,

1627047969_01-Daily-Inqilab

আফগানিস্তানে দফায় দফায় মার্কিন বিমান হামলা, ২৭ তালেবান নিহত

হাওর বার্তা ডেস্কঃ আফগান নিরাপত্তা বাহিনীকে সহযোগিতা করতে গত কয়েক দিনে মার্কিন সামরিক বাহিনী আফগানিস্তানে তালেবানের অবস্থান লক্ষ্য করে কয়েক দফা বিমান হামলা চালিয়েছে। মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগন স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার এ কথা জানিয়েছে।

বার্তা সংস্থা এএফপির বরাত দিয়ে ফ্রান্স ২৪ জানিয়েছ- সংঘাতপূর্ণ আফগানিস্তানের নিরাপত্তা পরিস্থিতির চরম অবনতি ঘটায় এবং মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহার করে নেওয়ার প্রক্রিয়া প্রায় শেষ হওয়ার মধ্যেই এসব বিমান হামলা চালানো হলো।

সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কিরবি বলেন, ‘গত কয়েক দিনে আফগান ন্যাশনাল ডিফেন্স অ্যান্ড সিকিউরিটি ফোর্সেস-কে (এএনডিএসএফ) সহযোগিতা করতে আমরা দেশটিতে বিমান হামলা চালিয়েছি।’ তবে এ ব্যাপারে বিস্তারিত কিছু বলা হয়নি।

এক সংবাদ সম্মেলনে জন কিরবি জানান, আফগানিস্তানের সেনাবাহিনীকে সহযোগিতা করতে এ রকম হামলা চলবে। তিনি আরও বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের আর্মি সেন্ট্রাল কমান্ড জেনারেল কেনেথ ম্যাকেঞ্জি এ বিমান হামলার বৈধতা দিয়েছেন।

প্রতিরক্ষা বাহিনীর এক কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস-কে (এপি) বলেন, মার্কিন সামরিক বাহিনী গত বুধবার এবং গতকাল বৃহস্পতিবার আফগান বাহিনীকে সহযোগিতায় চারবারের বেশি বিমান হামলা চালিয়েছে।

এপির প্রতিবেদনে বলা হয়, আফগান বাহিনীর কাছ থেকে তালেবানের দখলে নেওয়া সামরিক সরঞ্জামাদি লক্ষ্য করে কমপক্ষে দুই দফা বিমান হামলা চালানো হয়। এ ছাড়া তালেবানের বিভিন্ন অবস্থান লক্ষ্য করে আরও কয়েক দফা হামলা চালানো হয়েছে। আফগানিস্তানের দক্ষিণাঞ্চলীয় কান্দাহার প্রদেশে কমপক্ষে এক দফা বিমান হামলা চালানো হয়।

একই দিনে যুক্তরাষ্ট্রের জয়েন্ট চিফস অব স্টাফের চেয়ারম্যান জেনারেল মার্ক মিলে বলেন, তালেবান জঙ্গিরা আফগানিস্তানের ৪১৯টি জেলাকেন্দ্র দখল করে নিয়েছে।

এদিকে আফগান প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় শুক্রবার এক বিবৃতিতে জানায়, আফগানিস্তানের বিমানবাহিনীর হামলায় বৃহস্পতিবার রাতে ১৭ তালেবান যোদ্ধা নিহত হয়েছেন। এছাড়া কাপিসা প্রদেশের নিজরাব জেলায় অপর বিমান হামলায় নিহত হয়েছে তালেবানের ১০ জন।
তবে বিবৃতিতে তালেবানের অবস্থানে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান হামলার বিষয়ে কোনো মন্তব্য করা হয়নি। যদিও প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের দাবি প্রত্যাখ্যান করেছে তালেবান।

উল্লেখ্য, দেশটির হেলমান্দ, কাপিসা, কুন্দুজ, তাকার, বাদাখশান, লোগার, কান্দাহার এবং জাওজান প্রদেশের বিভিন্ন এলাকায় নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে তীব্র সংঘর্ষ হচ্ছে তালেবান যোদ্ধাদের। সংঘর্ষের মধ্যেই দেশের ২১৫ জেলার নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে সশস্ত্র গোষ্ঠীটি। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ স্থলবন্দরও রয়েছে।

সূত্র : এএফপি, এপি

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর