,

১০ ডিসেম্বর বিএনপির আলটিমেটাম, পাত্তা দিচ্ছে না আওয়ামী লীগ

হাওর বার্তা ডেস্কঃ ১০ই ডিসেম্বরের পর শেখ হাসিনার কথায় আর দেশ চলবে না, দেশ চলবে খালেদা জিয়ার কথায়’-বিএনপি নেতা আমান উল্লাহ আমানের এমন বক্তব্য পাত্তা দিচ্ছে না ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। প্রতিটি বিভাগে সমাবেশের পর আগামী ১০ ডিসেম্বর ঢাকায় মহাসমাবেশ করবে বিএনপি। বিএনপি নেতা আমান উল্লাহ আমানের কথা পাত্তা না দিলেও ১০ ডিসেম্বরের মহাসমাবেশ নিয়ে সতর্ক অবস্থানে থাকবে আওয়ামী লীগ। বিএনপি দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করলে জনগণকে নিয়ে প্রতিরোধের জন্য আওয়ামী লীগও প্রস্তুত রয়েছে।

ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের দাবি, সরকার পতনে বিএনপির এক দফা আন্দোলনের হুঁশিয়ারিতে নতুনত্ব কিছু নেই। ১০ ডিসেম্বরের পর খালেদা জিয়ার কথায় দেশ চলবে- এমন ঘোষণা বাস্তবে কোনো ধরনের ভিত্তিই নেই। ১৫ বছর ধরে ক্ষমতার বাইরে থেকে হতাশায় জর্জরিত নেতাকর্মীদের মনোবল চাঙা রাখতেই এমন কথা বলছেন বিএনপি নেতারা। আওয়ামী লীগ কোনো ভুঁইফোঁড় সংগঠন নয়। কোনো কচুপাতার পানি নয় যে ধাক্কা দিলে টলমল করে পড়ে যাবে। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বিভিন্ন সভা-সমাবেশে বলেছেন, গত একযুগেরও বেশি সময় ধরে বিএনপি নেতারা আন্দোলনে সরকারের পতন হবে’- এমন বক্তব্য দিয়ে তাদের হতাশগ্রস্ত নেতাকর্মীকে চাঙা করতে চাইছেন।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফরউল্লাহ বলেন, বিএনপির এমন হুমকি ধমকি অতীতেও শোনা গেছে। এতে গুরুত্ব দেয়ার কিছু নেই। আওয়ামী লীগ এগুলোতে ভীতও নয়। এরপরও আন্দোলন ও সরকার পতনের নামে দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির কোনো অপচেষ্টা হলে প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী থেকেই কঠোর পদক্ষেপ নেয়া হবে। আওয়ামী লীগও রাজপথে থেকেই এর মোকাবিলা করবে।

আওয়ামী লীগের আরেক সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রহমান বলেন, খালেদা জিয়ার কথা তো তার সন্তান তারেক রহমানই শোনে না। তাহলে উনার কথা কীভাবে দেশের মানুষ শুনবে। এসব হুংকার দিয়ে কোনো লাভ হবে না। বিএনপি কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা করলে জনগণই মোকাবিলা করবে।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, বিএনপি নেতারা ১০ ডিসেম্বরের স্বপ্ন দেখছেন। ১০ ডিসেম্বর বলে কিছু নেই। আওয়ামী লীগ কোনো ভূঁইফোড় সংগঠন নয়। কোনো কচুপাতার পানি নয় যে, ধাক্কা দিলে টলমল করে পড়ে যাবে। আওয়ামী লীগ জাতির পিতার হাতে গড়া দল। ৭৩ বছরের আওয়ামী লীগের শেকড় বাংলার মাটির অনেক গভীরে। আওয়ামী লীগ সরকারের পতন ঘটানোর শক্তি বিএনপি বা কারো নেই।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘১০ ডিসেম্বরের পর খালেদার নির্দেশে দেশ চলবে’- বিএনপি নেতা আমান উল্লাহ আমান স্বপ্ন দেখে এমন কথা বলেছেন। তিনি হয়তো এ ধরনের কিছু একটা স্বপ্নে দেখেছেন, তখন তিনি বলে ফেলেছেন। খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কৃপায় কারাগারের বাইরে আছেন। আমান সাহেবরা যদি এমন উল্টাপাল্টা স্বপ্ন দেখতে থাকেন, তাহলে সরকারকে ভাবতে হবে প্রধানমন্ত্রী যে কৃপা বা বদান্যতা দেখিয়েছেন সেটি আদৌ দেখানো প্রয়োজন কি না, নোকি তাকে কারাগারে পাঠাতে হবে।

আওয়ামী লীগের আরেক যুগা সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, বিএনপির আদর্শ হলো পাকিস্তানি আদর্শ। তারা সবসময় দেশের গণতন্ত্রকে হত্যা করতে চায়। এখনও তারা তাদের বিষদাঁত বের করে দেশকে ধ্বংস করতে চায়। তারা ১০ ডিসেম্বর নিয়ে আমাদের ভয় দেখায়। আমাদের ভয় দেখিয়ে লাভ নেই। আমরা কোনো দিন তাদের ভয় পাইনি, সামনেও পাব না।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম বলেন, আগামী ১০ ডিসেম্বর বিএনপি-জামায়াতকে পাকিস্তান পাঠিয়ে দেয়া হবে। আগামী ১০ ডিসেম্বর ঢাকা মহানগর দক্ষিণের ২৪টি থানার নেতাকর্মীরা একসঙ্গে মাঠে নামলে বিএনপি-জামায়াতের ষড়যন্ত্রকারীরা পালিয়ে পাকিস্তান চলে যেতে বাধ্য হবে।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর