ঢাকা ০৩:২২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বঙ্গোপসাগরে কার্গো জাহাজডুবি, ১২ নাবিক নিখোঁজ

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ০৭:৪৮:৩৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪
  • ১১ বার

নোয়াখালীর হাতিয়ায় বঙ্গোপসাগরে ১২ জন নাবিকসহ এমভি মৌমনি নামে একটি কার্গো জাহাজ ডুবে গেছে।

বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) দুপুরে হাতিয়ার ইসলাম চরের কাছে এ জাহাজডুবি হয়। দুর্ঘটনার পরপরই নাবিকরা জরুরি সেবা ৯৯৯-এ কল দিয়ে সহযোগিতা চায়। পরে ৯৯৯-থেকে হাতিয়া নৌ-পুলিশ ও কোস্টগার্ডকে সহযোগিতার জন্য বলা হয়।

খবর পেয়ে হাতিয়া কোস্টগার্ড ও নলচিরা নৌ-পুলিশের দু’টি দল উদ্ধার করার জন্য হাতিয়ার নলচিরা ঘাট থেকে রওনা হয়েছে।

নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মেহেদী জামান বলেন, দুর্ঘটনাটি ঘটেছে সাগর মোহনায়। আমরা একটি ট্রলার নিয়ে ঘটনাস্থলের দিকে যাচ্ছি। নদী খুবই উত্তাল রয়েছে। ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে আমাদের সময় লাগবে।

এদিকে নৌ-পুলিশের পরপরই হাতিয়া কোস্টগার্ডের একটি দল ঘাটের একটি ট্রলার নিয়ে ঘটনাস্থলের দিকে রওয়ানা হয়েছে।

কোস্টগার্ড সূত্রে জানা গেছে, ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে তাদের ১-২ ঘণ্টা সময় লাগবে।

এ ব্যাপারে জাহাজের মালিক পক্ষের একজন মোহাম্মদ ওহায়েদুল ইসলাম বলেন, বৈরী আবহাওয়ার কারণে জাহাজটি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। ডুবে যাওয়ার প্রকৃত কারণ জানা যায়নি। জাহাজে থাকা লোকজনের সঙ্গে প্রথমে কথা বলা গেলেও মোবাইল নেটওয়ার্ক না থাকায় এখন যোগাযোগ করা যাচ্ছে না।

তিনি আরও বলেন, জাহাজটি চট্টগ্রাম থেকে মালামাল নিয়ে ঢাকা যাচ্ছিল। জাহাজে ১২ জন নাবিক রয়েছেন।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

বঙ্গোপসাগরে কার্গো জাহাজডুবি, ১২ নাবিক নিখোঁজ

আপডেট টাইম : ০৭:৪৮:৩৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪

নোয়াখালীর হাতিয়ায় বঙ্গোপসাগরে ১২ জন নাবিকসহ এমভি মৌমনি নামে একটি কার্গো জাহাজ ডুবে গেছে।

বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) দুপুরে হাতিয়ার ইসলাম চরের কাছে এ জাহাজডুবি হয়। দুর্ঘটনার পরপরই নাবিকরা জরুরি সেবা ৯৯৯-এ কল দিয়ে সহযোগিতা চায়। পরে ৯৯৯-থেকে হাতিয়া নৌ-পুলিশ ও কোস্টগার্ডকে সহযোগিতার জন্য বলা হয়।

খবর পেয়ে হাতিয়া কোস্টগার্ড ও নলচিরা নৌ-পুলিশের দু’টি দল উদ্ধার করার জন্য হাতিয়ার নলচিরা ঘাট থেকে রওনা হয়েছে।

নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মেহেদী জামান বলেন, দুর্ঘটনাটি ঘটেছে সাগর মোহনায়। আমরা একটি ট্রলার নিয়ে ঘটনাস্থলের দিকে যাচ্ছি। নদী খুবই উত্তাল রয়েছে। ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে আমাদের সময় লাগবে।

এদিকে নৌ-পুলিশের পরপরই হাতিয়া কোস্টগার্ডের একটি দল ঘাটের একটি ট্রলার নিয়ে ঘটনাস্থলের দিকে রওয়ানা হয়েছে।

কোস্টগার্ড সূত্রে জানা গেছে, ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে তাদের ১-২ ঘণ্টা সময় লাগবে।

এ ব্যাপারে জাহাজের মালিক পক্ষের একজন মোহাম্মদ ওহায়েদুল ইসলাম বলেন, বৈরী আবহাওয়ার কারণে জাহাজটি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। ডুবে যাওয়ার প্রকৃত কারণ জানা যায়নি। জাহাজে থাকা লোকজনের সঙ্গে প্রথমে কথা বলা গেলেও মোবাইল নেটওয়ার্ক না থাকায় এখন যোগাযোগ করা যাচ্ছে না।

তিনি আরও বলেন, জাহাজটি চট্টগ্রাম থেকে মালামাল নিয়ে ঢাকা যাচ্ছিল। জাহাজে ১২ জন নাবিক রয়েছেন।