ঢাকা ০২:২৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাঁচার মতো বাঁচতে চাই, নিরাপদ সড়ক চাই

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ১১:১৬:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০১৫
  • ৩৩২ বার

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, গাড়ি অ্যাকসিডেন্ট করলে যে জরিমানা করা হয় তা যথার্থ নয়। আমরা এটা আরো বেশি করতে চাচ্ছি। তবে জরিমানার পরিমাণ কত বাড়নো হচ্ছে সে বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেননি মন্ত্রী। বৃহস্পতিবার দুপুরে শিল্পকলা একাডেমীর সামনে থেকে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসের র‌্যালি উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান বলেন, অ্যাকসিডেন্ট করলে শাস্তি তাকে পেতেই হবে। এ ব্যাপারে কোনো ছাড় দেয়া হবে না। অনেক সীমাবদ্ধতার মধ্যেও সড়ক দুর্ঘটনারোধে নিরাপত্তা বাহিনী কাজ করে যাচ্ছে। রাস্তায় জনগণের নিরাপত্তা দিতে প্রয়োজনে আরো বাহিনী তৈরি করবো। এসময় তিনি জনগণকে ট্রাফিক আইন মেনে চলার আহ্বান জানান। নিরাপদ সড়ক চাই-এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ২২ বছর ধরে নিরাপদ সড়কের কর্মকাণ্ড সফল করতে টেনশনে থাকতে হতো। আজ কেন্দ্রীয় কমিটির সুশৃঙ্খল আয়োজন দেখে আমি আনন্দিত। আমরা যদি এভাবে সুশৃঙ্খল ও একতাবদ্ধ থাকতে পারি তাহলে অল্পদিনের মধ্যেই নিরাপদ সড়ক করতে পারবো। তিনি বলেন, পৃথিবীর অন্যান্য দেশে যেখানে ৫০০ অ্যাকসিডেন্ট ঘটলে ৩০০ জন লোক মারা যায়। সেখানে বাংলাদেশে মারা যায় ৫ হাজার মানুষ। এর একটাই কারণ ম্যানেজমেন্টের বড় অভাব। ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, নিরাপদ সড়ক চাই- আন্দোলন করতে গিয়ে একটা সময় হতাশ হয়ে গিয়েছিলাম। এখন আর হতাশ নই। ভাঙাচুরা রাস্তাগুলোতে আগের চেয়ে অনেক বেশি কাজ হচ্ছে। নিরাপদ সড়ক বিষয়ে একটি অধ্যায় অন্তর্ভুক্ত করা হবে বলে সরকারের পক্ষ থেকে আশ্বাস দেয়া হয়েছে। এ সময় র‌্যালিতে উপস্থিত ছিলেন ডিএমপির পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া, বিটিবির সাবেক ডিজি নাট্যব্যক্তিত্ব ম হামিদ, নিরাপদ সড়ক চাই-এর ভাইস চেয়ারম্যান চলচ্চিত্র পরিচালক সোহানুর রহমান, সংগঠনের মহাসচিব শামীম আলম দীপন, নিরাপদ সড়ক দিবস কমিটির আহ্বায়ক সাদেক হোসেন বাবুল প্রমুখ। নিরাপদ সড়ক দিবসের র‌্যালিটি বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর সামনে থেকে শুরু হয়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে গিয়ে শেষ হয়। এসময় র‌্যালিতে স্লোগান ছিল- ‘চালক-যাত্রী ভাই ভাই, নিরাপদ সড়ক চাই।’ ‘বাঁচার মতো বাঁচতে চাই, নিরাপদ সড়ক চাই।’

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

জনপ্রিয় সংবাদ

বাঁচার মতো বাঁচতে চাই, নিরাপদ সড়ক চাই

আপডেট টাইম : ১১:১৬:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০১৫

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, গাড়ি অ্যাকসিডেন্ট করলে যে জরিমানা করা হয় তা যথার্থ নয়। আমরা এটা আরো বেশি করতে চাচ্ছি। তবে জরিমানার পরিমাণ কত বাড়নো হচ্ছে সে বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেননি মন্ত্রী। বৃহস্পতিবার দুপুরে শিল্পকলা একাডেমীর সামনে থেকে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসের র‌্যালি উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান বলেন, অ্যাকসিডেন্ট করলে শাস্তি তাকে পেতেই হবে। এ ব্যাপারে কোনো ছাড় দেয়া হবে না। অনেক সীমাবদ্ধতার মধ্যেও সড়ক দুর্ঘটনারোধে নিরাপত্তা বাহিনী কাজ করে যাচ্ছে। রাস্তায় জনগণের নিরাপত্তা দিতে প্রয়োজনে আরো বাহিনী তৈরি করবো। এসময় তিনি জনগণকে ট্রাফিক আইন মেনে চলার আহ্বান জানান। নিরাপদ সড়ক চাই-এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ২২ বছর ধরে নিরাপদ সড়কের কর্মকাণ্ড সফল করতে টেনশনে থাকতে হতো। আজ কেন্দ্রীয় কমিটির সুশৃঙ্খল আয়োজন দেখে আমি আনন্দিত। আমরা যদি এভাবে সুশৃঙ্খল ও একতাবদ্ধ থাকতে পারি তাহলে অল্পদিনের মধ্যেই নিরাপদ সড়ক করতে পারবো। তিনি বলেন, পৃথিবীর অন্যান্য দেশে যেখানে ৫০০ অ্যাকসিডেন্ট ঘটলে ৩০০ জন লোক মারা যায়। সেখানে বাংলাদেশে মারা যায় ৫ হাজার মানুষ। এর একটাই কারণ ম্যানেজমেন্টের বড় অভাব। ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, নিরাপদ সড়ক চাই- আন্দোলন করতে গিয়ে একটা সময় হতাশ হয়ে গিয়েছিলাম। এখন আর হতাশ নই। ভাঙাচুরা রাস্তাগুলোতে আগের চেয়ে অনেক বেশি কাজ হচ্ছে। নিরাপদ সড়ক বিষয়ে একটি অধ্যায় অন্তর্ভুক্ত করা হবে বলে সরকারের পক্ষ থেকে আশ্বাস দেয়া হয়েছে। এ সময় র‌্যালিতে উপস্থিত ছিলেন ডিএমপির পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া, বিটিবির সাবেক ডিজি নাট্যব্যক্তিত্ব ম হামিদ, নিরাপদ সড়ক চাই-এর ভাইস চেয়ারম্যান চলচ্চিত্র পরিচালক সোহানুর রহমান, সংগঠনের মহাসচিব শামীম আলম দীপন, নিরাপদ সড়ক দিবস কমিটির আহ্বায়ক সাদেক হোসেন বাবুল প্রমুখ। নিরাপদ সড়ক দিবসের র‌্যালিটি বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর সামনে থেকে শুরু হয়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে গিয়ে শেষ হয়। এসময় র‌্যালিতে স্লোগান ছিল- ‘চালক-যাত্রী ভাই ভাই, নিরাপদ সড়ক চাই।’ ‘বাঁচার মতো বাঁচতে চাই, নিরাপদ সড়ক চাই।’