ঢাকা ০৮:২৫ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দুই নেত্রীই ঈদ করছেন দেশের বাইরে

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ০৮:১৫:২৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫
  • ২২৫ বার

আসন্ন ঈদুল আযহায় দেশের বাইরে থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রী সংসদ দেয়া বক্তব্যে দেশবাসীকে আগাম ঈদ শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন। তাই প্রধানমন্ত্রী দেশে না থাকার বিষয়টি ইতিমধ্যে চুড়ান্ত হয়েছে। অন্যদিকে খালেদা জিয়া আগামী মঙ্গলবার রাতে লন্ডন যাচ্ছেন। লন্ডনে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে তিনি ঈদ করবেন বলে জানা গেছে। রবিবার রাতে দলের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে বৈঠকের পর খালেদার লন্ডন যাওয়ার ব্যাপারটি চুড়ান্ত হয়।
এদিকে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে ২৩ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রীর নিউইয়র্কের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়বেন বলে জানা গেছে। সংসদ অধিবেশনের সমাপনী বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী দেশবাসিকে আগাম ঈদ শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন। তাই প্রধানমন্ত্রী দেশে না থাকার বিষয়টি ইতিমধ্যে চূড়ান্ত হয়েছে।
গত ঈদুল ফিতরের আগে খালেদা জিয়ার লন্ডন যাওয়ার উদ্যোগ নিয়েছিলেন। কিন্তু রাজনৈতিক প্রতিবন্ধকতায় যাওয়া হয়নি। খালেদা জিয়া দেশবাসির কাছে দোয়া চেয়েছেন বলে জানান নজরুল ইসলাম। তিনি জানান, পবিত্র ঈদুল আজহার আগে খালেদা জিয়া দেশে নাও ফিরতে পারেন। নেতারা বিএনপি চেয়ারপারসনকে পরামর্শ দিয়েছেন তিনি যেন সেখানে তার পুত্র তারেক রহমানের পরিবারের সঙ্গে ঈদ করেই দেশে ফিরে আসেন। বৈঠকে দল পুনর্গঠনসহ সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে নজরুল ইসলাম জানান।
মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯ টায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া লন্ডনের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়বেন। তিনি এমিরেট এয়ারলাইন্সের (ফ্লাইট নম্বর-৫৮৫) একটি বিমানে ঢাকা ত্যাগ করবেন। বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া ইউং কর্মকর্মতা শামসুদ্দিন “িার আমাদের সময়.কমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও ব্যক্তিগত কর্মকর্তা আবদুস সাত্তার তার সঙ্গে যাচ্ছেন।
সূত্র জানায়, ৯ আগস্ট দল পুনর্গঠনের অংশ হিসেবে তৃণমূলে যে চিঠি দেয়া হয়েছে তা নিয়ে বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। খালেদা জিয়া দলের নেতাদের স্পষ্ট করে বলেছেন, কোনোভাবেই পকেট কমিটি মানা হবে না। সে কমিটি অনুমোদন দেয়া হবে না। বিগত আন্দোলন-সংগ্রামে যারা সক্রিয় ভূমিকা রেখেছেন তাদের কোনোভাবেই যেন কমিটি থেকে বাদ দেয়া না হয়। বৈঠকে উপস্থিত নেতারা দলে তরুণ নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠার ওপর গুরুত্ব দেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘের ৭০তম সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে চলতি মাসের ২৩ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্ক যাচ্ছেন। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ভিভিআইপি ফ্লাইটে তিনি সফর সঙ্গীদের নিয়ে নিউইয়র্কের উদ্দেশে রওনা হবেন। ওই দিন স্থানীয় সময় বিকাল সাড়ে ৩টায় প্রধানমন্ত্রী লন্ডন হিথ্রো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছাবেন। সেখানে কয়েক ঘণ্টা যাত্রাবিরতি শেষে তিনি অপর একটি ফ্লাইটে নিউইয়র্ক যাবেন।
প্রধানমন্ত্রী ২৫ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) সংক্রান্ত উচ্চ পর্যায়ের এক গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে অংশ নিবেন এবং বক্তব্য রাখবেন। জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনেও তিনি ভাষণ দিবেন। এছাড়া জাতিসংঘের পরিবেশ উন্নয়ন কর্মসূচি বিষয়ক এক বৈঠকেও প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ দেয়ার কথা রয়েছে।
জাতিসংঘের পলিসি লিডারশিপ ক্যাটাগরিতে পরিবেশ পুরস্কার চ্যাম্পিয়ন্স অব দ্য আর্থে ভূষিত হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরিবেশ সংরক্ষণে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় তিনি এ পুরস্কার পেয়েছেন।
সোমবার তার সহকারি প্রেস সচিব আসিফ কবীর এ তথ্য জানিয়েছেন। নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশন চলাকালে প্রধানমন্ত্রীর হাতে এ পুরস্কার তুলে দেয়া হবে। ২৭ সেপ্টেম্বর এ পুরস্কার হস্তান্তরের কথা রয়েছে। আর ২৫ সেপ্টেম্বর ঈদুল আযহা উদযাপিত হবার কথা। সেই হিসেবে প্রধানমন্ত্রী দেশের বাইরে ঈদ উদযাপনের বিষয়টি অনেকটা নিশ্চিত।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

