ঢাকা ০৪:৪২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আসুন আমরা একসঙ্গে বসি

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ০৫:৫৬:১৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ জুন ২০১৫
  • ৫৬৭ বার

কে ছোট কে বড় সে বিবেচনা না করে দেশ রক্ষায় সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন ও ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতা খালেদা জিয়া। বলেছেন, আমরা সবাই এ দেশের মানুষ। আমরা মানুষের জন্যই রাজনীতি করি। আসুন আমরা একসঙ্গে বসি। কে ছোট কে বড় সেই চিন্তা না করে দেশের বিপদে ঐক্যবদ্ধভাবে মানুষের পাশে দাঁড়াই। এই লেডি হিটলারের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করি। রাজধানীর বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টারে ২০ দলীয় জোটের শরিক জাতীয় পার্টির (জাফর) ইফতার মাহফিলে আলোচনায় অংশ নিয়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃত্বের উদ্দেশ্য তিনি এ আহ্বান জানান। খালেদা জিয়া বলেন, ভোটবিহীন সরকার ক্ষমতায় রয়েছে। তাই জনগণের প্রতি এদের কোন দায়বদ্ধতা নেই। তারা শুধু লুটপাটে ব্যস্ত। দেশে দুর্নীতি, গুম, খুন, ধর্ষণ, ছিনতাই ও চাঁদাবাজি বেড়ে গেছে। তিনি বলেন, জনগণের টাকা লুটপাট করে ক্ষমতাসীনদের পকেট ভারি হচ্ছে। তারা সুইস ব্যাংকে টাকা রাখছে। অন্যদিকে বাংলাদেশে দারিদ্র্যতা বাড়ছে। বিদেশ থেকে পচা গম আমদানি করছে। সেনাবাহিনী, পুলিশ কেউ এই গম নিতে চায় না। এই গম কাদের খাওয়াবেন? আওয়ামী লীগের লোকদের খাওয়ান। তাদের স্বাস্থ্য এমনিতেই ভাল। আরও ভাল হবে। সরকারের দুর্নীতি ও অপশাসন ও রাজধানীর রাস্তা-ঘাটের দুরবস্থার কঠোর সমালোচনা করেন তিনি বলেন, প্র্রতিটি কাজে তাদের দুর্নীতি চলছে। টেন্ডার ছাড়া বড় বড় প্রকল্প হাতে নেয়া হচ্ছে। ওইসব প্রকল্প বাস্তবায়ন হবে না, শুধু তারা কমিশন ভাগাভাগি করে নিয়ে যাবে। ইফতারে চট্টগ্রামে পাহাড় ধসে নিহতের প্রতি শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেন খালেদা জিয়া। ইফতার পার্টিতে খালেদা জিয়ার সঙ্গে বিকল্পধারা সভাপতি ও সাবেক প্রেসিডেন্ট প্রফেসর ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, জাতীয় পার্টি (জাফর) সভাপতি কাজী জাফর আহমদ, মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মে. জে. (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীরপ্রতীক, জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, এলডিপির মহাসচিব রেদোয়ান আহমেদ, জামায়াতে ইসলামীর  রিদওয়ান উল্লাহ শাহিদী, ইসলামী ঐক্যজোটের আবদুল লতিফ নেজামী, ন্যাপের জেবেল রহমান গানি, এনডিপির খন্দকার গোলাম মুর্তজা, লেবার পার্টির মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ন্যাপ-ভাসানীর আজহারুল ইসলাম, বিজেপির সালাহউদ্দিন মতিন প্রকাশ, সাম্যবাদী দলের সাঈদ আহমেদ, জমিয়তে উলামা ইসলামের মাওলানা মজিবুর রহমান, পিপলস লীগের সৈয়দ মাহবুব হোসেন, ডিএল’র সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি মঞ্চে বসে ইফতারে অংশ নেন। এছাড়াও ইফতারে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডির সভাপতি আসম আবদুর রব, বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত যুগ্ম মহাসচিব আশরাফ হোসেন, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের যুগ্ম সম্পাদক ইকবাল সিদ্দিকী, শিক্ষাবিদ প্রফেসর মাহবুবউল্লাহ, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, দৈনিক ইনকিলাবের সম্পাদক এমএম বাহাউদ্দিন, সাংবাদিক মাহফুজউল্লাহ ও মোস্তফা কামাল মজুমদার, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, যুবদল সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবীর খোকন, সৈয়দ মেহেদি আহমেদ রুমী, হাসানউদ্দিন সরকার, নুরী আরা সাফা, শিরিন সুলতানা, শ্যামা ওবায়েদ, ২০ দলীয় জোটের খন্দকার লুৎফর রহমান, শাহাদাত হোসেন সেলিম, গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া, এমএম আমিনুর রহমান, জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য টিআইএম ফজলে রাব্বী, এসএমএম আলম, আহসান হাবিব লিংকন, আতিকুর রহমান আতিক, আনোয়ারা বেগম, একেএম শহিদুল ইসলাম, মজিবুর রহমান, মাওলানা রুহুল আমিন, হোসেনে আরা আহসান, খালেকুজ্জামান চৌধুরী, চীন ও দক্ষিণ কোরিয়া কূটনীতিক, রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক, বুদ্ধিজীবীসহ ২০ দলীয় জোটের শরিক দলের নেতারা অংশ নেন।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

জনপ্রিয় সংবাদ

আসুন আমরা একসঙ্গে বসি

আপডেট টাইম : ০৫:৫৬:১৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ জুন ২০১৫

কে ছোট কে বড় সে বিবেচনা না করে দেশ রক্ষায় সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন ও ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতা খালেদা জিয়া। বলেছেন, আমরা সবাই এ দেশের মানুষ। আমরা মানুষের জন্যই রাজনীতি করি। আসুন আমরা একসঙ্গে বসি। কে ছোট কে বড় সেই চিন্তা না করে দেশের বিপদে ঐক্যবদ্ধভাবে মানুষের পাশে দাঁড়াই। এই লেডি হিটলারের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করি। রাজধানীর বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টারে ২০ দলীয় জোটের শরিক জাতীয় পার্টির (জাফর) ইফতার মাহফিলে আলোচনায় অংশ নিয়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃত্বের উদ্দেশ্য তিনি এ আহ্বান জানান। খালেদা জিয়া বলেন, ভোটবিহীন সরকার ক্ষমতায় রয়েছে। তাই জনগণের প্রতি এদের কোন দায়বদ্ধতা নেই। তারা শুধু লুটপাটে ব্যস্ত। দেশে দুর্নীতি, গুম, খুন, ধর্ষণ, ছিনতাই ও চাঁদাবাজি বেড়ে গেছে। তিনি বলেন, জনগণের টাকা লুটপাট করে ক্ষমতাসীনদের পকেট ভারি হচ্ছে। তারা সুইস ব্যাংকে টাকা রাখছে। অন্যদিকে বাংলাদেশে দারিদ্র্যতা বাড়ছে। বিদেশ থেকে পচা গম আমদানি করছে। সেনাবাহিনী, পুলিশ কেউ এই গম নিতে চায় না। এই গম কাদের খাওয়াবেন? আওয়ামী লীগের লোকদের খাওয়ান। তাদের স্বাস্থ্য এমনিতেই ভাল। আরও ভাল হবে। সরকারের দুর্নীতি ও অপশাসন ও রাজধানীর রাস্তা-ঘাটের দুরবস্থার কঠোর সমালোচনা করেন তিনি বলেন, প্র্রতিটি কাজে তাদের দুর্নীতি চলছে। টেন্ডার ছাড়া বড় বড় প্রকল্প হাতে নেয়া হচ্ছে। ওইসব প্রকল্প বাস্তবায়ন হবে না, শুধু তারা কমিশন ভাগাভাগি করে নিয়ে যাবে। ইফতারে চট্টগ্রামে পাহাড় ধসে নিহতের প্রতি শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেন খালেদা জিয়া। ইফতার পার্টিতে খালেদা জিয়ার সঙ্গে বিকল্পধারা সভাপতি ও সাবেক প্রেসিডেন্ট প্রফেসর ডা. একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, জাতীয় পার্টি (জাফর) সভাপতি কাজী জাফর আহমদ, মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মে. জে. (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীরপ্রতীক, জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, এলডিপির মহাসচিব রেদোয়ান আহমেদ, জামায়াতে ইসলামীর  রিদওয়ান উল্লাহ শাহিদী, ইসলামী ঐক্যজোটের আবদুল লতিফ নেজামী, ন্যাপের জেবেল রহমান গানি, এনডিপির খন্দকার গোলাম মুর্তজা, লেবার পার্টির মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ন্যাপ-ভাসানীর আজহারুল ইসলাম, বিজেপির সালাহউদ্দিন মতিন প্রকাশ, সাম্যবাদী দলের সাঈদ আহমেদ, জমিয়তে উলামা ইসলামের মাওলানা মজিবুর রহমান, পিপলস লীগের সৈয়দ মাহবুব হোসেন, ডিএল’র সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি মঞ্চে বসে ইফতারে অংশ নেন। এছাড়াও ইফতারে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডির সভাপতি আসম আবদুর রব, বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত যুগ্ম মহাসচিব আশরাফ হোসেন, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের যুগ্ম সম্পাদক ইকবাল সিদ্দিকী, শিক্ষাবিদ প্রফেসর মাহবুবউল্লাহ, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, দৈনিক ইনকিলাবের সম্পাদক এমএম বাহাউদ্দিন, সাংবাদিক মাহফুজউল্লাহ ও মোস্তফা কামাল মজুমদার, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, যুবদল সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবীর খোকন, সৈয়দ মেহেদি আহমেদ রুমী, হাসানউদ্দিন সরকার, নুরী আরা সাফা, শিরিন সুলতানা, শ্যামা ওবায়েদ, ২০ দলীয় জোটের খন্দকার লুৎফর রহমান, শাহাদাত হোসেন সেলিম, গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া, এমএম আমিনুর রহমান, জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য টিআইএম ফজলে রাব্বী, এসএমএম আলম, আহসান হাবিব লিংকন, আতিকুর রহমান আতিক, আনোয়ারা বেগম, একেএম শহিদুল ইসলাম, মজিবুর রহমান, মাওলানা রুহুল আমিন, হোসেনে আরা আহসান, খালেকুজ্জামান চৌধুরী, চীন ও দক্ষিণ কোরিয়া কূটনীতিক, রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক, বুদ্ধিজীবীসহ ২০ দলীয় জোটের শরিক দলের নেতারা অংশ নেন।