ঢাকা ১১:০২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইসলামের দিকে ঝুঁকে পড়ছে নাইজেরিয়ার মানুষ

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ০১:১৭:২৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৫
  • ৫৭৬ বার

নাইজেরিয়ার খৃস্টান অধ্যুষিত অঞ্চলে একসময় মনে হতো ইসলামের একত্ববাদ কখনো প্রবেশ করতে পারবে না। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে পরিস্থিতি পুরোপুরিই পাল্টে গেছে। ক্রমবর্ধমান হারে খৃস্টানরা ইসলাম গ্রহণ করছে।

চলতি বছরের প্রথম দিকে একজন খ্রিষ্টান রাজা এবং এক খ্রিষ্টান যাজকের মেয়ে তাদের ধর্ম ত্যাগ করে ইসলামে দীক্ষিত হন।

ধর্মান্তরিত মেয়েটি আয়েশা নাম ধারণ করেন। তার ইসলাম গ্রহণের ব্যাপারে বিতর্কের সৃষ্টি হয। নাইজেরিয়ার খৃস্টান অধ্যুষিত অঞ্চলে একসময় মনে হতো ইসলামের একত্ববাদ কখনো প্রবেশ করতে পারবে না। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে পরিস্থিতি পুরোপুরিই পাল্টে গেছে। ক্রমবর্ধমান হারে খৃস্টানরা ইসলাম গ্রহণ করছে।

এখানকার নওমুসলিমরা বলেন, ইসলামকে বলা হয় সন্ত্রাসবাদের ধর্ম। কিন্তু আমরা পবিত্র কুরআনে এমন আয়াত খুঁজেছি যেগুলো মানুষকে সন্ত্রাসবাদে অনুপ্রাণিত করে। কিন্তু তা কোথাও খুঁজে পাইনি।

বরং এমন আয়াত পেয়েছি যেখানে বলা হয়েছে, কোনো কারণ ছাড়া মানুষ হত্যা মানে সমগ্র মানব জাতিকে হত্যা করার সমান অপরাধ। ইসলাম কোনো মানুষকে ঘৃণা করতে শেখায় না। বরং বাস্তব সত্য হচ্ছে, মুসলমানদের ন্যায়বিচারকে সমুন্নত রাখতে হবে। এমনকি তা যদি নিজের আত্মীয়-স্বজনদের বিরুদ্ধেও যায়। ইসলামের এই আদর্শ আমাকে এই ধর্ম গ্রহণে অনুপ্রাণিত করেছে।

নাইজেরিয়ার ইসলামিক স্টোর ফর পিস অ্যান্ড রিসার্চের জাস্টিস আমান নাসির বলেন, ইসলাম গ্রহণের এই ধারা অব্যাহত থাকলে নাইজেরিয়ার খ্রিষ্টান অধ্যুষিত অঞ্চল একদিন ইসলামের বলয়ে চলে আসবে।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

ইসলামের দিকে ঝুঁকে পড়ছে নাইজেরিয়ার মানুষ

আপডেট টাইম : ০১:১৭:২৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৫

নাইজেরিয়ার খৃস্টান অধ্যুষিত অঞ্চলে একসময় মনে হতো ইসলামের একত্ববাদ কখনো প্রবেশ করতে পারবে না। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে পরিস্থিতি পুরোপুরিই পাল্টে গেছে। ক্রমবর্ধমান হারে খৃস্টানরা ইসলাম গ্রহণ করছে।

চলতি বছরের প্রথম দিকে একজন খ্রিষ্টান রাজা এবং এক খ্রিষ্টান যাজকের মেয়ে তাদের ধর্ম ত্যাগ করে ইসলামে দীক্ষিত হন।

ধর্মান্তরিত মেয়েটি আয়েশা নাম ধারণ করেন। তার ইসলাম গ্রহণের ব্যাপারে বিতর্কের সৃষ্টি হয। নাইজেরিয়ার খৃস্টান অধ্যুষিত অঞ্চলে একসময় মনে হতো ইসলামের একত্ববাদ কখনো প্রবেশ করতে পারবে না। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে পরিস্থিতি পুরোপুরিই পাল্টে গেছে। ক্রমবর্ধমান হারে খৃস্টানরা ইসলাম গ্রহণ করছে।

এখানকার নওমুসলিমরা বলেন, ইসলামকে বলা হয় সন্ত্রাসবাদের ধর্ম। কিন্তু আমরা পবিত্র কুরআনে এমন আয়াত খুঁজেছি যেগুলো মানুষকে সন্ত্রাসবাদে অনুপ্রাণিত করে। কিন্তু তা কোথাও খুঁজে পাইনি।

বরং এমন আয়াত পেয়েছি যেখানে বলা হয়েছে, কোনো কারণ ছাড়া মানুষ হত্যা মানে সমগ্র মানব জাতিকে হত্যা করার সমান অপরাধ। ইসলাম কোনো মানুষকে ঘৃণা করতে শেখায় না। বরং বাস্তব সত্য হচ্ছে, মুসলমানদের ন্যায়বিচারকে সমুন্নত রাখতে হবে। এমনকি তা যদি নিজের আত্মীয়-স্বজনদের বিরুদ্ধেও যায়। ইসলামের এই আদর্শ আমাকে এই ধর্ম গ্রহণে অনুপ্রাণিত করেছে।

নাইজেরিয়ার ইসলামিক স্টোর ফর পিস অ্যান্ড রিসার্চের জাস্টিস আমান নাসির বলেন, ইসলাম গ্রহণের এই ধারা অব্যাহত থাকলে নাইজেরিয়ার খ্রিষ্টান অধ্যুষিত অঞ্চল একদিন ইসলামের বলয়ে চলে আসবে।