দুই নেত্রীই ঈদ করছেন দেশের বাইরে

আপডেট টাইম : ০৮:১৫:২৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫

আসন্ন ঈদুল আযহায় দেশের বাইরে থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রী সংসদ দেয়া বক্তব্যে দেশবাসীকে আগাম ঈদ শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন। তাই প্রধানমন্ত্রী দেশে না থাকার বিষয়টি ইতিমধ্যে চুড়ান্ত হয়েছে। অন্যদিকে খালেদা জিয়া আগামী মঙ্গলবার রাতে লন্ডন যাচ্ছেন। লন্ডনে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে তিনি ঈদ করবেন বলে জানা গেছে। রবিবার রাতে দলের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে বৈঠকের পর খালেদার লন্ডন যাওয়ার ব্যাপারটি চুড়ান্ত হয়।
এদিকে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে ২৩ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রীর নিউইয়র্কের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়বেন বলে জানা গেছে। সংসদ অধিবেশনের সমাপনী বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী দেশবাসিকে আগাম ঈদ শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন। তাই প্রধানমন্ত্রী দেশে না থাকার বিষয়টি ইতিমধ্যে চূড়ান্ত হয়েছে।
গত ঈদুল ফিতরের আগে খালেদা জিয়ার লন্ডন যাওয়ার উদ্যোগ নিয়েছিলেন। কিন্তু রাজনৈতিক প্রতিবন্ধকতায় যাওয়া হয়নি। খালেদা জিয়া দেশবাসির কাছে দোয়া চেয়েছেন বলে জানান নজরুল ইসলাম। তিনি জানান, পবিত্র ঈদুল আজহার আগে খালেদা জিয়া দেশে নাও ফিরতে পারেন। নেতারা বিএনপি চেয়ারপারসনকে পরামর্শ দিয়েছেন তিনি যেন সেখানে তার পুত্র তারেক রহমানের পরিবারের সঙ্গে ঈদ করেই দেশে ফিরে আসেন। বৈঠকে দল পুনর্গঠনসহ সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে নজরুল ইসলাম জানান।
মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯ টায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া লন্ডনের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়বেন। তিনি এমিরেট এয়ারলাইন্সের (ফ্লাইট নম্বর-৫৮৫) একটি বিমানে ঢাকা ত্যাগ করবেন। বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া ইউং কর্মকর্মতা শামসুদ্দিন “িার আমাদের সময়.কমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও ব্যক্তিগত কর্মকর্তা আবদুস সাত্তার তার সঙ্গে যাচ্ছেন।
সূত্র জানায়, ৯ আগস্ট দল পুনর্গঠনের অংশ হিসেবে তৃণমূলে যে চিঠি দেয়া হয়েছে তা নিয়ে বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। খালেদা জিয়া দলের নেতাদের স্পষ্ট করে বলেছেন, কোনোভাবেই পকেট কমিটি মানা হবে না। সে কমিটি অনুমোদন দেয়া হবে না। বিগত আন্দোলন-সংগ্রামে যারা সক্রিয় ভূমিকা রেখেছেন তাদের কোনোভাবেই যেন কমিটি থেকে বাদ দেয়া না হয়। বৈঠকে উপস্থিত নেতারা দলে তরুণ নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠার ওপর গুরুত্ব দেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘের ৭০তম সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে চলতি মাসের ২৩ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্ক যাচ্ছেন। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ভিভিআইপি ফ্লাইটে তিনি সফর সঙ্গীদের নিয়ে নিউইয়র্কের উদ্দেশে রওনা হবেন। ওই দিন স্থানীয় সময় বিকাল সাড়ে ৩টায় প্রধানমন্ত্রী লন্ডন হিথ্রো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছাবেন। সেখানে কয়েক ঘণ্টা যাত্রাবিরতি শেষে তিনি অপর একটি ফ্লাইটে নিউইয়র্ক যাবেন।
প্রধানমন্ত্রী ২৫ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) সংক্রান্ত উচ্চ পর্যায়ের এক গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে অংশ নিবেন এবং বক্তব্য রাখবেন। জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনেও তিনি ভাষণ দিবেন। এছাড়া জাতিসংঘের পরিবেশ উন্নয়ন কর্মসূচি বিষয়ক এক বৈঠকেও প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ দেয়ার কথা রয়েছে।
জাতিসংঘের পলিসি লিডারশিপ ক্যাটাগরিতে পরিবেশ পুরস্কার চ্যাম্পিয়ন্স অব দ্য আর্থে ভূষিত হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরিবেশ সংরক্ষণে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় তিনি এ পুরস্কার পেয়েছেন।
সোমবার তার সহকারি প্রেস সচিব আসিফ কবীর এ তথ্য জানিয়েছেন। নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশন চলাকালে প্রধানমন্ত্রীর হাতে এ পুরস্কার তুলে দেয়া হবে। ২৭ সেপ্টেম্বর এ পুরস্কার হস্তান্তরের কথা রয়েছে। আর ২৫ সেপ্টেম্বর ঈদুল আযহা উদযাপিত হবার কথা। সেই হিসেবে প্রধানমন্ত্রী দেশের বাইরে ঈদ উদযাপনের বিষয়টি অনেকটা নিশ্চিত।