ঢাকা ১০:৩২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঈদ ঘিরে চাঙা রংপুরের রাজনীতি

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ১০:২০:৩০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ এপ্রিল ২০২৪
  • ২১ বার

ঈদুল ফিতরকে ঘিরে চাঙা হয়ে উঠেছে রংপুর জেলার রাজনীতি। ইতোমধ্যেই রোববার জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের সাত দিনের সফরে রংপুরে অবস্থান করছেন। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

সোমবার রংপুর জেলা ও মহানগর জাতীয় পার্টিসহ অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের সঙ্গে ইফতার করেন। রংপুরে অবস্থানকালে তিনি দলীয় ও সাধারণ মানুষের সঙ্গে কুশল বিনিময় করবেন। রংপুরের কালেক্টরেট মাঠের প্রধান ঈদের জামাতে তিনি নামাজ আদায় করবেন বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

এছাড়া সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী ও রংপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য টিপু মুনশি তার নির্বাচনি এলাকা পীরগাছা-কাউনিয়ায় অবস্থান করছেন। একইভাবে রংপুর-৫ আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য জাকির হোসেন সরকার এবং রংপুর-১ আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান বাবলু নিজ এলাকায় ঈদ উদযাপন করবেন। রংপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য ও স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এবং রংপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য আবুল কালাম মো. আসহানুল হক চৌধুরী ডিউক নিজ নির্বাচনি এলাকায় থাকবেন।

এদিকে প্রথম ধাপে দেশের ১৫২টি উপজেলা পরিষদে ৮ মে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। রংপুরের দুই উপজেলায় প্রথম ধাপের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে কাউনিয়া ও পীরগাছায়। বিভিন্ন মসজিদে ইফতার ও দোয়া মাহফিলে সম্ভাব্য প্রার্থীরা নিজেদের পরিচয় তুলে ধরে দোয়া চাইছেন। ঈদুল ফিতরকে ঘিরে তাদের তৎপরতা বেড়েছে কয়েকগুণ। সভা-সমাবেশ ও ইফতার মাহফিলসহ কেউ কেউ ঈদ উপলক্ষে মসজিদ-মাদ্রাসায় অনুদানও দিচ্ছেন। অনেকে দরিদ্রদের দিচ্ছেন ঈদ উপহারও। দান-খয়রাতের প্রবণতা বেড়ে গেছে। তারা বিভিন্ন উপায়ে ভোট চাইছেন। সব মিলিয়ে চাঙা হয়ে উঠেছে রংপুর সদরসহ জেলার আট উপজেলার রাজনীতির মাঠ।

কাউনিয়ায় চেয়ারম্যান পদে বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম মায়া, ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আব্দুর রাজ্জাক, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম দুলাল নির্বাচন করবেন। এছাড়া সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মাহফুজার রহমান মিঠু, আইনজীবী হুমায়ন কবির মুকুল, মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ, আব্দুল হালিমসহ কয়েকজনের নাম শোনা যাচ্ছে।

পীরগাছায় চেয়ারম্যান পদে যুবলীগের কেন্দ্রীয় সহসম্পাদক মনোয়ারুল ইসলাম মাসুদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি তসলিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ মিলন, উপজেলা যুবলীগের সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আরিফুল হক লিটন, রংপুর মহানগর জামায়াতে ইসলামীর আমির এটিএম আজম খান, তৈয়ব মিয়া প্রার্থী হবেন।

রংপুর সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগ মহানগর কমিটির আহ্বায়ক ডা. দেলোয়ার হোসেন, রংপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য ফিরোজ কবির চৌধুরী গুঞ্জন, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন বকসি, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও চন্দনপাট ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক উপদেষ্টা মফিজার রহমান রাজু, হরিদেবপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এমএম সাব্বির হোসেন, জামায়াতে ইসলামীর আব্দুল গণি নির্বাচন করবেন। গঙ্গাচড়ায় চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করবেন আওয়ামী লীগ থেকে বর্তমান চেয়ারম্যান রুহুল আমিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা জোনায়েত চৌধুরী, নোহালী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ টিটুল, উপজেলা শিক্ষা ও মানব কল্যাণ সম্পাদক আরিফুজ্জামান লিখন, ব্যবসায়ী কামেল সেরাফি রাজিব, বেতগাড়ি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান কামারুজ্জামান লিপ্টন, জামায়াতে ইসলামীর রায়হান সিরাজ।

বদরগঞ্জে সম্ভাব্য প্রার্থীরা হলেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ফজলে রাব্বী সুইট, বদরগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র উত্তম কুমার, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম, তারাগঞ্জ উপজেলায় বর্তমান চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান লিটন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান হারুনুর রশিদ বাবুল।

মিঠাপুকুরে সম্ভাব্য প্রার্থীরা হলেন আওয়ামী লীগ থেকে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক বাবু নিরঞ্জন মহন্ত, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি কামরুজ্জামান কামরু। জামায়াতে ইসলামীর মাওলানা এনামুল হক স্বতন্ত্রভাবে নির্বাচন করবেন বলে জানা গেছে।

পীরগঞ্জে আওয়ামী লীগ থেকে বর্তমান চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ মন্ডল, জেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক একেএম শায়াদত হোসেন বকুল, আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, জামায়াতে ইসলামীর মাওলানা নুরুল আমিন নির্বাচন করবেন। এর বাইরে স্বতন্ত্র ও বিভিন্ন দল থেকে দু-একজনের নাম শোনা যাচ্ছে।

এদিকে জাতীয় পার্টির সূত্রে জানা গেছে, প্রাথমিকভাবে গঙ্গাচড়ায় সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলার সাবেক সভাপতি সামছুল আলম, তারাগঞ্জে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান শাহিনুর রহমান মার্শাল, পীরগঞ্জে উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক নুর আলম যাদু, কাউনিয়ায় শাহিনুজ্জামান শাহিন, বদরগঞ্জে মোফাজ্জল হোসেন মাস্টার ও মাসুদ রানা, পীরগাছায় বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা কমিটির সভাপতি শাহ মাহবুবার রহমান, মিঠাপুকুরে আনিছুল ইসলাম আনিছ ও রংপুর সদরে সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মাসুদ নবী মুন্নাকে প্রাথমিকভাবে প্রার্থী হিসাবে মনোনীত করা হয়েছে। তবে স্থানীয় বিএনপি নেতা বা সমর্থিত কোনো সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম এখনো শোনা যায়নি।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

ঈদ ঘিরে চাঙা রংপুরের রাজনীতি

আপডেট টাইম : ১০:২০:৩০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৯ এপ্রিল ২০২৪

ঈদুল ফিতরকে ঘিরে চাঙা হয়ে উঠেছে রংপুর জেলার রাজনীতি। ইতোমধ্যেই রোববার জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের সাত দিনের সফরে রংপুরে অবস্থান করছেন। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

সোমবার রংপুর জেলা ও মহানগর জাতীয় পার্টিসহ অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের সঙ্গে ইফতার করেন। রংপুরে অবস্থানকালে তিনি দলীয় ও সাধারণ মানুষের সঙ্গে কুশল বিনিময় করবেন। রংপুরের কালেক্টরেট মাঠের প্রধান ঈদের জামাতে তিনি নামাজ আদায় করবেন বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

এছাড়া সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী ও রংপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য টিপু মুনশি তার নির্বাচনি এলাকা পীরগাছা-কাউনিয়ায় অবস্থান করছেন। একইভাবে রংপুর-৫ আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য জাকির হোসেন সরকার এবং রংপুর-১ আসনের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান বাবলু নিজ এলাকায় ঈদ উদযাপন করবেন। রংপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য ও স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এবং রংপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য আবুল কালাম মো. আসহানুল হক চৌধুরী ডিউক নিজ নির্বাচনি এলাকায় থাকবেন।

এদিকে প্রথম ধাপে দেশের ১৫২টি উপজেলা পরিষদে ৮ মে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। রংপুরের দুই উপজেলায় প্রথম ধাপের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে কাউনিয়া ও পীরগাছায়। বিভিন্ন মসজিদে ইফতার ও দোয়া মাহফিলে সম্ভাব্য প্রার্থীরা নিজেদের পরিচয় তুলে ধরে দোয়া চাইছেন। ঈদুল ফিতরকে ঘিরে তাদের তৎপরতা বেড়েছে কয়েকগুণ। সভা-সমাবেশ ও ইফতার মাহফিলসহ কেউ কেউ ঈদ উপলক্ষে মসজিদ-মাদ্রাসায় অনুদানও দিচ্ছেন। অনেকে দরিদ্রদের দিচ্ছেন ঈদ উপহারও। দান-খয়রাতের প্রবণতা বেড়ে গেছে। তারা বিভিন্ন উপায়ে ভোট চাইছেন। সব মিলিয়ে চাঙা হয়ে উঠেছে রংপুর সদরসহ জেলার আট উপজেলার রাজনীতির মাঠ।

কাউনিয়ায় চেয়ারম্যান পদে বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম মায়া, ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আব্দুর রাজ্জাক, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম দুলাল নির্বাচন করবেন। এছাড়া সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মাহফুজার রহমান মিঠু, আইনজীবী হুমায়ন কবির মুকুল, মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ, আব্দুল হালিমসহ কয়েকজনের নাম শোনা যাচ্ছে।

পীরগাছায় চেয়ারম্যান পদে যুবলীগের কেন্দ্রীয় সহসম্পাদক মনোয়ারুল ইসলাম মাসুদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি তসলিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ মিলন, উপজেলা যুবলীগের সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আরিফুল হক লিটন, রংপুর মহানগর জামায়াতে ইসলামীর আমির এটিএম আজম খান, তৈয়ব মিয়া প্রার্থী হবেন।

রংপুর সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগ মহানগর কমিটির আহ্বায়ক ডা. দেলোয়ার হোসেন, রংপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য ফিরোজ কবির চৌধুরী গুঞ্জন, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন বকসি, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও চন্দনপাট ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক উপদেষ্টা মফিজার রহমান রাজু, হরিদেবপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এমএম সাব্বির হোসেন, জামায়াতে ইসলামীর আব্দুল গণি নির্বাচন করবেন। গঙ্গাচড়ায় চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করবেন আওয়ামী লীগ থেকে বর্তমান চেয়ারম্যান রুহুল আমিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা জোনায়েত চৌধুরী, নোহালী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ টিটুল, উপজেলা শিক্ষা ও মানব কল্যাণ সম্পাদক আরিফুজ্জামান লিখন, ব্যবসায়ী কামেল সেরাফি রাজিব, বেতগাড়ি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান কামারুজ্জামান লিপ্টন, জামায়াতে ইসলামীর রায়হান সিরাজ।

বদরগঞ্জে সম্ভাব্য প্রার্থীরা হলেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ফজলে রাব্বী সুইট, বদরগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র উত্তম কুমার, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম, তারাগঞ্জ উপজেলায় বর্তমান চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান লিটন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান হারুনুর রশিদ বাবুল।

মিঠাপুকুরে সম্ভাব্য প্রার্থীরা হলেন আওয়ামী লীগ থেকে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক বাবু নিরঞ্জন মহন্ত, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি কামরুজ্জামান কামরু। জামায়াতে ইসলামীর মাওলানা এনামুল হক স্বতন্ত্রভাবে নির্বাচন করবেন বলে জানা গেছে।

পীরগঞ্জে আওয়ামী লীগ থেকে বর্তমান চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ মন্ডল, জেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক একেএম শায়াদত হোসেন বকুল, আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, জামায়াতে ইসলামীর মাওলানা নুরুল আমিন নির্বাচন করবেন। এর বাইরে স্বতন্ত্র ও বিভিন্ন দল থেকে দু-একজনের নাম শোনা যাচ্ছে।

এদিকে জাতীয় পার্টির সূত্রে জানা গেছে, প্রাথমিকভাবে গঙ্গাচড়ায় সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলার সাবেক সভাপতি সামছুল আলম, তারাগঞ্জে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান শাহিনুর রহমান মার্শাল, পীরগঞ্জে উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক নুর আলম যাদু, কাউনিয়ায় শাহিনুজ্জামান শাহিন, বদরগঞ্জে মোফাজ্জল হোসেন মাস্টার ও মাসুদ রানা, পীরগাছায় বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা কমিটির সভাপতি শাহ মাহবুবার রহমান, মিঠাপুকুরে আনিছুল ইসলাম আনিছ ও রংপুর সদরে সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মাসুদ নবী মুন্নাকে প্রাথমিকভাবে প্রার্থী হিসাবে মনোনীত করা হয়েছে। তবে স্থানীয় বিএনপি নেতা বা সমর্থিত কোনো সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম এখনো শোনা যায়নি।