ঢাকা ০৫:৫৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিশ্বের অদম্য ১০ মুসলিম নারী

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ০৪:৩৩:৩৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ জুন ২০১৫
  • ৩৭১ বার

দ্বন্দ্ব-সংঘাত, হানাহানিতে মত্ত পুরো মুসলিম বিশ্ব। জাতিগত সংঘাতে প্রতিনিয়ত বলি হচ্ছে মুসলিমরা। সেখানে আজ মানবতা বিপন্ন। ক্ষুধার্ত ও শরণার্থী নারী-শিশুর আর্তনাদে জর্জরিত গোটা মধ্যপ্রাচ্য। মুসলিম বিশ্বের নারীরা যেখানে নানা নির্যাতন, নিপীড়ন এবং বিভিন্ন বাধা-নিষেধের গ্যাঁড়াকলে জর্জরিত, সেখানে অনেকে পুরুষের সমানতালে দেশ শাসন করেছেন বা করে চলেছেন।

 

শুধু মুসলিম বিশ্বেই নয়, সারা বিশ্বের রাজনীতি অঙ্গনে আজ মডেল তারা। যুক্তরাষ্ট্রের প্রখ্যাত সাময়িকী ব্রাউন গার্লস ম্যাগাজিনটি সম্প্রতি বিশ্বের আপসহীন, নির্ভীক ও অদম্য নারীর তালিকার শীর্ষে স্থান দিয়েছে ১০ মুসলিম নারী নেত্রীকে।

 

পাঠকের জন্য তাদের খুঁটিনাটি তথ্য ক্রমানুসারে তুলে ধরা হলো-

 

১. বেনজির ভুট্টো
বিশ্বের নির্ভীক বা অদম্য মুসলিম নারীর তালিকায় শীর্ষে পাকিস্তানের প্রয়াত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টো। ‘ডটার অব ইস্ট’ খ্যাত বেনজির ভুট্টোর জন্ম জুন ২১ ১৯৫৩ করাচিতে। ২০০৭ সালের  ২৭ ডিসেম্বরে রাওয়ালপিন্ডিতে এক জনসভায় ভাষণদানকালে আততায়ীর গুলিতে নিহত হন। পাকিস্তানের একমাত্র নারী প্রধানমন্ত্রী তিনি। দু-দুবার (১৯৮৮-৯০ ও ১৯৯৩-৯৬) প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন তিনি। বাবা প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জুলফিকার আলী ভুট্টোর মৃত্যুর পর পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) হাল ধরেন তিনি। মুসলিম-বিশ্বের প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী। তিনি হার্ভার্ড ও অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাজনীতির ওপর পড়াশোনা করেন।

 

২. মেঘবতী সুকর্ণপুত্রী
মেঘবতী সুকর্ণপুত্রী ইন্দোনেশিয়ার পঞ্চম প্রেসিডেন্ট। জন্ম ২৩ জানুয়ারি ১৯৪৭ সালে। ইন্দোনেশিয়ার রাজনীতিবিদ এবং প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি, যিনি জুলাই ২০০১ থেকে ২০ অক্টোবর ২০০৪ সাল পর্যন্ত দেশের রাষ্ট্রপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনিই ইন্দোনেশিয়ার স্বাধীনতার পর প্রথম নারী রাষ্ট্রপতি এবং ইন্দোনেশিয়ায় জন্মগ্রহণকারী নেতা। ইন্দোনেশিয়ার প্রজাতান্ত্রিক পার্টির (পিডিআই) চেয়ারম্যান তিনি। দেশটির রাজনৈতিক অঙ্গনে তিনি গণতন্ত্রের মডেল হিসেবে পরিচিত।

 

৩. শেখ হাসিনা
২৮ সেপ্টেম্বর ১৯৪৭ সালে জন্ম শেখ হাসিনার। বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী। তিনি বাংলাদেশের ১০ম জাতীয় সংসদের সরকারদলীয় প্রধান এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী। বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতাসংগ্রামের প্রধান নেতা ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি সম্পন্ন করেন তিনি। তিন-তিনবার তিনি দেশের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন। বর্তমানে ‘লৌহমানবীর’ মতো দেশ শাসন করে চলেছেন শক্ত হাতে। ‘শান্তিরদূত’ হিসেবে খ্যাতিও মিলেছে তার।

 

৪. খালেদা জিয়া
খালেদা জিয়া (১৯৪৫ সালে জন্ম) বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) প্রধান। তিনি ১৯৯১-১৯৯৬ সাল এবং ২০০১-২০০৬ সাল পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি বাংলাদেশের প্রথম ও মুসলিম বিশ্বের দ্বিতীয় নারী প্রধানমন্ত্রী। তিনবার প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন তিনি। প্রয়াত প্রেসিডেন্ট জেনারেল জিয়াউর রহমানের মৃত্যুর পর দলের হাল ধরেন তিনি।

 

৫. আতিফিতে জাহজাগা
১৯৭৫ সালের ২০ এপ্রিল জন্ম নেওয়া আতিফিতে জাহজাগা কসোভোর বর্তমান প্রেসিডেন্ট। ৭ এপ্রিল ২০১১ সালে তিনি প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ শপথ গ্রহণ করেন। কসোভোর প্রথম নির্বাচিত নারী প্রেসিডেন্ট তিনি। বলকান অঞ্চলেরও প্রথম নির্বাচিত নারী প্রেসিডেন্ট তিনি। একইসঙ্গে বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ নির্বাচিত প্রেসিডেন্টের তালিকায় নিজের নাম লেখান তিনি। কসোভোর প্রিস্টিনা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইনে স্নাতক পাস করেন তিনি। এরপর যুক্তরাজ্য ও জার্মানির বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পুলিশ সায়েন্স ও অপরাধবিজ্ঞানের ওপর উচ্চতর ডিগ্রি নেন।

 

৬.তানসু সিলার
তুরস্কের প্রথম ও একমাত্র নারী প্রধানমন্ত্রী তানসু সিলার। শিক্ষাবিদ ও অর্থনীতিবিদ এই নারী ১৯৯৩-৯৬ পর্যন্ত তুরস্কের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের নিউ হ্যাম্পশায়ার থেকে এমএস ডিগ্রি গ্রহণ করেন। এ ছাড়া কানেকটিকাট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন তিনি। ২৪ রমে ১৯৪৬ সালে রাজধানী ইস্তাম্বুলে জন্মগ্রহণ করেন দেশটির জনপ্রিয় ওই নারী অর্থনীতিবিদ।

 

৭. মামি মাদিউর বোয়ে
মুসলিম নারী মামি মাদিউর বোয়ে ২০০১-২০০২ সাল পর্যন্ত সেনেগালের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। দেশটির প্রখ্যাত আইনজীবী হিসেবে তার খ্যাতি রয়েছে। আইন নিয়ে তিনি সেনেগালের রাজধানী ডাকার ও ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে  পড়াশোনা করেন। ১৯৪০ সালে আফ্রিকার দেশ সেনেগালের সেন্ট লুইসে জন্মগ্রহণ করেন তিনি।

 

৮. আমিনাতা তোরে
সেনেগালের দ্বিতীয় নারী প্রধানমন্ত্রী আমিনেতা তোরে। ১ সেপ্টেম্বর ২০১৩ থেকে ২০১৪ সালে ৪ জুলাই পর্যন্ত তিনি সেনেগালের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। ১২ অক্টোবর ১৯৬২ সালে তিনি সেনেগালের রাজধানী ডাকারে জন্মগ্রহণ করেন।

 

৯. সাইজি মরিয়ম কায়দামা সিদিবি
মালির এ মুসলিম নারী শিক্ষাবিদ অধ্যাপক সিদিবি নামে পরিচিত। শিক্ষাবিদ থেকে রাজনীতিবিদে পরিণত হয়ে মালির প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন ২০১১ সালে। তিনি ২০১১-১২ সাল পর্যন্ত মালির প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। সিদিবি মালির প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেশটির রাজনৈতিক ইতিহাসে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন। ১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারি সুদানের তিমবুকতুতে জন্মগ্রহণ করেন তিনি।

 

১০.আমিনা গারিব ফাকিম
মরিশাসের বর্তমান নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট আমিনা গারিব ফাকিম। তিনি হিন্দুপ্রধান দেশটির প্রথম নারী ও মুসলিম প্রেসিডেন্ট। আমিনা একই সঙ্গে রাষ্ট্র ও প্রতিরক্ষা প্রধানের দায়িত্ব পালন করেছেন। আমিনা ফিজিওথেরাপি গবেষণা সেন্টারের মহাপরিচালক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটি অব সারে ও ইউনিভার্সিটি অব এক্সটার থেকে পড়শোনা করা আমিনা মরিশাস বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের চেয়ারপারসনও ছিলেন। বিশ্বব্যাংকের বিভিন্ন পদেও তিনি কাজ করেছেন। ১৯ অক্টোবর ১৯৫৯ সালে মরিশাসের সুরিনামে জন্মগ্রহণ করা আমিনা ৫ জুন দেশটির প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন।

 

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

জনপ্রিয় সংবাদ

বিশ্বের অদম্য ১০ মুসলিম নারী

আপডেট টাইম : ০৪:৩৩:৩৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ জুন ২০১৫

দ্বন্দ্ব-সংঘাত, হানাহানিতে মত্ত পুরো মুসলিম বিশ্ব। জাতিগত সংঘাতে প্রতিনিয়ত বলি হচ্ছে মুসলিমরা। সেখানে আজ মানবতা বিপন্ন। ক্ষুধার্ত ও শরণার্থী নারী-শিশুর আর্তনাদে জর্জরিত গোটা মধ্যপ্রাচ্য। মুসলিম বিশ্বের নারীরা যেখানে নানা নির্যাতন, নিপীড়ন এবং বিভিন্ন বাধা-নিষেধের গ্যাঁড়াকলে জর্জরিত, সেখানে অনেকে পুরুষের সমানতালে দেশ শাসন করেছেন বা করে চলেছেন।

 

শুধু মুসলিম বিশ্বেই নয়, সারা বিশ্বের রাজনীতি অঙ্গনে আজ মডেল তারা। যুক্তরাষ্ট্রের প্রখ্যাত সাময়িকী ব্রাউন গার্লস ম্যাগাজিনটি সম্প্রতি বিশ্বের আপসহীন, নির্ভীক ও অদম্য নারীর তালিকার শীর্ষে স্থান দিয়েছে ১০ মুসলিম নারী নেত্রীকে।

 

পাঠকের জন্য তাদের খুঁটিনাটি তথ্য ক্রমানুসারে তুলে ধরা হলো-

 

১. বেনজির ভুট্টো
বিশ্বের নির্ভীক বা অদম্য মুসলিম নারীর তালিকায় শীর্ষে পাকিস্তানের প্রয়াত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টো। ‘ডটার অব ইস্ট’ খ্যাত বেনজির ভুট্টোর জন্ম জুন ২১ ১৯৫৩ করাচিতে। ২০০৭ সালের  ২৭ ডিসেম্বরে রাওয়ালপিন্ডিতে এক জনসভায় ভাষণদানকালে আততায়ীর গুলিতে নিহত হন। পাকিস্তানের একমাত্র নারী প্রধানমন্ত্রী তিনি। দু-দুবার (১৯৮৮-৯০ ও ১৯৯৩-৯৬) প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন তিনি। বাবা প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জুলফিকার আলী ভুট্টোর মৃত্যুর পর পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) হাল ধরেন তিনি। মুসলিম-বিশ্বের প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী। তিনি হার্ভার্ড ও অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাজনীতির ওপর পড়াশোনা করেন।

 

২. মেঘবতী সুকর্ণপুত্রী
মেঘবতী সুকর্ণপুত্রী ইন্দোনেশিয়ার পঞ্চম প্রেসিডেন্ট। জন্ম ২৩ জানুয়ারি ১৯৪৭ সালে। ইন্দোনেশিয়ার রাজনীতিবিদ এবং প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি, যিনি জুলাই ২০০১ থেকে ২০ অক্টোবর ২০০৪ সাল পর্যন্ত দেশের রাষ্ট্রপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনিই ইন্দোনেশিয়ার স্বাধীনতার পর প্রথম নারী রাষ্ট্রপতি এবং ইন্দোনেশিয়ায় জন্মগ্রহণকারী নেতা। ইন্দোনেশিয়ার প্রজাতান্ত্রিক পার্টির (পিডিআই) চেয়ারম্যান তিনি। দেশটির রাজনৈতিক অঙ্গনে তিনি গণতন্ত্রের মডেল হিসেবে পরিচিত।

 

৩. শেখ হাসিনা
২৮ সেপ্টেম্বর ১৯৪৭ সালে জন্ম শেখ হাসিনার। বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী। তিনি বাংলাদেশের ১০ম জাতীয় সংসদের সরকারদলীয় প্রধান এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী। বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতাসংগ্রামের প্রধান নেতা ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি সম্পন্ন করেন তিনি। তিন-তিনবার তিনি দেশের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন। বর্তমানে ‘লৌহমানবীর’ মতো দেশ শাসন করে চলেছেন শক্ত হাতে। ‘শান্তিরদূত’ হিসেবে খ্যাতিও মিলেছে তার।

 

৪. খালেদা জিয়া
খালেদা জিয়া (১৯৪৫ সালে জন্ম) বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) প্রধান। তিনি ১৯৯১-১৯৯৬ সাল এবং ২০০১-২০০৬ সাল পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি বাংলাদেশের প্রথম ও মুসলিম বিশ্বের দ্বিতীয় নারী প্রধানমন্ত্রী। তিনবার প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন তিনি। প্রয়াত প্রেসিডেন্ট জেনারেল জিয়াউর রহমানের মৃত্যুর পর দলের হাল ধরেন তিনি।

 

৫. আতিফিতে জাহজাগা
১৯৭৫ সালের ২০ এপ্রিল জন্ম নেওয়া আতিফিতে জাহজাগা কসোভোর বর্তমান প্রেসিডেন্ট। ৭ এপ্রিল ২০১১ সালে তিনি প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ শপথ গ্রহণ করেন। কসোভোর প্রথম নির্বাচিত নারী প্রেসিডেন্ট তিনি। বলকান অঞ্চলেরও প্রথম নির্বাচিত নারী প্রেসিডেন্ট তিনি। একইসঙ্গে বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ নির্বাচিত প্রেসিডেন্টের তালিকায় নিজের নাম লেখান তিনি। কসোভোর প্রিস্টিনা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইনে স্নাতক পাস করেন তিনি। এরপর যুক্তরাজ্য ও জার্মানির বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পুলিশ সায়েন্স ও অপরাধবিজ্ঞানের ওপর উচ্চতর ডিগ্রি নেন।

 

৬.তানসু সিলার
তুরস্কের প্রথম ও একমাত্র নারী প্রধানমন্ত্রী তানসু সিলার। শিক্ষাবিদ ও অর্থনীতিবিদ এই নারী ১৯৯৩-৯৬ পর্যন্ত তুরস্কের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের নিউ হ্যাম্পশায়ার থেকে এমএস ডিগ্রি গ্রহণ করেন। এ ছাড়া কানেকটিকাট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন তিনি। ২৪ রমে ১৯৪৬ সালে রাজধানী ইস্তাম্বুলে জন্মগ্রহণ করেন দেশটির জনপ্রিয় ওই নারী অর্থনীতিবিদ।

 

৭. মামি মাদিউর বোয়ে
মুসলিম নারী মামি মাদিউর বোয়ে ২০০১-২০০২ সাল পর্যন্ত সেনেগালের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। দেশটির প্রখ্যাত আইনজীবী হিসেবে তার খ্যাতি রয়েছে। আইন নিয়ে তিনি সেনেগালের রাজধানী ডাকার ও ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে  পড়াশোনা করেন। ১৯৪০ সালে আফ্রিকার দেশ সেনেগালের সেন্ট লুইসে জন্মগ্রহণ করেন তিনি।

 

৮. আমিনাতা তোরে
সেনেগালের দ্বিতীয় নারী প্রধানমন্ত্রী আমিনেতা তোরে। ১ সেপ্টেম্বর ২০১৩ থেকে ২০১৪ সালে ৪ জুলাই পর্যন্ত তিনি সেনেগালের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। ১২ অক্টোবর ১৯৬২ সালে তিনি সেনেগালের রাজধানী ডাকারে জন্মগ্রহণ করেন।

 

৯. সাইজি মরিয়ম কায়দামা সিদিবি
মালির এ মুসলিম নারী শিক্ষাবিদ অধ্যাপক সিদিবি নামে পরিচিত। শিক্ষাবিদ থেকে রাজনীতিবিদে পরিণত হয়ে মালির প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন ২০১১ সালে। তিনি ২০১১-১২ সাল পর্যন্ত মালির প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। সিদিবি মালির প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেশটির রাজনৈতিক ইতিহাসে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন। ১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারি সুদানের তিমবুকতুতে জন্মগ্রহণ করেন তিনি।

 

১০.আমিনা গারিব ফাকিম
মরিশাসের বর্তমান নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট আমিনা গারিব ফাকিম। তিনি হিন্দুপ্রধান দেশটির প্রথম নারী ও মুসলিম প্রেসিডেন্ট। আমিনা একই সঙ্গে রাষ্ট্র ও প্রতিরক্ষা প্রধানের দায়িত্ব পালন করেছেন। আমিনা ফিজিওথেরাপি গবেষণা সেন্টারের মহাপরিচালক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটি অব সারে ও ইউনিভার্সিটি অব এক্সটার থেকে পড়শোনা করা আমিনা মরিশাস বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের চেয়ারপারসনও ছিলেন। বিশ্বব্যাংকের বিভিন্ন পদেও তিনি কাজ করেছেন। ১৯ অক্টোবর ১৯৫৯ সালে মরিশাসের সুরিনামে জন্মগ্রহণ করা আমিনা ৫ জুন দেশটির প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন।