,

fd334350bf2070ab2c653118087788f7-57026a9ec9ff8

এক সপ্তাহের মাথায় পাকিস্তানে ফের বাড়লো জ্বালানির দাম

হাওর বার্তা ডেস্কঃ পাকিস্তানে জ্বালানি তেলের দাম আবারও বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। বৃহস্পতিবার অর্থমন্ত্রী মিফতাহ ইসমাইল জানান সরকার পেট্রোলিয়াম পণ্যের দাম লিটার প্রতি আরও ৩০ রুপি বাড়ানোর ঘোষণা দেন। এই ঘোষণার এক সপ্তাহ আগে একইভাবে জ্বালানির দাম বাড়ায় পাকিস্তান।

ইসলামাবাদে এক সংবাদ সম্মেলনে অর্থমন্ত্রীর ঘোষণার বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকেই নতুন দাম কার্যকর হয়েছে।
নতুন করে বাড়ানো ফলে পেট্রোলের দাম হয়েছে লিটার প্রতি ২০৯.৮৬ রুপি, ডিজেল ২০৪.১৫ রুপি, কেরোসিন তেল ১৮১.৯৪ রুপি, হালকা ডিজেল ১৭৮.৩১ রুপি। কেবল কেরোসিনের দাম বেড়েছে ৩০ রুপির কম।

অর্থমন্ত্রী মিফতাহ ইসমাইল বলেন, ‘৩০ রুপি বাড়ানোর পর সরকার এখনও পেট্রোলে লিটার প্রতি ৯ রুপি ভর্তুকি দিচ্ছে, জ্বালানি থেকে সরকার কোনও রাজস্ব আয় করে না।’

সরকার নিয়মিতভাবে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) সঙ্গে আলোচনা করছে জানিয়ে পাকিস্তানের অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা তাদের সব দাবি মেনে নিতে পারি না কিন্তু কিছু বিষয় আছে যেগুলো আমাদের মেনে নিতে হবে’।
তবে, অর্থমন্ত্রী ইসমাইল জানান সরকার দেশব্যাপী মুদি দোকানগুলোতে প্রতি কেজি চিনি ৭০ রুপি ও গমের দাম কেজি প্রতি ৪০ রুপিতে বিক্রি হওয়া অব্যাহত রাখা নিশ্চিত করবে।

ইসমাইল জোর দিয়ে বলেন, আর্থিক ক্ষতি এড়াতে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ঘোষিত পেট্রোলিয়াম পণ্যগুলোতে ভর্তুকি প্রত্যাহার করতে হবে। তিনি বলেন, ‘আইএমএফ যাই বলুক না কেন, সরকার লোকসানে পেট্রোল এবং ডিজেল বিক্রি করতে পারে না।’
অর্থমন্ত্রী জানান পাকিস্তান রাশিয়া থেকে তেল কিনতে আগ্রহী তবে নিষেধাজ্ঞা এড়িয়ে তা সম্ভব হলেই তা কেনা যাবে।
উল্লেখ্য, অর্থনৈতিক ছাড় পেতে পাকিস্তান ও আইএমএফ এর আলোচনা সমঝোতায় পৌঁছাতে ব্যর্থ হওয়ার পর পেট্রোলের দাম বাড়ানো হয়েছে। এই ব্যর্থতার অন্যতম কারণ জ্বালানি ও বিদ্যুতের ভর্তুকি নিয়ে সদ্য সাবেক সরকারের সিদ্ধান্তহীনতা এবং আগামী বছরের বাজেটের অনিশ্চয়তা।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর