,

যেভাবে বিকশিত হচ্ছে সুকুকের আন্তর্জাতিক বাজার-1631505799-featured_images

১৭৪ কোটি টাকা মুনাফা দেবে সুকুক

হাওর বার্তা ডেস্কঃ শেয়ারহোল্ডার অর্থাৎ ইউনিটহোল্ডারদের ১৭৪ কোটি টাকা মুনাফা দেবে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বেক্সিমকো গ্রিন সুকুক লিমিটেড আল ইসতিসনাহ। ২৩ ডিসেম্বর ২০২১ থেকে আগামী ২২ জুন ২০২২ সালের সমাপ্ত দ্বিতীয় প্রান্তিকের সম্ভাব্য হিসাব ধরে এ মুনাফা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইস্যুর ট্রাস্টি ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশের (আইসিবি) ট্রাস্টি কমিটি।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বেক্সিমকো গ্রিন-সুকুক ট্রাস্টির উপ-মহাব্যবস্থাপক গোলাম মোস্তফা। তিনি বলেন, ছয় মাসে জন্য মুনাফা বাবদ বেক্সিমকোর সুকুকধারকদের ১৭৪ কোটি টাকা দেওয়া হবে। সে হিসাবে সুকুকের ইউনিটহোল্ডাররা ৫ দশমিক ৮ শতাংশ করে মুনাফা পাচ্ছেন। এ লক্ষ্যে সুকুকের রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ২২ জুন।

প্রতিটি সুকুকের ফেসভ্যালু ১০০ টাকা। চলতি বছর লেনদেন শুরু হওয়া সুকুকের শেয়ার বৃহস্পতিবার সর্বশেষ লেনদেন হয়েছে ৮৭ টাকা ৫০ পয়সায়। প্রতিষ্ঠানটির পরিশোধিত মূলধন ৩ হাজার কোটি টাকা।

কোম্পানির তথ্য মতে, প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে টাকা উত্তোলনের সময় বেক্সিমকোর সুকুক থেকে বলা হয়, সুকুক বন্ডটির ভিত্তি মুনাফা হবে কমপক্ষে ৯ শতাংশ। এর বাইরে সুকুকটি অংশগ্রহণমূলক হওয়ায় বেক্সিমকো লিমিটেডের ঘোষিত লভ্যাংশের সঙ্গে সুকুকের মুনাফার যে ফারাক থাকবে, তার ১০ শতাংশ অতিরিক্ত মুনাফা হিসেবে যুক্ত হবে। বেক্সিমকো লিমিটেড ২০ শতাংশ লভ্যাংশ ঘোষণা করলে সুকুকের নিশ্চিত মুনাফার সঙ্গে ফারাক হয় ১১ শতাংশ। এর ১০ শতাংশ হলো ১ দশমিক ১০ শতাংশ।

 একই পদ্ধতিতে দ্বিতীয় বছরে ১০ দশমিক ৬০ এবং তৃতীয় বছরে ১১ দশমিক ১০ শতাংশ মুনাফা প্রাক্কলন করা হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে সুকুকের যেই অংশ বেক্সিমকো লিমিটেডের শেয়ারে রূপান্তরিত হবে, সেটুকুর ক্যাপিটাল গেইন যোগ করলে মুনাফার হার আরও বাড়বে।
Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর