,

Untitled-1-copy-161-1280x720

ঘোড়া দিয়ে হাল চাষ করে সংসার চালান ভূষণ চন্দ্র

হাওর বার্তা ডেস্কঃ একসময় গরু দিয়ে অন্যের জমিতে হাল চাষ করতেন ভূষণ। পারিবারিক সমস্যার কারণে একটি গরু বিক্রি করে দেওয়ায় হাল চাষ করা বন্ধ হয়ে যায় তার। পরে অপর গরুটি বিক্রি করে দুটি ঘোড়া ক্রয় করেন তিনি। বর্তমানে ঘোড়া দিয়ে হাল চাষ করে জীবিকা নির্বাহ করছেন তিনি। ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ধন্দোগাঁও গ্রামের কৃষক ভূষণ চন্দ্র।

কৃষক ভূষণ চন্দ্র বলেন, আমি এক বছর থেকে ঘোড়া দিয়ে জমি চাষ করে আসছি। শুরুতে ঘোড়াগুলোকে হালের কসরত শেখাতে অনেক কষ্ট হয়েছে। বউকে সঙ্গে নিয়ে আমি ঘোড়াগুলোকে আয়ত্ত করার চেষ্টা করেছি। ঘোড়ার কাঁধের ওপর লাঙল-জোয়াল জুড়ে দিয়ে অনেকবার চেষ্টা করার পর আয়ত্তে আসে। এগুলো দিয়ে নিজের যেটুকু আছে সেই জমির পাশাপাশি অন্যের জমি চাষাবাদ করছি। প্রতি বিঘা জমি চাষ করতে নিচ্ছি ৫০০ টাকা। যা আয় হয় তা দিয়ে পরিবার চালাই।

 

কৃষক মুঞ্জুর আলী বলেন, আগে আমি মাহেন্দ্র দিয়ে হাল চাষ করতাম। এখন ঘোড়া দিয়ে হাল চাষ করছি। এতে করে অনেকটা ডিপ হচ্ছে ও সাশ্রয়ী। আমি আশা করছি ফলনও ভালো হবে।

কৃষক মনসুর আলী বলেন, আমরা এর আগে গরু দিয়ে হাল চাষ করতাম। এখন ঘোড়া দিয়ে হাল চাষ করছি। হাল অধিক ডিপ হওয়ায় মাটির উর্বরতা বাড়বে বলে আশা করছি। এ ছাড়াও ঘোড়া দিয়ে হাল চাষ হওয়ায় একটি আলাদারকম অনুভূতির সৃষ্টি হচ্ছে। বিভিন্ন জায়গা থেকে লোকজন দেখতেও আসছে।

স্থানীয় বাসিন্দা সাদ্দাম হোসেন বলেন, আগে ঘোড়া ব্যবহার করা হতো মালামাল টানার জন্য। আর আধুনিক যন্ত্রাংশ দিয়েই মূলত হাল চাষ করা হয়। কিন্তু ধন্দোগাঁও গ্রামের কৃষক ভূষণ চন্দ্র রায় ঘোড়া দিয়ে হাল চাষ করে চমক সৃষ্টি করেছেন। আমার জানামতে এটি ঠাকুরগাঁওয়ে প্রথম। যেখানে এক জোড়া গরুর দাম ১ লাখ টাকার উপরে সেখানে এক জোড়া ঘোড়া ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকায় পাওয়া যায়।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর