,

poison-2102260711

প্রেমিকার বিষপান, হাসপাতালের ছাদ থেকে লাফিয়ে যুবকের আত্মহত্যাচেষ্টা

হাওর বার্তা ডেস্কঃ বগুড়ায় প্রেমিকের সঙ্গে ঝগড়ার পর বিষপানে আত্মহত্যা করেন নাহিদা আকতার (১৮) নামে এক কলেজছাত্রী। এর পর প্রেমিকার লাশ দেখে শোকে হাসপাতালের ছাদ থেকে লাফিয়ে আত্মহত্যাচেষ্টা করেন এক যুবক। তার নাম জাকারিয়া হাসান (২৪)।

রোববার সন্ধ্যায় শহরের বৃন্দাবনপাড়ায় ছাত্রী নিবাসে আত্মহত্যা করেন প্রেমিকা। এর পর রাতে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালের চতুর্থতলা থেকে লাফিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন ওই যুবক।

আত্মহত্যাকারী প্রেমিকা নাহিদা খাতুন জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার রায়কালী গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য আকতার হোসেন বাবুর মেয়ে। তিনি শহরের বৃন্দাবনপাড়ায় সানজিদা ছাত্রী নিবাসে থেকে বগুড়া বিয়াম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজে প্রথমবর্ষে পড়তেন।

প্রেমিক জাকারিয়া হাসান কুষ্টিয়া সদরের দহকুলা গ্রামের রুহুল আমিনের ছেলে। এসএসসি পাস করার পর লেখাপড়া ছেড়ে দেন।

পুলিশ ও স্বজনরা জানান, কিছু দিন আগে ফেসবুকের মাধ্যমে তাদের পরিচয় ও একপর্যায়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। জাকারিয়া রোববার কুষ্টিয়া থেকে বগুড়ায় এসে শহরের কোথাও প্রেমিকা নাহিদার সঙ্গে দেখা করেন। এ সময় কোনো বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। ছাত্রী নিবাসে ফিরে নাহিদা ক্ষোভে বিষাক্ত গ্যাস ট্যাবলেট সেবন করেন। অসুস্থ হয়ে পড়লে অন্য ছাত্রী ও বান্ধবীরা তাকে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে নিয়ে যান।

সেখানে নাহিদার স্বজনরা ও প্রেমিক জাকারিয়া যান। ভর্তির কিছুক্ষণ পর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে নাহিদা মারা যান। তার মৃত্যুতে প্রেমিক জাকারিয়া শোকে বিহ্বল হয়ে পড়েন। একপর্যায়ে রাত সাড়ে ৯টার দিকে তিনি হাসপাতালের চতুর্থতলা থেকে নিচে লাফ দেন।

খবর পেয়ে মেডিকেল পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা তাকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে দেন। তার এক পায়ের হাঁটু ভেঙে গেছে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম হয়েছে।

নাহিদার বাবা আকতার হোসেন জানান, মেয়ে চার দিন আগে বাড়ি থেকে বগুড়ার মেসে যায়। তার সঙ্গে কারও প্রেমের সম্পর্ক ছিল কিনা সে সম্পর্কে তার কিছু জানা নেই।

সদর থানার ওসি সেলিম রেজা জানান, প্রেমিকের সঙ্গে ঝগড়া হলে প্রেমিকা নাহিদা আকতার বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন। আর শোকাহত প্রেমিক হাসপাতালের চতুর্থতলা থেকে লাফ দিলে তার পা ভেঙে গেছে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত পেয়েছে। ছাত্রীর মরদেহ হাসপাতাল মর্গে ও প্রেমিককে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তবে এ ব্যাপারে ছাত্রীর পক্ষে অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর