,

5

নতুন বই ভাঙাড়ি দোকানে বিক্রি করলেন প্রধান শিক্ষক

হাওর বার্তা ডেস্কঃ গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে মাধ্যমিক স্তরের সরকারি নতুন বই কেজি দরে ভাঙাড়ি দোকানে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার (৭ জুলাই) বিকেলে উপজেলার কলিগ্রাম ভাঙাড়ি ব্যবসায়ী আশুতোষ বালার কাছে ২০২০-২০২১ সালের বইগুলো বিক্রি করা হয়।

স্থানীয়রা জানান, বৃহস্পতিবার বিকালে ভ্যানে মুকসুদপুর উপজেলার কলিগ্রাম মনিমোহন আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মিনতি বৈদ্য মাধ্যমিক স্তরের ২০২০-২০২১ সালের ষষ্ঠ থেকে ৯ম শ্রেণির নতুন বই একই এলাকার ভাঙারি ব্যবসায়ী আশুতোষ বালার দোকানে ২৫ টাকা কেজি দরে ২৬ মণ বই বিক্রি করেন। পরে স্থানীয়রা টের পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে বিষয়টি জানান। পরে মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বইগুলো ওই বিদ্যালয়ে হেফাজতে রাখার জন্য প্রধান শিক্ষিকাকে নির্দেশ দেন।

ভাঙাড়ি ব্যবসায়ী আশুতোষ বালা বলেন, ‘মনিমোহন আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মিনতি বৈদ্যের কাছ থেকে বইগুলো কেনা হয়েছে।’

বই বিক্রির কথা স্বীকার প্রধান শিক্ষিকা মিনতি বৈদ্য বলেন, ‘আমি বই বিক্রি করেছি। তবে এখন ফেরত নিয়ে আসবো।’

মুকসুদপুর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. সাহাদাত হোসেন মোল্যা  বলেন, ‘আপাতত বইগুলো বিদ্যালয়ে হেফাজতে রাখার জন্য প্রধান শিক্ষিকাকে নির্দেশ দিয়েছি। পরবর্তীতে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মুকসুদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. যোবায়ের রহমান রাশেদ  বলেন, ‘বিষয়টি জেনে মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলেছি।’

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর