,

03

ক্রিকেটের অভিজ্ঞ খেলোয়াড় হিসেবে এমন করা উচিত হয়নি

হাওর বার্তা ডেস্কঃ ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের (ডিপিএল) ম্যাচ চলাকালীন অ-খেলোয়াড়সুলভ অসদাচরণের জন্য ক্ষমা চেয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। শুক্রবার (১১ জুন) সন্ধ্যায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে দেওয়া এক পোস্টের মাধ্যমে তিনি ভবিষ্যতে এমন ভুল করবেন না বলেও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

এর আগে শুক্রবার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আবাহনীর বিপক্ষে খেলতে নামে সাকিবের মোহামেডান। ম্যাচ চলাকালীন বেশ কয়েকবার অ-খেলোয়াড়সুলভ আচরণ করেন তিনি। যা নিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ও ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিস (সিসিডিএম) ভার্চ্যুয়ালি এক শুনানির আয়োজন করে। সিসিডিএম চেয়ারম্যান কাজী ইনাম আহমেদ জানিয়েছেন, ম্যাচ রেফারিদের রিপোর্টের উপর ভিত্তি করে সাকিবের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 ফেসবুক পোস্টে সাকিব বলেন, প্রিয় ভক্ত এবং সমর্থকরা, মাঠে মেজাজ হারানোর জন্য আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত। একজন অভিজ্ঞ খেলোয়াড় হিসেবে আমার এমনটা করা উচিত হয়নি। কিন্তু মাঝেমধ্যে দুর্ভাগ্যবশত সবকিছুর বিরুদ্ধে গিয়ে এটা হয়ে থাকে।

দল, ম্যানেজমেন্ট, টুর্নামেন্ট কর্তৃপক্ষ এবং আয়োজক কমিটির নিকট ক্ষমা প্রার্থনা করছি। আশা করছি, ভবিষ্যতে এমন ঘটনা আর হবে না। সবাইকে ধন্যবাদ এবং ভালোবাসা, যোগ করেন তিনি।

No description available.

প্রথম ঘটনা

ম্যাচের পঞ্চম ওভারে বল করছিলেন মোহামেডানের অধিনায়ক সাকিব। শেষ বলে স্ট্রাইকে ছিলেন আবাহনীর দলপতি মুশফিকুর রহিম। সাকিব এলবিডব্লিউর আবেদন করলেও আম্পায়ার ইমরান পারভেজ আউট দেননি। মুহূর্তেই ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা যায় সাকিবকে। স্ট্যাম্পে লাথি দিয়ে আম্পায়ারের সঙ্গে কথা বলতে থাকেন তিনি।

ঘটনা দুই

ষষ্ঠ ওভারের পঞ্চম বল পর্যন্ত আবাহনীর সংগ্রহ ছিল ৩ উইকেটে ৩১ রান। আকাশ ছিল মেঘলা। খেলা থামিয়ে মাঠকর্মীদের পিচ ঢাকার জন্য নির্দেশ দেন আম্পায়ার। ঠিক ওমন সময় সাকিব আবারও চড়াও হন। দৌড়ে এসে স্ট্যাম্প উপড়ে ফেলেন তিনি। তার পর রাগ দেখিয়ে মাঠ থেকে বের হয়ে আসেন।

No description available.

তৃতীয় ঘটনা

বৃষ্টি শুরু হচ্ছিল। সাকিবরা মাঠ থেকে বের হওয়ার সময় আবাহনীর কোচ ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন সাকিবের দিকে তেড়ে আসতে থাকেন। সাকিবও দূর থেকে তার সঙ্গে কথা বলতে থাকেন। সাকিবের পাশে থাকা টিম ম্যানেজমেন্টের লোক তাকে ধরে রাখেন। অন্যদিকে সুজনকে মোহামেডানের খেলোয়াড় শামসুর রহমান শুভ ধরে থাকেন।

সুজন ও সাকিবের বিষয়টির অবশ্য মীমাংসা হয়েছে বলে জানান আবাহনীর ম্যানেজার মাসুদ ইকবাল মামুন।

সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ঘটনার পর সাকিব এসেছিলেন আমাদের ড্রেসিংরুমে। এই ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়েছেন তিনি। সেখানে খালেদ মাহমুদ সুজনও ছিলেন। বিষয়টি মীমাংসা হয়ে গেছে। পরে দুজন বুক মিলিয়েছেন।

ইত্তেফাক

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর