,

download (4)

ভোট গণনার আগেই প্রাণ গেল ৬ জনের

হাওর বার্তা ডেস্কঃ পঞ্চম ধাপের ইউপি নির্বাচনের ভোটর গ্রহণ শেষ হয়েছে। আজ বুধবার (০৫ জানুয়ারি) সকাল ৮টা থেকে এই ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এসময় দেশে নির্বাচনি সহিংসতায় ৬ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

এই ধাপে দেশের ৭০৮টি ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শেষে এখন চলছে গণনা। ৭০৮টি ইউনিয়নের মধ্যে ৪০টিতে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট নেওয়া হয়েছে। বাকিগুলোতে কাগজের ব্যালটে ভোট হয়েছে।

দুপুরে কচুয়ার উপজেলার সাচার ইউনিয়নের নয়াকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে দুই সদস্য প্রার্থীর মধ্যে সংর্ঘষে একজন ছুরিকাহত হন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় আহত শরীফ হোসেনকে (৩০) ঢাকায় নেওয়ার পথে তিনি মারা যান।

এছাড়া, জেলার হাইমচর উপজেলার নীলকমল ইউনিয়নের দুর্গমচরে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংর্ঘষে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে একজন মারা যান। তবে নিহত ব্যক্তির নাম পরিচয় জানা যায়নি। জেলা পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ দুইটি মৃত্যুর ঘটনা নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে, জেলার ফরিদগঞ্জ উপজেলার ৯ নম্বর উত্তর গোবিন্দপুর ইউনিয়নে উত্তর চাঁদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ঢুকে একদল যুবক চেয়ারম্যান প্রার্থীর ব্যালট পেপার তিন শতাধিক ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এছাড়া একই ইউনিয়নের ধানুয়া জনতা উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রের ভেতর ও বাইরে চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, ককটেল বিস্ফোরণ, ইট পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। এতে অন্তত ১০জন আহত হন। এ সময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কয়েক রাউন্ড শর্টগানের গুলি ছোঁড়ে।

এর আগে, সকালে সুবিদপুর পশ্চিম ইউনিয়নের টোরামুন্সিরহাট হাইস্কুল কেন্দ্রে ঢুকে হাঙ্গামার সৃষ্টি করলে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ফাঁকা গুলি ছোঁড়ে। এতে মো. কালাম (২৫) নামে ছাত্রলীগের এককর্মী আহত হন।

গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার জুমারবাড়ি ইউনিয়নের জুমারবাড়ি আদর্শ ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্রের বাইরে দুই ইউপি সদস্যের সমর্থকদের সংঘর্ষে ধারলো অস্ত্রের আঘাতে আবু তাহের নামে এক যুবক নিহত নিহত হয়েছেন। বুধবার ভোট চলাকালে এ ঘটনা ঘটে।

আবু তাহের ওমর আলীর ছেলে। পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম কাছে এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার চাতরী ইউনিয়নের সিংহরা গ্রামে দুই মেম্বার পদপ্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে অংকুর দত্ত (৩০) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। আহত অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হলে দুপুর ১২টায় সেখানে তার মৃত্যু হয়। নিহত অংকুর দত্ত সিংহরা গ্রামের নেপাল দত্তের ছেলে।

এর আগে, সিংহরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র বর্তমান মেম্বার রঘুনাথ শিকদার ও অপর প্রার্থী নাজিম উদ্দীনের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে অংকুর আহত হন। আনোয়ারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিদারুল ইসলাম শিকদার বিষয়টি কালের কণ্ঠকে নিশ্চিত করেছেন।

মানিকগঞ্জের দৌলতপুরে এক ভোটকেন্দ্রের পাশে দুই মেম্বার সমর্থকদের সংঘর্ষের মাঝে পড়ে সমেলা খাতুন (৫০) নামের এক নারী নিহত হয়েছেন। আজ বুধবার দুপুরে উপজেলার বাচামারা ইউনিয়নের বাচামারা ২ নম্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোটকেন্দ্রের পাশে এ ঘটনা ঘটে। নিহত সমেলা ওই এলাকার মাহাতাবের স্ত্রী। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শিবালয় সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তানিয়া সুলতানা।

তিনি কালের কণ্ঠকে বলেন, বাচামারা ইউনিয়নের ২ নম্বর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কেন্দ্রের পাশে দুই মেম্বার সর্মথকদের মাঝে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় ওই নারী সংঘর্ষের মাঝে পড়ে যান। স্থানীয়দের তথ্য মতে, ওই নারী হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান।

বগুড়ার গাবতলী উপজেলার একটি কেন্দ্রে দুই ইউপি সদস্য প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে জাকির হোসেন নামে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। রামেশ্বরপুর জাইগুনি গ্রামে দুপুরে এ সংঘর্ষ হয়। সে সময় আহত জাকিরকে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

গাবতলী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়া লতিফুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, নিহত জাকিরের বাড়ি গাবতলীর রামেশ্বরপুর গ্রামে। তার বয়স আনুমানিক ৩৫ বছর।

 

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর