ঢাকা ১১:৩৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভূমিকম্প ঝুঁকিতে থাকা শহরের মানচিত্র তৈরী করা হয়েছে

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ০৮:১৬:০৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০১৫
  • ৩২৩ বার

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, বীরবিক্রম, এমপি বলেছেন, সরকার ভূমিকম্প ঝুঁকিতে থাকা ৯টি বড় শহরের ঝুঁকি নিরূপন ও ঝুঁকি মানচিত্র তৈরী করেছে। শহরগুলো হল- ঢাকা, সিলেট, চট্রগ্রাম, ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল, বগুড়া, রংপুর, রাজশাহী ও দিনাজপুর। এসব শহরগুলোর ভূমিকম্প প্রবণতা, মাটির গুনাগুন, ভবন করার শর্তাবলী, ক্ষমতা ও উপযুগিতা ইত্যাদি পরীক্ষা করা হবে।

তিনি আজ রাজধানীর খামারবাড়িতে সমন্বিত প্রাকৃতিক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রোগ্রাম (সিডিএমপি) আয়োজিত “দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাস ও জলবায়ু পরিবর্তন অভিযোজন” শীর্ষক জাতীয় কর্মশালা ও জ্ঞান মেলার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানান।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ শাহ কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নরওয়ে দুতাবাসের উপ-প্রধান হেনরিক উইডথ (ঐবহড়ৎরপ ডরফঃয) ইউএনডিপির কান্ট্রি ডিরেক্টও পলিন টেমেসিসি (চড়ষরহ ঞবসবংরংর), দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ রিয়াজ আহমেদ, সিডিএমপির এনপিডি আব্দুল কাইয়ুম অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।

মন্ত্রী বলেন নগর ঝুঁকি মোকাবিলায় সরকার দক্ষ জনবল তৈরীতে ৬২ হাজার নগর স্বেচ্ছাসেবককে প্রশিক্ষন দিবে। এর মধ্যে ইতোমধ্যে ৩০ হাজার স্বেচ্ছাসেবককে প্রশিক্ষন দেয়া হয়েছে। এরা আলোচিত রানা প্লাজা ধসসহ যে কোন দুর্যোগে অংশগ্রহণ করছে।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী বলেন গ্রামীন জনগোষ্ঠীর দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাসকল্পে সরকার দেশের ৪০ জেলার ১০৮ উপজেলার ৩১২ ইউনিয়নে বিভিন্ন ঝুঁকি হ্রাস স্কীম বাস্তবায়ন করেছে। এসব স্কীমগুলোর মধ্যে রয়েছে উপকূলীয় এলাকায় মানুষের ঘরবাড়ি, রাস্তাঘাট ও টিউবওয়েল উচুকরণ, বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থাকরণ ইত্যাদি। বড় ধরনের জলোচ্ছাস বা বন্যার কবল থেকে গ্রামীন জনগোষ্ঠীকে রক্ষার জন্য এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। দুর্যোগ মোকাবিলায় সচেতনতার উপর তিনি গুরুত্বারোপ করেন। উদ্বোধন শেষে মন্ত্রী দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত বিভিন্ন উপকরণ, পুস্তক ও গবেষণাপত্র নিয়ে সাজানো জ্ঞান মেলার উদ্বোধন করেন ও স্টলগুলো পরিদর্শন করেন। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত কর্মকর্তাবৃন্দ, দেশী-বিদেশী এনজিওর প্রতিনিধিগণ ও গবেষকগণ কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

ভূমিকম্প ঝুঁকিতে থাকা শহরের মানচিত্র তৈরী করা হয়েছে

আপডেট টাইম : ০৮:১৬:০৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০১৫

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, বীরবিক্রম, এমপি বলেছেন, সরকার ভূমিকম্প ঝুঁকিতে থাকা ৯টি বড় শহরের ঝুঁকি নিরূপন ও ঝুঁকি মানচিত্র তৈরী করেছে। শহরগুলো হল- ঢাকা, সিলেট, চট্রগ্রাম, ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল, বগুড়া, রংপুর, রাজশাহী ও দিনাজপুর। এসব শহরগুলোর ভূমিকম্প প্রবণতা, মাটির গুনাগুন, ভবন করার শর্তাবলী, ক্ষমতা ও উপযুগিতা ইত্যাদি পরীক্ষা করা হবে।

তিনি আজ রাজধানীর খামারবাড়িতে সমন্বিত প্রাকৃতিক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রোগ্রাম (সিডিএমপি) আয়োজিত “দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাস ও জলবায়ু পরিবর্তন অভিযোজন” শীর্ষক জাতীয় কর্মশালা ও জ্ঞান মেলার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানান।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ শাহ কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নরওয়ে দুতাবাসের উপ-প্রধান হেনরিক উইডথ (ঐবহড়ৎরপ ডরফঃয) ইউএনডিপির কান্ট্রি ডিরেক্টও পলিন টেমেসিসি (চড়ষরহ ঞবসবংরংর), দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ রিয়াজ আহমেদ, সিডিএমপির এনপিডি আব্দুল কাইয়ুম অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।

মন্ত্রী বলেন নগর ঝুঁকি মোকাবিলায় সরকার দক্ষ জনবল তৈরীতে ৬২ হাজার নগর স্বেচ্ছাসেবককে প্রশিক্ষন দিবে। এর মধ্যে ইতোমধ্যে ৩০ হাজার স্বেচ্ছাসেবককে প্রশিক্ষন দেয়া হয়েছে। এরা আলোচিত রানা প্লাজা ধসসহ যে কোন দুর্যোগে অংশগ্রহণ করছে।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী বলেন গ্রামীন জনগোষ্ঠীর দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাসকল্পে সরকার দেশের ৪০ জেলার ১০৮ উপজেলার ৩১২ ইউনিয়নে বিভিন্ন ঝুঁকি হ্রাস স্কীম বাস্তবায়ন করেছে। এসব স্কীমগুলোর মধ্যে রয়েছে উপকূলীয় এলাকায় মানুষের ঘরবাড়ি, রাস্তাঘাট ও টিউবওয়েল উচুকরণ, বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থাকরণ ইত্যাদি। বড় ধরনের জলোচ্ছাস বা বন্যার কবল থেকে গ্রামীন জনগোষ্ঠীকে রক্ষার জন্য এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। দুর্যোগ মোকাবিলায় সচেতনতার উপর তিনি গুরুত্বারোপ করেন। উদ্বোধন শেষে মন্ত্রী দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত বিভিন্ন উপকরণ, পুস্তক ও গবেষণাপত্র নিয়ে সাজানো জ্ঞান মেলার উদ্বোধন করেন ও স্টলগুলো পরিদর্শন করেন। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত কর্মকর্তাবৃন্দ, দেশী-বিদেশী এনজিওর প্রতিনিধিগণ ও গবেষকগণ কর্মশালায় অংশগ্রহণ করেন।