ঢাকা ০৪:২১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল সমানে সমান

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ০৮:৩৬:৫৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৫
  • ৫১১ বার

টানা বৃষ্টিতে মাঠে পানি জমে যাওয়ায় ম্যাচটি পিছিয়ে দেয়া হয়েছিল একদিন। এতে দর্শকরা কিছুটা বিড়ম্বনায় পড়লেও শেষ পর্যন্ত তাদের মন ভরিয়ে দিয়েছে লাতিন সুপার ক্লাসিকো। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর অগ্নিগর্ভ লড়াই শেষ হয়েছে সমতায়। বুয়েন্স আয়ার্সের মনুমেন্টাল স্টেডিয়ামে কাল শুরুতে এগিয়ে গিয়েও দশজনের ব্রাজিলের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে আর্জেন্টিনা।
চিরশত্র“র দুর্গ থেকে এক পয়েন্ট নিয়ে ফিরতে পেরে খুশিই হওয়ার কথা ব্রাজিলের। অন্যদিকে খর্বশক্তির দল নিয়েও নিজেদের দাপুটে পারফরম্যান্সে স্বস্তি পেতে পারত আর্জেন্টিনা। কিন্তু পয়েন্ট টেবিলের দিকে তাকালে হতাশা গ্রাস করবে আলবিসেলেস্তাদের। দশ দলের লাতিন আমেরিকা অঞ্চলে আর্জেন্টিনা পড়ে আছে নয় নম্বরে। তিন ম্যাচে প্রাপ্তি মোটে দুই পয়েন্ট। এবারের বাছাইপর্বে এখনও জয়ের মুখ দেখেনি গত বিশ্বকাপের ফাইনালিস্টরা। নিজেদের মাঠে ইকুয়েডরের কাছে ২-০ গোলের অপ্রত্যাশিত হার দিয়ে বাছাইপর্ব শুরু করেছিল আর্জেন্টিনা। পরের ম্যাচে প্যারাগুয়ের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র। ব্রাজিল ম্যাচের আগে আক্রমণভাগের সেরা তিন তারকা মেসি, আগুয়েরো ও তেভেজকে একসঙ্গে হারিয়ে আরও কোণঠাসা হয়ে পড়ে আর্জেন্টিনা। ইনজুরির থাবায় বিপর্যস্ত স্বাগতিকদের লড়াই করার সক্ষমতা নিয়ে সন্দিহান ছিলেন অনেকে। কিন্তু সব সংশয় মুছে ঘরের মাঠে শুরু থেকেই অসাধারণ খেলেছে আর্জেন্টিনা। ব্রাজিলও গতিশীল ফুটবল খেলেছে। কিন্তু আর্জেন্টিনা ছিল বেশি আক্রমণাত্মক। প্রথমার্ধে ব্রাজিলের সঙ্গে তাদের ব্যবধান ছিল স্পষ্ট। ৩৪ মিনিটে লাভেজ্জির গোলে এগিয়েও যায় স্বাগতিকরা। কিন্তু রক্ষণের ভুলে লিডটা ধরে রাখতে পারেনি জেরার্ডো মার্টিনোর দল। ৫৮ মিনিটে ব্রাজিলকে সমতায় ফেরান লুকাস লিমা। তাতে এক পয়েন্ট নিশ্চিত হলেও শেষ দিকে গিয়ে একটি ধাক্কা খেতে হয়েছে ব্রাজিলকে। ৮৮ মিনিটে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়া পিএসজি ডিফেন্ডার ডেভিড লুইজকে পরের ম্যাচে পাচ্ছে না ব্রাজিল। অধিনায়ক নেইমারের নিষ্প্রভ উপস্থিতিও হতাশ করেছে সেলেকাও ভক্তদের। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে নিজের প্রথম ম্যাচে একদমই আলো ছড়াতে পারেননি বার্সেলোনার হয়ে ফর্মের তুঙ্গে থাকা এই ব্রাজিলীয় ফরোয়ার্ড। সেই তুলনায় অনেক উজ্জ্বল ছিলেন আর্জেন্টাইন উইঙ্গার অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া।
আর্জেন্টিনার প্রায় প্রতিটি আক্রমণের রূপকার তিনি। ৩৪ মিনিটে ডি মারিয়ার পাস থেকেই গোলমুখে ক্রস বাড়িয়েছিলেন হিগুয়াইন। সেই ক্রস থেকেই লাভেজ্জির গোল। প্রথমার্ধে গোলের এমন চারটি সুযোগ পেয়েছিল আর্জেন্টিনা। কিন্তু ভাগ্য সহায় হয়নি। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে এভার বানেগার শট পোস্টে প্রতিহত হয়। মিনিট দশেক পর এই পোস্ট দুর্ভাগ্যই আবার ব্রাজিলের সৌভাগ্য বয়ে আনে! ডগলাস কস্তার হেড ক্রসবারে প্রতিহত হওয়ার পর ফিরতি বলে ব্রাজিলকে সমতায় ফেরান লিমা। আরেক ম্যাচে প্যারাগুয়ের বিপক্ষে ১-০ গোলে জিতেছে পেরু।
একইদিনে কনকাকাফ অঞ্চলের বাছাইপর্বের
ম্যাচে সব বড় দলই জিতেছে। সেন্ট ভিনসেন্টকে
৬-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এল সালভাদরের বিপক্ষে ৩-০ গোলে জিতেছে মেক্সিকো। আর হাইতিকে ১-০ গোলে হারিয়েছে কোস্টারিকা। এএফপি/ওয়েবসাইট।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল সমানে সমান

আপডেট টাইম : ০৮:৩৬:৫৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৫

টানা বৃষ্টিতে মাঠে পানি জমে যাওয়ায় ম্যাচটি পিছিয়ে দেয়া হয়েছিল একদিন। এতে দর্শকরা কিছুটা বিড়ম্বনায় পড়লেও শেষ পর্যন্ত তাদের মন ভরিয়ে দিয়েছে লাতিন সুপার ক্লাসিকো। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর অগ্নিগর্ভ লড়াই শেষ হয়েছে সমতায়। বুয়েন্স আয়ার্সের মনুমেন্টাল স্টেডিয়ামে কাল শুরুতে এগিয়ে গিয়েও দশজনের ব্রাজিলের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে আর্জেন্টিনা।
চিরশত্র“র দুর্গ থেকে এক পয়েন্ট নিয়ে ফিরতে পেরে খুশিই হওয়ার কথা ব্রাজিলের। অন্যদিকে খর্বশক্তির দল নিয়েও নিজেদের দাপুটে পারফরম্যান্সে স্বস্তি পেতে পারত আর্জেন্টিনা। কিন্তু পয়েন্ট টেবিলের দিকে তাকালে হতাশা গ্রাস করবে আলবিসেলেস্তাদের। দশ দলের লাতিন আমেরিকা অঞ্চলে আর্জেন্টিনা পড়ে আছে নয় নম্বরে। তিন ম্যাচে প্রাপ্তি মোটে দুই পয়েন্ট। এবারের বাছাইপর্বে এখনও জয়ের মুখ দেখেনি গত বিশ্বকাপের ফাইনালিস্টরা। নিজেদের মাঠে ইকুয়েডরের কাছে ২-০ গোলের অপ্রত্যাশিত হার দিয়ে বাছাইপর্ব শুরু করেছিল আর্জেন্টিনা। পরের ম্যাচে প্যারাগুয়ের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র। ব্রাজিল ম্যাচের আগে আক্রমণভাগের সেরা তিন তারকা মেসি, আগুয়েরো ও তেভেজকে একসঙ্গে হারিয়ে আরও কোণঠাসা হয়ে পড়ে আর্জেন্টিনা। ইনজুরির থাবায় বিপর্যস্ত স্বাগতিকদের লড়াই করার সক্ষমতা নিয়ে সন্দিহান ছিলেন অনেকে। কিন্তু সব সংশয় মুছে ঘরের মাঠে শুরু থেকেই অসাধারণ খেলেছে আর্জেন্টিনা। ব্রাজিলও গতিশীল ফুটবল খেলেছে। কিন্তু আর্জেন্টিনা ছিল বেশি আক্রমণাত্মক। প্রথমার্ধে ব্রাজিলের সঙ্গে তাদের ব্যবধান ছিল স্পষ্ট। ৩৪ মিনিটে লাভেজ্জির গোলে এগিয়েও যায় স্বাগতিকরা। কিন্তু রক্ষণের ভুলে লিডটা ধরে রাখতে পারেনি জেরার্ডো মার্টিনোর দল। ৫৮ মিনিটে ব্রাজিলকে সমতায় ফেরান লুকাস লিমা। তাতে এক পয়েন্ট নিশ্চিত হলেও শেষ দিকে গিয়ে একটি ধাক্কা খেতে হয়েছে ব্রাজিলকে। ৮৮ মিনিটে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়া পিএসজি ডিফেন্ডার ডেভিড লুইজকে পরের ম্যাচে পাচ্ছে না ব্রাজিল। অধিনায়ক নেইমারের নিষ্প্রভ উপস্থিতিও হতাশ করেছে সেলেকাও ভক্তদের। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে নিজের প্রথম ম্যাচে একদমই আলো ছড়াতে পারেননি বার্সেলোনার হয়ে ফর্মের তুঙ্গে থাকা এই ব্রাজিলীয় ফরোয়ার্ড। সেই তুলনায় অনেক উজ্জ্বল ছিলেন আর্জেন্টাইন উইঙ্গার অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া।
আর্জেন্টিনার প্রায় প্রতিটি আক্রমণের রূপকার তিনি। ৩৪ মিনিটে ডি মারিয়ার পাস থেকেই গোলমুখে ক্রস বাড়িয়েছিলেন হিগুয়াইন। সেই ক্রস থেকেই লাভেজ্জির গোল। প্রথমার্ধে গোলের এমন চারটি সুযোগ পেয়েছিল আর্জেন্টিনা। কিন্তু ভাগ্য সহায় হয়নি। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে এভার বানেগার শট পোস্টে প্রতিহত হয়। মিনিট দশেক পর এই পোস্ট দুর্ভাগ্যই আবার ব্রাজিলের সৌভাগ্য বয়ে আনে! ডগলাস কস্তার হেড ক্রসবারে প্রতিহত হওয়ার পর ফিরতি বলে ব্রাজিলকে সমতায় ফেরান লিমা। আরেক ম্যাচে প্যারাগুয়ের বিপক্ষে ১-০ গোলে জিতেছে পেরু।
একইদিনে কনকাকাফ অঞ্চলের বাছাইপর্বের
ম্যাচে সব বড় দলই জিতেছে। সেন্ট ভিনসেন্টকে
৬-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এল সালভাদরের বিপক্ষে ৩-০ গোলে জিতেছে মেক্সিকো। আর হাইতিকে ১-০ গোলে হারিয়েছে কোস্টারিকা। এএফপি/ওয়েবসাইট।