ঢাকা ১১:০৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মদনে সংবাদ প্রকাশের পর স্কুল কর্তৃপক্ষের ঘুম ভাঙ্গল

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ০৭:৪২:৪৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মে ২০২৪
  • ১৮ বার

নিজাম (নেত্রকোনা) প্রতিনিধিঃ সংবাদ প্রকাশের পর নেত্রকোনা মদন উপজেলার পদমশ্রী এ.ইউ.খান উচ্চ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের ঘুম ভেঙ্গেছে। বিদ্যালয়ে শুরু হয়েছে পাঠদান । অফিসে শিক্ষকদের আড্ডা, ধুমপান ও দায়িত্বে অবহেলার বিষয়ে গত ৯ মে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হয়।

সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর স্কুল কর্তৃপক্ষের টনক নড়ে। শিক্ষকদের কারণ দর্শাণোর নোটিশসহ তদন্ত প্রতিবেদন পাঠানোর নির্দেশ দেন শিক্ষা কর্তৃপক্ষ। এলাকার সর্বমহলে আলোড়ণ সৃষ্টি হয়। সমালোচিত হয় শিক্ষক ও স্কুল কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার (১৪ মে) বিদ্যালয়টিতে সরজমিনে গেলে দেখা যায় শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের উপস্থিতও বেড়েছে। বিদ্যালয়ে ৫৬০ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ষষ্ঠ শ্রেণিতে ৫৫, ৭ম শ্রেণিতে ৩৫, ৮ম শ্রেণিতে ৩০, ৯ম শ্রেণিতে ২৫ এবং ১০ম শ্রেণিতে ১৫ জন শিক্ষার্থী উপস্থিত পাওয়া যায়।

প্রধান শিক্ষক সমির কুমার দাস জানান, সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় বিদ্যালয়ের জন্য মঙ্গল হয়েছে। কৃষি মৌসুমে শিক্ষক শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি খুবই দূস্কর ছিল। বর্তমানে শিক্ষকরা তৎপর হওয়ায় শিক্ষার্থীরা স্কুলে আসা শুরু করেছে।

মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ শফিকুল বারী জানান, সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর উপস্থিতি বৃদ্ধি পেয়েছে। শিক্ষক কর্মচারীগণ নিয়মিত আসতেছেন। আজ আমার আকস্মিক পরিদর্শনে যাওয়ার কথা ছিলো। শারীরিক অসুস্থতায় যেতে পারিনি। তবে বিদ্যালয়টির ব্যাপারে নিয়মিত খোঁজ খবর রাখছি। অচিরেই তদন্ত শুরু হবে।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

মদনে সংবাদ প্রকাশের পর স্কুল কর্তৃপক্ষের ঘুম ভাঙ্গল

আপডেট টাইম : ০৭:৪২:৪৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৪ মে ২০২৪

নিজাম (নেত্রকোনা) প্রতিনিধিঃ সংবাদ প্রকাশের পর নেত্রকোনা মদন উপজেলার পদমশ্রী এ.ইউ.খান উচ্চ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের ঘুম ভেঙ্গেছে। বিদ্যালয়ে শুরু হয়েছে পাঠদান । অফিসে শিক্ষকদের আড্ডা, ধুমপান ও দায়িত্বে অবহেলার বিষয়ে গত ৯ মে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হয়।

সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর স্কুল কর্তৃপক্ষের টনক নড়ে। শিক্ষকদের কারণ দর্শাণোর নোটিশসহ তদন্ত প্রতিবেদন পাঠানোর নির্দেশ দেন শিক্ষা কর্তৃপক্ষ। এলাকার সর্বমহলে আলোড়ণ সৃষ্টি হয়। সমালোচিত হয় শিক্ষক ও স্কুল কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার (১৪ মে) বিদ্যালয়টিতে সরজমিনে গেলে দেখা যায় শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের উপস্থিতও বেড়েছে। বিদ্যালয়ে ৫৬০ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ষষ্ঠ শ্রেণিতে ৫৫, ৭ম শ্রেণিতে ৩৫, ৮ম শ্রেণিতে ৩০, ৯ম শ্রেণিতে ২৫ এবং ১০ম শ্রেণিতে ১৫ জন শিক্ষার্থী উপস্থিত পাওয়া যায়।

প্রধান শিক্ষক সমির কুমার দাস জানান, সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় বিদ্যালয়ের জন্য মঙ্গল হয়েছে। কৃষি মৌসুমে শিক্ষক শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি খুবই দূস্কর ছিল। বর্তমানে শিক্ষকরা তৎপর হওয়ায় শিক্ষার্থীরা স্কুলে আসা শুরু করেছে।

মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ শফিকুল বারী জানান, সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর উপস্থিতি বৃদ্ধি পেয়েছে। শিক্ষক কর্মচারীগণ নিয়মিত আসতেছেন। আজ আমার আকস্মিক পরিদর্শনে যাওয়ার কথা ছিলো। শারীরিক অসুস্থতায় যেতে পারিনি। তবে বিদ্যালয়টির ব্যাপারে নিয়মিত খোঁজ খবর রাখছি। অচিরেই তদন্ত শুরু হবে।