,

IMG_20210923_230844

আপনার আমার সন্তান কার সঙ্গে মিশছে, খেয়াল রাখুন: আইজিপি

হাওর বার্তা ডেস্কঃ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘বর্তমানে কিশোর গ্যাং বিশাল চ্যালেঞ্জ তৈরি করেছে। আইনি বাধ্যবাধকতার কারণে তাদের বিরুদ্ধে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়াও যাচ্ছে না। কিশোর অপরাধ দমনে সবার আগে আমরা যারা অভিভাবক আছি সবাই এগিয়ে আসতে হবে।’

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর মধুবাগে আসাদুজ্জামান কমপ্লেক্সে ‘সবার হোক একটাই পণ, কিশোর অপরাধ করব দমন’ শীর্ষক জনসচেতনতামূলক প্রচার কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আইজিপি বলেন, ‘তিন বছর ধরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কিশোর গ্যাং বা কিশোর অপরাধীদের বিরুদ্ধে জোরালোভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তবে আইনি বাধ্যবাধকতার কারণে আমরা অনেক ক্ষেত্রেই এসব অপরাধীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারছি না। সংসদে নতুন নতুন আইন প্রণয়ন হচ্ছে। আদালত অনেক নির্দেশনা দিচ্ছেন। কিশোর আইনও হালনাগাদ হয়েছে। সে হিসেবে একজন মানুষ ১৮ বছর বয়স পর্যন্ত শিশু হিসেবে গণ্য হয়। কিন্তু বর্তমানে দেশে আইন পরিবর্তন করার কারণে যেটা হয়েছে, যুবককেও শিশু হিসেবে গণ্য করা হয়। ফলে কিশোর গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া যাচ্ছে না। আবার বর্তমান আইন অনুযায়ী কিশোর অপরাধীদের গ্রেপ্তার করা যায় না। তাদের আটক করে পাঠাতে হয় সংশোধনাগারে। তারপরও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কাজ করছে।’

অভিভাবকদের উদ্দেশে ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘সবার আগে সন্তানের জন্য বাবা-মায়ের দায়িত্ব আছে। তারা কী করে, কোথায় যায়, কার সঙ্গে মেশে—এগুলো দেখা প্রতিটি পরিবারের দায়িত্ব। আশা করি, তারা সেভাবে সন্তানদের দেখভাল করবেন। কোনো অভিভাবক যদি তার সন্তানের আচার-আচরণ, কথাবার্তা কিংবা চালচলনে কিশোর গ্যাংয়ের সংশ্লিষ্টতা বুঝতে পারেন, তাহলে সংশ্লিষ্ট থানাকে জানালে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব‌্যে র‌্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘নানা অপরাধে জড়িত থাকার অভিযোগে সারা দেশে আড়াই শতাধিক কিশোরকে আটক করা হয়েছে। কিশোর গ্যাং যেন বিস্তার লাভ করতে না পারে, সেজন্য সার্বক্ষণিক কাজ করছে একটি বিশেষ সেল।’

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর