,

যে কারণে চীনা প্রতিনিধিদলকে দেখতে দেওয়া হচ্ছে না রানির মরদেহ

হাওর বার্তা ডেস্কঃ যুক্তরাজ্যের সদ্য প্রয়াত রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় যোগ দিতে লন্ডন সফররত চীনা প্রতিনিধিদলকে ব্রিটিশ সংসদের অভ্যন্তরে রানির কফিন দেখতে দেওয়া হবে না। শুক্রবার বিবিসি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

জিনজিয়াংয়ে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগের সমালোচনা করার জন্য বেইজিং বেশ কয়েকজন ব্রিটিশ আইনপ্রণেতাকে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। তাই কয়েকজন ব্রিটিশ সংসদ সদস্য চীন থেকে প্রতিনিধিদের আমন্ত্রণ জানানোর বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। যদিও মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে চীন।

কোনো সূত্র উল্লেখ না করে বিবিসি জানিয়েছে, এটা বোঝা যাচ্ছে যে চীনের নিষেধাজ্ঞার কারণে পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষের স্পিকার পার্লামেন্টারি এস্টেটের ওয়েস্টমিনস্টার হলে প্রবেশ করতে চীনা প্রতিনিধি দলকে নিষেধ করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে ব্রিটিশ স্পিকারের কার্যালয় কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি। হাউস অফ কমনসের তরফে থেকে বলেছে, তারা নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি।

এদিকে, ওয়েস্টমিনস্টার হলে চলছে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন। কফিন একনজর দেখতে প্রায় ৮ কিলোমিটার লম্বা লাইন ছিল। অনেকেই ৯ থেকে ১০ ঘণ্টা অপেক্ষার পর দেখতে পান রানিকে বহনকারী কফিন। শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় স্মরণ করেন দ্বিতীয় এলিজাবেথকে।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার ভোর থেকে বহু মানুষ ঘণ্টার পর ঘণ্টা ধরে অপেক্ষা করছেন। রানিকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে অনেকে আবার বুধবার মধ্যরাত থেকে দাঁড়িয়ে রয়েছেন লাইনে। ব্রিটেনের বিভিন্ন জায়গা এমনকি সারা বিশ্ব থেকে দলে দলে লোক এ জন্য লন্ডনে আসছেন।

রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিক শ্রদ্ধা জানান প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেন ওয়ালেস এবং স্কটিশমন্ত্রী এলিস্টার জ্যাক। দুই রাজনীতিকই ‘রয়েল কোম্পানি অব আর্চারস’-এর সদস্য। চার দিনের শ্রদ্ধা নিবেদনের পর ১৯ সেপ্টেম্বর হবে রানির শেষকৃত্য। যাতে অংশ নিচ্ছেন বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধান এবং তাদের প্রতিনিধিরা।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর