্কি।
ইনিংস মেরামতের দায়িত্ব সামলানোর চেষ্টা চালান রোহিত এবং রাহানে। কিন্তু তা সম্ভব হলো না অভিষিক্ত মুস্তাফিজুরের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে। ক্রমেই বিপজ্জনক হয়ে ওঠা রোহিত শর্মাকে মাশরাফির এবং আজিঙ্কা রাহানেকে নাসির হোসেনের ক্যাচ বানিয়ে বাংলাদেশকে চালকের আসনে বসান মুস্তাফিজুর।  রোহিত শর্মা করেন ৬৮ বলে ৬৩ রান। আর রাহানের সংগ্রহ ২৫ বলে মাত্র ৯ রান।
এরপরই আক্রমণে আসেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব। এসেই তুলে নেন ধোনির মহামূল্যবান উইকেট। ২৫.৩ ওভারে ৫ রান করে উইকেটের পিছনে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান ধোনি। এখন ম্যাচ জিততে হলে অতিমানবীয় কিছু করে দেখাতে হবে ভারতের টেল এন্ডারদের।
এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ভারতের সংগ্রহ ৩৩ ওভারে ৫ উইকেটে ১৬১ রান। ব্যাট করছেন রায়না (৩০) এবং জাদেজা (১৩)। জয়ের জন্য ১৭ ওভারে দরকার ১৪৭ রান। হাতে আছে ৫টি উইকেট।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

জনপ্রিয় সংবাদ

জয়ের পথে টাইগাররা

আপডেট টাইম : ০৫:১১:১৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুন ২০১৫

সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে দুই তরুণ পেসার ডানহাতি তাসকিন আর বাহাতি মুস্তাফিজুর এবং পাশাপাশি সাকিবের কার্যকরী আঘাতে জয়ের সুবাস পাচ্ছে বাংলাদেশ। উদ্বোধনী জুটিতে ৯৫ রান তোলার পর এই ত্রয়ের আক্রমণে ভারতের স্কোর দাঁড়ায় ১২৮/৫। তাসকিন এবং মুস্তাফিজুরের জোড়া উইকেট শিকারের পাশাপাশি অধিনায়ক ধোনিকে ফিরিয়ে ভারতকে খাদের কিনারে ফেলে দেন সাকিব। বাংলাদেশের জয়ের আর ভারতের সম্মানরক্ষার মাঝে দাড়িঁয়ে শুধু রায়না।
বাংলাদেশের দেয়া ৩০৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামা ভারতের দুই ওপেনার শিখর ধাওয়ান এবং রোহিত শর্মা ৯৫ রানের বেশ ভালো একটা শুরু এনে দিলেও তাসকিনের আক্রমণে তা এখন সুদূর অতীত। ভারতের বিপক্ষেই অভিষেকে ৫ উইকেট নেয়া তাসকিন আহমেদ আবারো হন্তারকের ভুমিকায় আবির্ভূত। জোড়া আঘাতে ভারতকে ব্যাকফুটে ঠেলে দেন তিনি। ১৬তম ওভারের শেষ বলে শিখর ধাওয়ানকে মুশফিকের ক্যাচ বানিয়ে ফিরিয়ে দেন সাজঘরে। এরপর ১৭.২ ওভারে বিরাট কোহলিকেও একই ভাবে ফিরিয়ে দিলেন তরুণ এই তুর্কি।
ইনিংস মেরামতের দায়িত্ব সামলানোর চেষ্টা চালান রোহিত এবং রাহানে। কিন্তু তা সম্ভব হলো না অভিষিক্ত মুস্তাফিজুরের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে। ক্রমেই বিপজ্জনক হয়ে ওঠা রোহিত শর্মাকে মাশরাফির এবং আজিঙ্কা রাহানেকে নাসির হোসেনের ক্যাচ বানিয়ে বাংলাদেশকে চালকের আসনে বসান মুস্তাফিজুর।  রোহিত শর্মা করেন ৬৮ বলে ৬৩ রান। আর রাহানের সংগ্রহ ২৫ বলে মাত্র ৯ রান।
এরপরই আক্রমণে আসেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব। এসেই তুলে নেন ধোনির মহামূল্যবান উইকেট। ২৫.৩ ওভারে ৫ রান করে উইকেটের পিছনে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান ধোনি। এখন ম্যাচ জিততে হলে অতিমানবীয় কিছু করে দেখাতে হবে ভারতের টেল এন্ডারদের।
এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ভারতের সংগ্রহ ৩৩ ওভারে ৫ উইকেটে ১৬১ রান। ব্যাট করছেন রায়না (৩০) এবং জাদেজা (১৩)। জয়ের জন্য ১৭ ওভারে দরকার ১৪৭ রান। হাতে আছে ৫টি উইকেট।