,

image-153451-1616074415bdjournal

নারী শ্রমিককে গাছে বেঁধে নির্যাতন, একজন গ্রেপ্তার

হাওর বার্তা ডেস্কঃ গাজীপুরের কালিয়াকৈরে এক নারীকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার বিকেলে কালিয়াকৈর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। এছাড়া ওই নির্যাতনের অভিযোগে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃত শিলা আক্তার (২৫) কিশোরগঞ্জের নিকলি থানার ছাতিরচর এলাকার জুনায়েদ মিয়ার স্ত্রী।

মামলার বরাত দিয়ে কালিয়াকৈর থানার ওসি মনোয়ার হোসেন চৌধুরী জানান, কিশোরগঞ্জের নিকলি থানার ছাতিরচর এলাকার ফজল মিয়া স্ত্রী-সন্তান নিয়ে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার সিনাবহ পশ্চিমপাড়া উন্দারটেক এলাকায় বন বিভাগের জমিতে বাড়ি নির্মাণ করে বসবাস করে আসছেন। কিন্তু ফজল মিয়ার সাথে পাশের বাড়ির জুনায়েদ মিয়ার অবৈধভাবে বনের জমিতে থাকা বসত-বাড়ির সীমানা দখলকে কেন্দ্র করে বিরোধ চলে আসছিলো।

‘এরই জের ধরে ১২ মার্চ বিকেলে ফজল মিয়ার স্ত্রী আয়েশার সঙ্গে পাশের বাড়ির জুনাইদের স্ত্রী শিলার ঝগড়া হয়। তাদের বাক-বিতণ্ডার এক পর্যায়ে জুনায়েদ ও তার স্ত্রী শিলা, সহযোগী নাসির মিয়া ও তার স্ত্রী সালেহা বেগম, আজিজ মিয়া, সাহেরা বেগম ও শহরবানুসহ আরো কয়েক মিলে ওই আয়েশাকে ধরে নিয়ে যায়। পরে তারা আয়েশাকে একটি আম গাছের সঙ্গে বেঁধে মারপিট করে।’

মামলার বরাতে ওসি আরও জানান, নির্যাতনের সময় আয়েশা বেগমের মেয়ে নুপুর আক্তার এগিয়ে গেলে তাকেও মারপিট করা হয়। এ সময় তাদের ডাক চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন এবং আয়েশাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন। পরে আয়েশা বেগম বাদী হয়ে ওইদিনই কালিয়াকৈর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

এদিকে এ ঘটনার পর গত বুধবার বিকালে স্থানীয় মৌচাক ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আব্দুল মান্নান সিকদার ও সিরাজ উদ্দিনসহ কয়েকজন মাতাব্বর বিষয়টি স্থানীয় ভাবে মীমাংসার জন্য শালিস বৈঠকে বসেন। বৈঠকে মাতাব্বররা জুনায়েদকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন। কিন্তু নির্যাতিতা আয়েশা তাদের বিচার মেনে নেননি। যার কারণে পরে মাতাব্বরগণ তাকে থানা-পুলিশের সহায়তা নিতে বলেন।

পরে আয়েশা বেগম বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে কালিয়াকৈর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে জুনায়েদ মিয়ার স্ত্রী শিলা আক্তারকে গ্রেপ্তার করে।

ভুক্তভোগী আয়েশা জানান, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে জুনায়েদ, নাসির উদ্দিন, আজিজ, সালেহা ও তাদের লোকজন তাকে আম গাছের সঙ্গে বেঁধে মারপিট করেছে। পরে আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল মান্নান জানান, অভিযোগ পাওয়ার পর স্থানীয়ভাবে বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু নির্যাতিত নারী বিচারে সস্তুষ্ট না হওয়ায় তাকে আইনের আশ্রয় নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

ওসি মনোয়ার হোসেন চৌধুরী আরও জানান, আয়েশা বেগমকে নির্যাতনের অভিযোগে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায় শিলা আক্তার নামের একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর