সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলে মাহিয়া মাহি কি অভিনয় ছেড়ে দেবেন

বেশ কয়েক বছর ধরেই রাজনীতিতে সক্রিয় চলচ্চিত্র অভিনেত্রী মাহিয়া মাহি। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের হয়ে তিনি এক উপনির্বাচনে প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন। কিন্তু মনোনয়ন পাননি। আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হতে চেয়ে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন চেয়েছিলেন।

সেখানেও ব্যর্থ হয়েছেন তিনি। তবে মনোনয়ন না পেলেও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন তিনি। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার দিকে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও রাজশাহী জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে তিনি মনোনয়নপত্র জমা দেন।জমা দিয়ে ঢাকার গাজীপুরে আসেন এই অভিনেত্রী।

আজ রাতেই আবার ফিরবেন নির্বাচনী এলাকায়। তার আগে শুক্রবার সন্ধ্যায় কথা বলেন কালের কণ্ঠের সঙ্গে।বলেন, ‘এখন তো মনোনয়ন পেপার যাচাই-বাছাই চলবে। চূড়ান্ত মনোনয়ন পেলেই আসলে বলতে পারব।

কিন্তু আমি আমার কাজ করে যাব। আমি সব সময় আমার নির্বাচনী এলাকার মানুষের সাথে আছি।’তিনি আশা করেন, সুষ্ঠু নির্বাচন হলে তিনি জিতবেন। তাই ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে আনা ও সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ সৃষ্টির পেছনে জোর দেন রাজনীতির নতুন এই যোদ্ধা। তিনি বলেন, ‘আমার এলাকার সব ধরনের ভোটার, বিশেষ করে নারী ভোটারদের প্রিয় মুখ আমি।

সব ধরনের নারীরা আমার কাছে সহজেই আসতে পারেন। কথা বলেন। তাদের পাশে আছি জেনে খুশি হন।’বেশ কিছুদিন ধরেই নিজের জন্মস্থান রাজশাহীতে গিয়ে জনগণের পাশে থাকার চেষ্টা করছেন এই অভিনেত্রী। কখনো মা সমাবেশ, কখনো কৃষকদের মাঝে বীজ বিতরণের কার্যক্রম করতেও দেখা যায় তাকে। এসব তার নির্বাচনের পূর্বপ্রস্তুতি বলে জানান। তার দাবি, এ কারণে মানুষ তাকে আপন করে নিয়েছে।

কবে থেকে তিনি রাজনীতি করার পরিকল্পনা করেন জানতে চাইলে বলেন, ‘দেখুন মানুষের পাশে থাকার অভ্যাস আমার অনেক আগে থেকেই। যখন নিয়মিত অভিনয় করতাম তখনই চিন্তা করেছি আরো বৃহৎ পরিসরে কিভাবে মানুষের পাশে থাকা যায়। তখন থেকেই রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হওয়ার সুপ্ত ইচ্ছা ছিল। বিয়ের পর সেটি পাকাপোক্ত হয় তার।

এদিকে তার কাছে জানতে চাওয়া হয়, যদি কোনো কারণে নির্বাচিত না হতে পারেন তিনি তাহলে কি রাজনীতির মাঠে থাকবেন কিনা? তিনি বলেন, আমি সারাজীবন মানুষের পাশে আছি। থাকার চেষ্টা করবো।’

আর নির্বাচিত হলে চলচ্চিত্রে অভিনয় ছেড়ে দেবেন কিনা জানতে চাইলে মাহি বলেন, ‘চলচ্চিত্র আমার ব্রেড অ্যান্ড বাটার। আমার পরিচয় এবং আমার আনন্দের জায়গা। তাই চলচ্চিত্র ছেড়ে কখনোই থাকতে পারবো না। চাইও না। যতদিন পারি অভিনয় চালিয়ে যাবো।’

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর