ঢাকা ০৪:০৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চলচ্চিত্রের নামে রুচিহীন যৌনতার মহড়া

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ১১:০৯:০৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ অক্টোবর ২০১৫
  • ৪৯৩ বার

স্বাধীন বাংলাদেশের চলচ্চিত্র শিল্প বলতে ১৯৭১ সালের পর নির্মিত চলচ্চিত্রকেই বোঝায়। আমাদের দেশের চলচ্চিত্রে অশ্লীলতা খুব কমই পাওয়া যায়। কিন্তু সম্প্রতি ভারতের সাথে পাল্লা দিতে গিয়ে এখন এই অশ্লীলতা আমাদের দেশের চলচ্চিত্রে ঢুকে পড়েছে। খোলামেলা দৃশ্যে অভিনয় করলেই নাকি নায়িকা সাহসী! অনেক নায়িকাকেই বলতে শোনা যায় ‘চরিত্রের প্রয়োজনে অভিনয়ে খোলামেলা হতে আপত্তি নেই।’ যদিও বিশ্লেষকরা বলেন, ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে টিকে থাকতে লাগে অভিনয় গুণ। খোলামেলা হলেই টিকে থাকা যায় না।

বরং অভিনয়ের প্রতি আস্থা কম থাকলে এ ধরনের কথা বলে অনেকেই আলোচনায় আসতে চান। ঢাকাই চলচ্চিত্রেও ইদানিং সাহসী হয়ে উঠার সেই প্রবণতা বেড়েছে।

১৬ অক্টোবর মুক্তি পেতে যাচ্ছে ওয়াজেদ আলী সুমন পরিচালিত ‘আজব প্রেম’। এরই মধ্যে বাপ্পী ও আঁচল অভিনীত সিনেমাটির বিরুদ্ধে অশ্লীলতার অভিযোগ উঠেছে। ইউটিউবে প্রকাশিত কিছু দৃশ্য এ অভিযোগের উৎস। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই বলছেন, এ সব দৃশ্য ঢাকাই চলচ্চিত্রের অশ্লীলতাকে ফের উস্কে দেবে।

তরুণ সংস্কৃতিকর্মী প্রসেনজিৎ রায় বলেন, “হলিউড-বলিউডের সিনেমায় গোসল কিংবা বিছানার দৃশ্য থাকে। কিন্তু সেগুলো উপস্থাপনটা ভাল লাগে। কিন্তু ‘আজব প্রেম’ সিনেমায় বাপ্পী-আঁচলকে যেভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে সেটাকে অশ্লীলতা ছাড়া কিছুই বলা যাবে না।”

সিনেমাটির ‘আজ দুচোখে’ শিরোনামের একটি গানে বেশ অন্তরঙ্গ অবস্থায় দেখা যায় আঁচল-বাপ্পীকে। সিনেমার চুম্বন দৃশ্য নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে খোদ সিনেমাপাড়ায়।

কেউ কেউ বলছেন অভিনয় গুণে এখনো সিনেমায় নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে পারেননি আঁচল। এরই মধ্যে বেশ কিছু সিনেমা মুক্তি পেলেও নায়িকা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতে পারেননি। তাই এবার খোলামেলা দৃশ্যে অভিনয় করে নিজেকে আলোচনায় রাখার কৌশল অবলম্বন করছেন।

নায়িকা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতে না পারলেও পারিশ্রমিক বেড়েছে আঁচলের। জানা গেছে, দেড় থেকে দুই লাখ টাকা

পারিশ্রমিক নিয়ে সিনেমায় অভিনয় করা আঁচল এখন সাত-আট লাখ টাকাও পারিশ্রমিক দাবি করছেন। এর জন্য পরিচালকের শর্ত অনুযায়ী খোলামেলা দৃশ্যে অভিনয়েও রাজি। তবে ‘মেন্টাল’ সিনেমার শুটিংয়ে থাইল্যান্ডে থাকায় এ বিষয়ে আঁচলের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

অন্যদিকে, পরিচালক ওয়াজেদ আলী সুমনকে রবিবার রাতে ফোন করলে জানান, মিটিংয়ে আছেন। সকালে ফোন করলে কথা বলবেন। কিন্তু সোমবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত কয়েকবার ফোন করলেও রিসিভ করেননি।

শুধু ‘আজব প্রেম’ নয়, অশ্লীলতার অভিয়োগ উঠেছে সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া সাইফ চন্দন পরিচালিত ‘ছেলেটি আবোল তাবোল মেয়েটি পাগল পাগল’ সিনেমাটির বিরুদ্ধেও। সিনেমাটির পোস্টারে নায়িকা আইরিন খোলামেলাভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সামিয়া আফরিন বলেন, “রাস্তায় ‘ছেলেটি আবোল তাবোল মেয়েটি পাগল পাগল’ সিনেমার যে পোস্টার দেখেছি তাতেই সিনেমাটি দেখার আগ্রহ চলে গেছে। বাংলাদেশের সামাজিক বাস্তবতাকে মেনে এ দেশের সিনেমা নির্মাণ হওয়া উচিত।”

সিনেমার প্রচারণায়ও দেখা গেছে বিতর্ক উস্কে দেওয়ার চালাকি। তন্ময় তানসেন পরিচালিত ‘রান আউট’ মুক্তি পাবে ১৬ অক্টোবর। এই সিনেমার পোস্টারে লেখা রয়েছে, ‘১৮+’। অথচ বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে গ্রেডিং সিস্টেম এখনো চালু হয়নি। ফলে এটাকেও প্রচারণার বাণিজ্যিক কৌশল বলে মনে করছেন অনেকে।

বলিউডের আদলে ঢাকাই চলচ্চিত্রে এখন জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে আইটেম গান। কেউ কেউ আইটেম গানে অভিনয় করেই সিনেমায় নায়িকার মর্যাদা পেয়ে যাচ্ছেন। ‘রান আউট’ সিনেমার আইটেম গানে নেচেছেন বিতর্কিত মডেল নায়লা নাঈম। সিনেমাটির পোস্টারে তাকেই রাখা হয়েছে সবার সামনে। আবার বেশিরভাগ সিনেমার আইটেম গানে নির্মাতাদের প্রথম পছন্দ বিপাশা কবির। তিনি খোলামেলা অভিনয়ে খুবই সাবলীল।

এ ছাড়া নায়িকারাও হর হামেশা সোশ্যাল মিডিয়ায় খোলামেলা ছবি পোস্ট করছেন। আইরিন, আঁচল, পরী মনি’সহ সমসাময়িক প্রায় সব নায়িকার খোলামেলা ছবি এখন ফেসবুকে পাওয়া যায়। এতে মন্তব্যের ঘরে কেউ কেউ মজা করে লিখছেন আমাদের নায়িকারা বেশ সাহসী হয়ে উঠছেন। আবার কারো মন্তব্য এভাবে চলতে থাকলে আমাদের সিনেমা সেই অশ্লীলতার যুগেই ফিরে যাবে।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

চলচ্চিত্রের নামে রুচিহীন যৌনতার মহড়া

আপডেট টাইম : ১১:০৯:০৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৩ অক্টোবর ২০১৫

স্বাধীন বাংলাদেশের চলচ্চিত্র শিল্প বলতে ১৯৭১ সালের পর নির্মিত চলচ্চিত্রকেই বোঝায়। আমাদের দেশের চলচ্চিত্রে অশ্লীলতা খুব কমই পাওয়া যায়। কিন্তু সম্প্রতি ভারতের সাথে পাল্লা দিতে গিয়ে এখন এই অশ্লীলতা আমাদের দেশের চলচ্চিত্রে ঢুকে পড়েছে। খোলামেলা দৃশ্যে অভিনয় করলেই নাকি নায়িকা সাহসী! অনেক নায়িকাকেই বলতে শোনা যায় ‘চরিত্রের প্রয়োজনে অভিনয়ে খোলামেলা হতে আপত্তি নেই।’ যদিও বিশ্লেষকরা বলেন, ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে টিকে থাকতে লাগে অভিনয় গুণ। খোলামেলা হলেই টিকে থাকা যায় না।

বরং অভিনয়ের প্রতি আস্থা কম থাকলে এ ধরনের কথা বলে অনেকেই আলোচনায় আসতে চান। ঢাকাই চলচ্চিত্রেও ইদানিং সাহসী হয়ে উঠার সেই প্রবণতা বেড়েছে।

১৬ অক্টোবর মুক্তি পেতে যাচ্ছে ওয়াজেদ আলী সুমন পরিচালিত ‘আজব প্রেম’। এরই মধ্যে বাপ্পী ও আঁচল অভিনীত সিনেমাটির বিরুদ্ধে অশ্লীলতার অভিযোগ উঠেছে। ইউটিউবে প্রকাশিত কিছু দৃশ্য এ অভিযোগের উৎস। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই বলছেন, এ সব দৃশ্য ঢাকাই চলচ্চিত্রের অশ্লীলতাকে ফের উস্কে দেবে।

তরুণ সংস্কৃতিকর্মী প্রসেনজিৎ রায় বলেন, “হলিউড-বলিউডের সিনেমায় গোসল কিংবা বিছানার দৃশ্য থাকে। কিন্তু সেগুলো উপস্থাপনটা ভাল লাগে। কিন্তু ‘আজব প্রেম’ সিনেমায় বাপ্পী-আঁচলকে যেভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে সেটাকে অশ্লীলতা ছাড়া কিছুই বলা যাবে না।”

সিনেমাটির ‘আজ দুচোখে’ শিরোনামের একটি গানে বেশ অন্তরঙ্গ অবস্থায় দেখা যায় আঁচল-বাপ্পীকে। সিনেমার চুম্বন দৃশ্য নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে খোদ সিনেমাপাড়ায়।

কেউ কেউ বলছেন অভিনয় গুণে এখনো সিনেমায় নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে পারেননি আঁচল। এরই মধ্যে বেশ কিছু সিনেমা মুক্তি পেলেও নায়িকা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতে পারেননি। তাই এবার খোলামেলা দৃশ্যে অভিনয় করে নিজেকে আলোচনায় রাখার কৌশল অবলম্বন করছেন।

নায়িকা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতে না পারলেও পারিশ্রমিক বেড়েছে আঁচলের। জানা গেছে, দেড় থেকে দুই লাখ টাকা

পারিশ্রমিক নিয়ে সিনেমায় অভিনয় করা আঁচল এখন সাত-আট লাখ টাকাও পারিশ্রমিক দাবি করছেন। এর জন্য পরিচালকের শর্ত অনুযায়ী খোলামেলা দৃশ্যে অভিনয়েও রাজি। তবে ‘মেন্টাল’ সিনেমার শুটিংয়ে থাইল্যান্ডে থাকায় এ বিষয়ে আঁচলের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

অন্যদিকে, পরিচালক ওয়াজেদ আলী সুমনকে রবিবার রাতে ফোন করলে জানান, মিটিংয়ে আছেন। সকালে ফোন করলে কথা বলবেন। কিন্তু সোমবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত কয়েকবার ফোন করলেও রিসিভ করেননি।

শুধু ‘আজব প্রেম’ নয়, অশ্লীলতার অভিয়োগ উঠেছে সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া সাইফ চন্দন পরিচালিত ‘ছেলেটি আবোল তাবোল মেয়েটি পাগল পাগল’ সিনেমাটির বিরুদ্ধেও। সিনেমাটির পোস্টারে নায়িকা আইরিন খোলামেলাভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সামিয়া আফরিন বলেন, “রাস্তায় ‘ছেলেটি আবোল তাবোল মেয়েটি পাগল পাগল’ সিনেমার যে পোস্টার দেখেছি তাতেই সিনেমাটি দেখার আগ্রহ চলে গেছে। বাংলাদেশের সামাজিক বাস্তবতাকে মেনে এ দেশের সিনেমা নির্মাণ হওয়া উচিত।”

সিনেমার প্রচারণায়ও দেখা গেছে বিতর্ক উস্কে দেওয়ার চালাকি। তন্ময় তানসেন পরিচালিত ‘রান আউট’ মুক্তি পাবে ১৬ অক্টোবর। এই সিনেমার পোস্টারে লেখা রয়েছে, ‘১৮+’। অথচ বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে গ্রেডিং সিস্টেম এখনো চালু হয়নি। ফলে এটাকেও প্রচারণার বাণিজ্যিক কৌশল বলে মনে করছেন অনেকে।

বলিউডের আদলে ঢাকাই চলচ্চিত্রে এখন জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে আইটেম গান। কেউ কেউ আইটেম গানে অভিনয় করেই সিনেমায় নায়িকার মর্যাদা পেয়ে যাচ্ছেন। ‘রান আউট’ সিনেমার আইটেম গানে নেচেছেন বিতর্কিত মডেল নায়লা নাঈম। সিনেমাটির পোস্টারে তাকেই রাখা হয়েছে সবার সামনে। আবার বেশিরভাগ সিনেমার আইটেম গানে নির্মাতাদের প্রথম পছন্দ বিপাশা কবির। তিনি খোলামেলা অভিনয়ে খুবই সাবলীল।

এ ছাড়া নায়িকারাও হর হামেশা সোশ্যাল মিডিয়ায় খোলামেলা ছবি পোস্ট করছেন। আইরিন, আঁচল, পরী মনি’সহ সমসাময়িক প্রায় সব নায়িকার খোলামেলা ছবি এখন ফেসবুকে পাওয়া যায়। এতে মন্তব্যের ঘরে কেউ কেউ মজা করে লিখছেন আমাদের নায়িকারা বেশ সাহসী হয়ে উঠছেন। আবার কারো মন্তব্য এভাবে চলতে থাকলে আমাদের সিনেমা সেই অশ্লীলতার যুগেই ফিরে যাবে।