,

নেত্রকোণার মোহনগঞ্জে চাঞ্চল্যকর রাজীব হত্যার রহস্য উন্মোচন করেছে পিবিআই

বিজয় দাস, নেত্রকোনা প্রতিনিধিঃ দেড় বছর আগে নেত্রকোণার মোহনগঞ্জে রেজাউল করিম রাজিব হত্যার রহস্য উন্মোচনের দাবি করে পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) বলেছে মাদক ব্যবসায় সহযোগিতা না করায় সাড়ে চার হাজার টাকার বিনিময়ে ভাড়াটিয়া খুনি দিয়ে হত্যা করে মাদক কারবারি।

নেত্রকোণা বিচারিক আদালতে দেয়া জবানবন্দির বরাতে চাঞ্চল্যকর রাজীব খুনের দেড় বছরের মাথায় এই রহস্য উন্মোচনের কথা জানায় জেলা পিবিআই। জেলা পিবিআইয়ের কার্যালয়ে এই তথ্য জানান, জেলা পিবিআইয়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাহীনুর কবির। এ সময় জেলা পিবিআইয়ের পুলিশ কর্মকর্তা অভি রঞ্জন দেব, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মোহাম্মদ জাকির হোসেন উপিস্থিত ছিলেন ।

নিহত রাজীব (২২) মোহনগঞ্জ পৌরসভার দেওথান এলাকার বাচ্চু মিয়ার ছেলে। ভাড়ায় মটরসাইকেল চালাতেন তিনি। গত বছরের ৫ মে রাত ১০টার দিকে মটরসাইকেলে ভাড়ায় যাত্রী নিয়ে মোহনগঞ্জ থেকে আদর্শনগরের উদ্দেশ্যে রওনা হন রাজীব। এরপর আর তার খোঁজ মেলেনি। ৭ মে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ভাটিয়া গ্রামের পুকুরপারে মাটিচাপা বস্তা দেখে পুলিশে খবর দেয় স্থানীয়রা। পুলিশ মাটি সরিয়ে সিমেন্টের বস্তায় ভরা লাশ উদ্ধার করে মোহনগঞ্জ থানা পুলিশ।সেই থেকে পিবিআই এই খুনের রহস্য উন্মোচনে ছায়া তদন্ত শুরু করে।

 ঘটনার দুইদিন পরই ৯ মে নিহত রাজীবের বাবা মো.বাচ্চু মিয়া মোহনগঞ্জ থানায় সন্দেহজনক ১২ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।শুরুতে এ মামলার তদন্ত করে মোহনগঞ্জ থানা পুলিশ। পরবর্তীতে পিবিআই মামলার তদন্তভার গ্রহণ করে। পিবিআই জানায়, এই খুনের সাথে ৮ জন জড়িত। এর মধ্যে চার জনকে তারা গ্রেপ্তার করেছে।
 গ্রেপ্তার চারজন হচ্ছেন, মোহনগঞ্জের হাটনাইয়া গ্রামের দেলোয়ার হোসেন দিলু (৩৭), মোঃমাহবুব (২১), মোঃযতন মিয়া (৪২), ও ময়মনসিংহের তারাকান্দার নলদীঘি (পূর্বপাড়া) সিরাজুল। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাহীনুর কবির বলেন, রাজীবের গলায় পেচানো শার্টের সূত্র ধরে তদন্ত কাজ এগিয়ে যায়। শার্টের মালিককে খুজে ধরে তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে বাকিদের গ্রেপ্তার করা হয়।
 জিজ্ঞাসাবাদে এই হত্যা সংঘটনের পুরো বিয়য়টি তারা জানায়। হাটনাইয়া গ্রামের মাহবুব ও আবুল হোসেন তাদের মাদক ব্যবসার ইয়াবা মোটরসাইকেলে আনা নেয়া করার জন্যে রাজীবকে বললে তাতে রাজীব রাজি হয়নি। এই কারণে তারা ঢাকা থেকে বাড়িতে আসা হত্যা ও অস্ত্রের একাধিক মামলার আসামী দিলুকে সাড়ে চার হাজার টাকায় রাজীবকে হত্যার জন্যে ভাড়া করেন।পরিকল্পনা অনুয়ায়ী ২০০ টাকায় রাজীবের মোটরসাইকেল ভাড়া করে একটি মৎস্য খামারে নিয়ে ৮ জনে মিলে রাজীবকে হত্যা করে।
 মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জাকির হোসেন বলেন, ৩১ অক্টোবর ঢাকার কামরাঙ্গিরচর এলাকা থেকে ভাড়াটিয়া খুনি দিলুকে গ্রেপ্তার করা হয়। সেখানে তিনি ছদ্দবেশে রিকসা চালাতেন। দিলু আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়ে চাঞ্চল্যকর এই হত্যা সংঘটনের পুরোটা খুলে বলেছেন। বাকিদের ধরতে অভিযান চালানো হচ্ছে বলে জানান, তিনি।
Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর