,

7

ফ্রান্সের শহর হাঁসের বিরুদ্ধে মামলায় আদালতের রায়

হাওর বার্তা ডেস্কঃ যে সব প্রাণির ডাক মানুষের বিরক্তির উদ্রেক করতে পারে হাঁস তাদের মধ্যে অন্যতম। তাই বলে হাঁসের ডাকে বিরক্ত হয়ে মামলা করার কথা কেউ ভাবেন না নিশ্চয়ই। হাস্যকর শোনালেও এমন ঘটনা ঘটেছে দক্ষিণ-পশ্চিম ফ্রান্সের ড্যাক্স শহরে। সেখানকার এক বাসিন্দা প্রতিবেশীর পোষা হাঁসের ডাকে বিরক্ত হয়ে আদালতে গিয়ে মামলা ঠুকে দিয়েছেন।

মামলাকারীর নাম প্রকাশ করা হয়নি। তবে যে হাঁসটির বিপক্ষে মামলা হয়েছে তার মালিকের নাম ডোমিনিক ডোউথ। ডোমিনিক পেশায়  কৃষক। বাড়ির আঙিনায় ৬০টি হাঁস পালন করেন। হাঁসগুলো তার বাড়তি উপার্জনের অংশ।

সম্প্রতি শহর থেকে তার প্রতিবেশী হয়ে আসেন ওই মামলাকারী। বাড়ি বানিয়ে বসবাসের পর থেকেই তিনি হাঁসগুলোর ডাক বন্ধ করার জন্য ডোমিনিককে চাপ দিচ্ছিলেন। যদিও ডোমিনিকের এক্ষেত্রে কিছুই করার ছিল না। হাঁসগুলো সকাল-বিকাল প্যাঁকপ্যাঁক করেই যাচ্ছিল। অন্যদিকে বিরক্তি বাড়ছিল মামলাকারীর। সহ্যের সীমা অতিক্রান্ত হলে তিনি মামলা করার সিদ্ধান্ত নেন।

মামলায় অভিযোগ করেন, হাঁসের বিশ্রি ডাকের কারণে তিনি বিকেলে বাগানে বসতে পারেন না। এছাড়া তার জানালা খুলে ঘুমাতেও সমস্যা হয়। মামলা করেই তিনি ক্ষান্ত হননি। শান্তি ভঙ্গের জন্য সাড়ে তিন হাজার ইউরো ক্ষতিপূরণ দাবি করেন।

চলতি সপ্তাহে বিচারক মামলার রায় প্রদান করেছেন। রায়ে হাঁসগুলো জিতে গেছে। বিচারক হাঁসগুলোকে তাদের ডাকার স্বাধীনতা প্রদান করেছেন। মামলার রায়ে খুশি হয়ে ডোমিনিক গণমাধ্যমে বলেন, ‘হাঁসগুলো জিতে গেছে। আমি খুব খুশি! কারণ আমি হাঁসগুলোকে হত্যা করতে চাই না।’

এই মামলাকে অনেকেই আধুনিক শহুরে মানুষের গ্রামীণ সংস্কৃতিকে অবজ্ঞাভরে দেখার দৃষ্টান্ত হিসেবে উল্লেখ করছেন। কারণ চলতি বছরের জুনে প্যারিসে এক লোক তার প্রতিবেশীর মোরগের বিরুদ্ধে সকাল বেলা ডাকাডাকিতে ঘুম ভাঙানোর অভিযোগে মামলা করেছিলেন। রায়ে মোরগটিও জিতেছিল।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর