বাংলাদেশের ডিরেক্টররা আমাকে নিয়ে কম ভাবেন

ঢালিউড অভিনেত্রী নুসরাত ফারিয়া। ক্যারিয়ারের শুরুটা মিউজিক ভিডিওর মডেল হলেও এরপর উপস্থাপনা। এখন তিনি পুরোদস্তুর চলচ্চিত্রের নায়িকা। অনেকে বলতেন, ২০১৫ সালে ‘আশিকী’ দিয়ে চলচ্চিত্রে যাত্রা শুরু করা নুসরাত ফারিয়াকে বাংলাদেশের চেয়ে কলকাতায় বেশি দেখা গেছে।

গতকাল শুক্রবার একটি অনুষ্ঠানে ফারিয়ার কথায়ও তেমনটাই যেন আরও পরিষ্কার হলো।

শুক্রবার ঢাকার একটি অনুষ্ঠানে অকপটে তাই জানালেন। বললেন, বাংলাদেশের পরিচালকেরা তাঁকে নিয়ে কম ভাবেন। কেন কম ভাবেন, তার ব্যাখ্যাও দিলেন তিনি।

আট বছরের পেশাদার চলচ্চিত্রজীবন নুসরাত ফারিয়ার। কলকাতায় সর্বশেষ তাঁর মুক্তি পাওয়া ছবি ‘বিবাহ অভিযান ২’। এদিকে ঢাকার প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে ‘সুড়ঙ্গ’, যেটিতে তাঁকে ‘ও ট্যাকা তুই কলিজা আর জান’—এমন কথার একটি আইটেম গানে পারফর্ম করতে দেখা গেছে। এ ছাড়া চরকিতেও মুক্তি পেয়েছে ‘পাতালঘর’ নামের একটি ওয়েব ফিল্ম, যেটিতে নুসরাত ফারিয়াকে একেবারে ভিন্নরূপে পেয়েছেন দর্শকেরা।

ফারিয়ার কথায়ও তাঁর প্রমাণ পাওয়া গেল। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের ডিরেক্টররা আমাকে নিয়ে ভাবেন কম। তাঁরা হয়তো মনে করেন, ও আচ্ছা সে খুব সুন্দরী। তাকে মনে হয় ভাঙা যাবে না। আমার মনে হয়, নুর ইমরান মিঠু সেটা করিয়ে দেখিয়েছেন “পাতালঘর”-এ। আমি যে রকম ভালোবাসা “পাতালঘর” থেকে পেয়েছি বা সাড়া পেয়েছি, সেটা আসলেই অন্য রকম। আমার ভীষণ ভালো লাগার। ’

২০২৩ সালের সেপ্টেম্বর মাস শুরু হয়েছে। বছরের এই কয়েক মাসের মধ্যে চলচ্চিত্র, ওয়েব ফিল্ম, নতুন গান এবং ওয়েব সিরিজ ও চলচ্চিত্রে অতিথি চরিত্রেও ছিলেন নুসরাত ফারিয়া। পেশার দিক দিয়ে এ বছর ফারিয়ার জন্য খুবই ভালো হলেও ব্যক্তিগতভাবে দুঃখজনক মনে করছেন তিনি।

ফারিয়া বললেন, ‘পেশাদারিভাবে এ বছরটা আমার জন্য যতটা সুন্দর, পারসোনালি ততটাই স্যাড। কারণ, বছরের শুরুতে জি-ফাইভে “ভয়” প্রকাশিত হয়েছে। কলকাতার প্রেক্ষাগৃহে “বিবাহ অভিযান ২” ছবিটা মুক্তি পেয়েছে। “বুঝি না তো তাই” শিরোনামের গান এসভিএফ থেকে, চরকি থেকে “কলিজা আর জান” আর “আবার প্রলয়” ওয়েব সিরিজে “মেনকা” গান প্রকাশিত হয়েছে।

চরকির ‘পাতালঘর” তো আগেই বললাম। বছরের সেপ্টেম্বর মাস চলছে, অলরেডি আমার ছয়টা কনটেন্ট রিলিজ হয়ে গেছে। সামনে আরও আসছে, পুজোতে কলকাতায় মুক্তি পাবে “রকস্টার”। “মুজিব”ও আসবে এ বছরেই। এসবের বাইরে সামনে আরেকটি গানও মুক্তি পাবে। অনেক কিছুই আসছে। আমি আমার এ সময়কে উপভোগ করছি। অনেক বছর ধরেই এ রকম পরিকল্পনামাফিক কাজ করতে চাচ্ছিলাম, আমার সাথে যেটা যায়। আমার কাছে মনে হয়, একজন ফিমেল অ্যাক্টরকে সঠিকভাবে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য যে ধরনের কাজ দরকার ক্যারিয়ারে, এখন এসে আমি পাচ্ছি। ’

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর