ঢাকা ০৪:১৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ওয়াশিংটনের বৈঠকে ঐকমত্যে ওবামা-নওয়াজ শরিফ

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ১১:৩০:২৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৫
  • ২৭০ বার

ওয়াশিংটনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সঙ্গে বৃহস্পতিবার বৈঠক করেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। ওই বৈঠকেই শরিফ জানিয়েছেন, লস্কর-ই-তৈবাসহ বিভিন্ন জঙ্গিগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে ইসলামাবাদ। হোয়াইট হাউসের ওভাল অফিসে বৈঠকের পর ওবামা ও শরিফ যৌথভাবে বিবৃতি দিয়ে জানান, জঙ্গি দমনের জন্য সবধরনের ব্যবস্থা নেবেন তারা। ওয়াশিংটনের বৈঠকে ঐকমত্যে পৌঁছেন ওবামা-নওয়াজ শরিফ। বিবৃতি থেকে একথা স্পষ্ট যে, পাকিস্তানের মাটিতে জঙ্গি কার্যকলাপ দমন করতেই এই চাপ সৃষ্টি করছে আমেরিকা। ২৬/১১ মুম্বাই হামলার মূল চক্রী লস্কর-এর শীর্ষ নেতা জাকিউর রহমান লকভি ও অন্যান্য সদস্যদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়ার দাবি তুলেছে মার্কিন প্রশাসন। লকভির বিরুদ্ধে উপযুক্ত তথ্য-প্রমাণ তুলে দেয়ার জন্য বহুদিন ধরেই বলে আসছে ভারত। কিন্তু এব্যাপারে কোনো ব্যবস্থাই নেয়নি পাকিস্তান। ওবামা-শরিফের বৈঠকের পর হোয়াইট হাউসের ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি জানিয়েছেন, পাক সরকার স্পষ্টতই জানিয়ে দিয়েছে, কোনোরকম পক্ষপাত না দেখিয়ে জঙ্গি মোকাবিলায় উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবে তারা। উল্লেখ্য, ওই বৈঠকে ভারত-পাক সীমান্তে যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘনের বিষয়টিও ওঠে আসে। দুই রাষ্ট্রনেতাই সীমান্তে এই হিংসার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। বস্তুত, ওই বৈঠকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট সবথেকে বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন জঙ্গি দমনের বিষয়টিতেই।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

ওয়াশিংটনের বৈঠকে ঐকমত্যে ওবামা-নওয়াজ শরিফ

আপডেট টাইম : ১১:৩০:২৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৫

ওয়াশিংটনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সঙ্গে বৃহস্পতিবার বৈঠক করেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। ওই বৈঠকেই শরিফ জানিয়েছেন, লস্কর-ই-তৈবাসহ বিভিন্ন জঙ্গিগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে ইসলামাবাদ। হোয়াইট হাউসের ওভাল অফিসে বৈঠকের পর ওবামা ও শরিফ যৌথভাবে বিবৃতি দিয়ে জানান, জঙ্গি দমনের জন্য সবধরনের ব্যবস্থা নেবেন তারা। ওয়াশিংটনের বৈঠকে ঐকমত্যে পৌঁছেন ওবামা-নওয়াজ শরিফ। বিবৃতি থেকে একথা স্পষ্ট যে, পাকিস্তানের মাটিতে জঙ্গি কার্যকলাপ দমন করতেই এই চাপ সৃষ্টি করছে আমেরিকা। ২৬/১১ মুম্বাই হামলার মূল চক্রী লস্কর-এর শীর্ষ নেতা জাকিউর রহমান লকভি ও অন্যান্য সদস্যদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়ার দাবি তুলেছে মার্কিন প্রশাসন। লকভির বিরুদ্ধে উপযুক্ত তথ্য-প্রমাণ তুলে দেয়ার জন্য বহুদিন ধরেই বলে আসছে ভারত। কিন্তু এব্যাপারে কোনো ব্যবস্থাই নেয়নি পাকিস্তান। ওবামা-শরিফের বৈঠকের পর হোয়াইট হাউসের ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি জানিয়েছেন, পাক সরকার স্পষ্টতই জানিয়ে দিয়েছে, কোনোরকম পক্ষপাত না দেখিয়ে জঙ্গি মোকাবিলায় উপযুক্ত ব্যবস্থা নেবে তারা। উল্লেখ্য, ওই বৈঠকে ভারত-পাক সীমান্তে যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘনের বিষয়টিও ওঠে আসে। দুই রাষ্ট্রনেতাই সীমান্তে এই হিংসার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। বস্তুত, ওই বৈঠকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট সবথেকে বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন জঙ্গি দমনের বিষয়টিতেই।