ঢাকা ০২:৫২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যে কারণে ঢাকায় আসছে ইইউ প্রতিনিধিদল

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ০৩:৪৪:০৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ১২ নভেম্বর ২০২৩
  • ৪০ বার

হাওর বার্তা ডেস্কঃ শ্রম অধিকার ও জিএসপি প্লাস সুবিধাসহ সংশ্লিষ্ট নানা বিষয় পর্যালোচনা করতে আজ রবিবার পাঁচ দিনের সফরে ঢাকায় আসছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) একটি প্রতিনিধিদল। দেশের শ্রম খাত নিয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে বিস্তর আলোচনা করবেন তারা।

প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেবেন ইউরোপিয়ান এক্সটার্নাল অ্যাকশন সার্ভিসের (ইইএএস) এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক পাওলা পাম্পালোনি। তাদের সঙ্গে ঢাকায় আসছেন ব্রাসেলসে অবস্থানরত রাষ্ট্রদূত হোয়াইটলি। তারা সরকারের শ্রম, বাণিজ্য ও পররাষ্ট্র সচিবদের সঙ্গে বৈঠকের পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট অন্যান্যদের সঙ্গে আলোচনা করবেন।

এ বিষয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত চার্লস হোয়াইটলি সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘শ্রম খাতের জন্য জাতীয় কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নে ‘অগ্রগতি পর্যালোচনা’ করার লক্ষ্যে এই সফর।’

এদিকে ঢাকায় পৌঁছার আগেই শ্রমিকদের বিরুদ্ধে পুলিশের হয়রানি ও সহিংসতার তদন্ত এবং শ্রমিকদের আন্দোলন, ধর্মঘট কীভাবে শান্তিপূর্ণভাবে সামলানো যায়, সে বিষয়ে শিল্প পুলিশকে প্রশিক্ষণ দেওয়াসহ জাতীয় কর্মপরিকল্পনার (এনএপি) বাস্তবায়নে বাংলাদেশের ধীর অগ্রগতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের এভরিথিং বাট আর্মস (ইবিএ) রিভিউ মিশন।

বাংলাদেশ শ্রম খাতে একটি জাতীয় কর্মপরিকল্পনা (২০২১-২০২৬) গ্রহণ করেছে এবং এই পরিকল্পনাটি আইএলও গভর্নিং বডির কাছে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক উপস্থাপিত রোডম্যাপের সঙ্গে নিবিড়ভাবে জড়িত। রোডম্যাপের লক্ষ্য হল সংগঠনের স্বাধীনতা এবং সম্মিলিত দরকষাকষির অধিকারসহ দেশের শ্রম অধিকারগুলো উন্নতি করা।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

জনপ্রিয় সংবাদ

যে কারণে ঢাকায় আসছে ইইউ প্রতিনিধিদল

আপডেট টাইম : ০৩:৪৪:০৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ১২ নভেম্বর ২০২৩

হাওর বার্তা ডেস্কঃ শ্রম অধিকার ও জিএসপি প্লাস সুবিধাসহ সংশ্লিষ্ট নানা বিষয় পর্যালোচনা করতে আজ রবিবার পাঁচ দিনের সফরে ঢাকায় আসছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) একটি প্রতিনিধিদল। দেশের শ্রম খাত নিয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে বিস্তর আলোচনা করবেন তারা।

প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেবেন ইউরোপিয়ান এক্সটার্নাল অ্যাকশন সার্ভিসের (ইইএএস) এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক পাওলা পাম্পালোনি। তাদের সঙ্গে ঢাকায় আসছেন ব্রাসেলসে অবস্থানরত রাষ্ট্রদূত হোয়াইটলি। তারা সরকারের শ্রম, বাণিজ্য ও পররাষ্ট্র সচিবদের সঙ্গে বৈঠকের পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট অন্যান্যদের সঙ্গে আলোচনা করবেন।

এ বিষয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত চার্লস হোয়াইটলি সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘শ্রম খাতের জন্য জাতীয় কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নে ‘অগ্রগতি পর্যালোচনা’ করার লক্ষ্যে এই সফর।’

এদিকে ঢাকায় পৌঁছার আগেই শ্রমিকদের বিরুদ্ধে পুলিশের হয়রানি ও সহিংসতার তদন্ত এবং শ্রমিকদের আন্দোলন, ধর্মঘট কীভাবে শান্তিপূর্ণভাবে সামলানো যায়, সে বিষয়ে শিল্প পুলিশকে প্রশিক্ষণ দেওয়াসহ জাতীয় কর্মপরিকল্পনার (এনএপি) বাস্তবায়নে বাংলাদেশের ধীর অগ্রগতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের এভরিথিং বাট আর্মস (ইবিএ) রিভিউ মিশন।

বাংলাদেশ শ্রম খাতে একটি জাতীয় কর্মপরিকল্পনা (২০২১-২০২৬) গ্রহণ করেছে এবং এই পরিকল্পনাটি আইএলও গভর্নিং বডির কাছে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক উপস্থাপিত রোডম্যাপের সঙ্গে নিবিড়ভাবে জড়িত। রোডম্যাপের লক্ষ্য হল সংগঠনের স্বাধীনতা এবং সম্মিলিত দরকষাকষির অধিকারসহ দেশের শ্রম অধিকারগুলো উন্নতি করা।