,

02

একবার রোপণে পাঁচবার ফলন, আমনের বীজ কৃষকদের সাফল্য

হাওর বার্তা ডেস্কঃ একবার রোপণ করে পাঁচবার ফলন; বোরোর পর আমনেও আসছে এমন সাফল্য। এ নিয়ে চলছে দ্বিতীয় ও শেষ ধাপের গবেষণা। সফল হলেই বীজ দেয়া হবে কৃষকদের। বর্ষজীবী সবজি গাছ উদ্ভাবনেও গবেষণা চলছে।

বোরোর হাত ধরে এবার আমনও হতে যাচ্ছে বর্ষজীবী ধান। কমবে উৎপাদন খরচ। একবার রোপণে মিলবে পাঁচবার ফলন।

ধানের এ জাতটি নিয়ে কাজ করা গবেষক ড. আবেদ চৌধুরী জানান, নতুন জাতের এ ধান আবাদে অতিরিক্ত রাসায়নিক সার লাগে না। তাই ওজন স্তর রক্ষায়ও এটি সহায়ক। ধান গাছগুলো বহুবছর যাতে ফলন দেয়, এ নিয়েও গবেষণা চলছে বলে জানান তিনি।

ড. আবেদ চৌধুরী বলেন, দীর্ঘদিন ধরে এই গবেষণা চলছে। এর আগে আমরা দু’বার তিনবার পেয়েছি এই  পাঁচবারে আমরা থেমে থাকবো না। ছয়বার, সাতবার করে ধানকে আমরা চিরজীবী কর তুলবো। আমি কৃষকদের সাথে নিয়ে এটা করছি।

তার এ আবিষ্কারে খুশি এলাকাবাসী ও কৃষকরা। গবেষণা শেষে শিগগিরই বীজ পাওয়ার প্রত্যাশা তাদের।

কৃষকরা জানান, এই ধান খুবই ফলনশীল। এলাকাবার মানুষকে উৎসাহিত করেছে।

শুধু ধান নয়, ড. আবেদ চৌধুরী গবেষণা করছেন নানা প্রকার সবজি নিয়েও। ইতিমধ্যে সফলতা এসেছে দুই জাতের ঢেড়সে।

একবার ফলন দেয়ার পর গাছ খানিকটা কেটে দেন তিনি, এরপর সেই গাছে আবারও ফলন আসে সমপরিমাণ। এক্ষেত্রে গাছগুলোর জন্য প্রয়োজন বাড়তি যত্ন।

ড. আবেদ চৌধুরী বলেন, যে কোন শস্যের বা যে কোন প্ল্যান্টের জীবনকাল বাড়িয়ে দেওয়া, মাল্টিপল হার্ভেজ তৈরি করা, বিশাল উৎপাদনশীল ভ্যারাইটি তৈরি করা হচ্ছে হাইব্রিডের বাইরে গিয়ে।

ধান-সহ বেশিরভাগ সবজিগাছকে বর্ষজীবি করার গবেষণা চালাচ্ছেন ড. আবেদ চৌধুরী। সফল হলে দেশের কৃষকদের ভাগ্য ফিরবে বলে মনে করেন তিনি।

আবেদ চৌধুরী বলেন, দরিদ্র কৃষকের জীবন উন্নয়নের কাজে আমি এ ধানটাকে নিয়োজিত করবো।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর