,

herbal-tea-2204250258

চায়ের সঙ্গে যে খাবারগুলো ভুলেও খাবেন না

হাওর বার্তা ডেস্কঃ এমন অনেকেই আছেন যারা দিন শুরু করেন চা দিয়ে। যা সহজেই শরীর চাঙা করে দেয়। শুধু তাই নয়, আর সন্ধ্যার আড্ডাও জমিয়ে দিতে পারে কেবল এক কাপ চা-ই।

আবার মাথা ধরা, দুর্বলতা ও ক্লান্তি মেটানোর ওষুধও এই এক কাপ চা। সারা দিনের কাজের ফাঁকে কত কাপ চা যে খাওয়া হয়, তার হিসাব রাখা মুশকিল। সঙ্গে কখনো কখনো চপ, পাকোড়া, নিমকি, সিঙাড়া- এগুলো তো থাকেই।

কিন্তু আপনি জানেন কি, চায়ের সঙ্গে যেসব খাবার আমরা তৃপ্তি করে খাই সেগুলোই স্বাস্থ্যের মারাত্মক ক্ষতি করে। নিজেদের অজান্তেই চায়ের সঙ্গে আমরা এমন অনেক খাবার খেয়ে থাকি, যা স্বাস্থ্যের পক্ষে বেশ ক্ষতিকারক। জেনে নিন, কোন কোন খাবার ভুলেও চায়ের সঙ্গে খাওয়া উচিত নয় –

আয়রন সমৃদ্ধ সবজি

আয়রন সমৃদ্ধ খাবার চায়ের সঙ্গে একেবারেই খাওয়া ঠিক নয়। কারণ এতে ট্যানিন এবং অক্সালেট থাকে, যা আয়রনযুক্ত খাবার থেকে আয়রন শোষণে বাধা দেয়। তাই বিভিন্ন বাদাম, সবুজ শাকসবজি, শস্য, মসুর ডালের মতো আয়রন-সমৃদ্ধ খাবার চায়ের সঙ্গে না খাওয়াই ভালো।

লেবু

লেবু চা আমরা সকলেই পছন্দ করি। ওজন কমানোর পানীয় হিসেবে বেশ জনপ্রিয় এই চা। কিন্তু চায়ের সঙ্গে লেবু শরীরের জন্য বেশ ক্ষতিকারক। লেবুর রসের সঙ্গে চা পাতা মিলিত হলে চা অ্যাসিডিক প্রকৃতির হয়ে উঠতে পারে এবং এটি খেলে পেট ফুলে থাকতে পারে। সকালে খালি পেটে লেবু চা পান করলে অ্যাসিড রিফ্লাক্স এবং অম্বলের মতো সমস্যাও হতে পারে।

বেসন

চপ, পাকোড়া বা নোনতা খাবারের সঙ্গে এক কাপ চা, এ যেন এক স্বর্গীয় সুখ! বিশেষ করে বিকেলের চায়ের আড্ডায় প্লেট ভর্তি বেসনের তৈরি ভাজাভুজি না হলে আমরা যেন ঠিক তৃপ্তি পাই না। কিন্তু এই কম্বিনেশন স্বাস্থ্যের জন্য বিরাট ক্ষতি করতে পারে। চায়ের সঙ্গে বেসন জাতীয় খাদ্য খাওয়ার ফলে হজমের সমস্যা হতে পারে এবং খাদ্য থেকে পুষ্টি শোষণে বাধা দেয়।

হলুদ

চা পানের সময় হলুদযুক্ত খাবার এড়িয়ে চলুন। কারণ এতেও গ্যাস, অ্যাসিডিটি বা কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো পেটের সমস্যা হতে পারে। হলুদ এবং চা পাতা একে অপরের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়।

ঠান্ডা খাবার

গরম চায়ের সঙ্গে কখনই ঠান্ডা খাবার খাবেন না, এতে হজমের সমস্যা হতে পারে। বিভিন্ন তাপমাত্রার খাবার একসঙ্গে খাওয়া হলে হজম প্রক্রিয়া দুর্বল হয়ে পড়তে পারে এবং বমি বমি ভাবও দেখা দিতে পারে। তাই গরম চা পান করার অন্তত ৩০ মিনিট পর ঠান্ডা খাবার খাওয়াই ভালো।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর