,

34

২০২০ সালের সেরা ১০ স্মার্টফোন

 

হাওর বার্তা ডেস্কঃ করোনার কারণে কার্যত ২০২০ সাল থমকে ছিল। কিন্তু তারপরও প্রযুক্তির বাজারে উত্থান ঘটেছে। বাজারে এসেছে নিত্যনতুন ফোন। একনজরে দেখে নেওয়া যাক ২০২০ সালের সেরা ১০ স্মার্টফোন সম্পর্কে।

ওয়ানপ্লাস ৮ প্রো 

ওয়ানপ্লাস ৮ প্রো ফোনে ৬.৭ ইঞ্চির কিউএইচডি প্লাস ফ্লুইড অ্যামোলেড ডিসপ্লেসহ অক্টোকোর স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্রসেসর রয়েছে। যা পেয়ার করা থাকছে ১২ জিবি র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজের সঙ্গে।

অ্যানড্রয়েড ১০ ভিত্তিক অক্সিজেন ওএস ১০.০ পরিচালিত এই ফোনে ইন-ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর, একটি ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট এবং ৪৫১০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ারের ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে। এতে ৩০ ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করে। কোয়াড ক্যামেরা সেটআপের এই ফোনে ৪৮ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি সেন্সর রয়েছে। যাতে সনি আইএমএক্স ৬৮৯ প্রসেসরসহ আরও নানাবিধ ফিচার্স রয়েছে।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস২০ আল্ট্রা

স্যামসাংয়ের এখনও অবধি সেরা ক্যামেরা সেটআপ এই ফোনেই দেওয়া হয়েছে। ১০৮ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি ক্যামেরা সেটআপের এই ফোনে ১০০ এক্স জুম ব্যবহার করা হয়েছে। আছে ৮কে ভিডিও রেকর্ডিং সাপোর্ট-সহ অত্যধুনিক প্রযুক্তির নাইট-মোড ক্যামেরা ইফেক্টস। ফোনটিতে এক্সিনোস ৯৯০ প্রসেসর, ৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের শক্তিশালী ব্যাটারি দেয়া হয়েছে।

​অ্যাপল আইফোন এসই ২০২০

সাশ্রয়ী দামের এই ফোনে রয়েছে ৪.৭ ইঞ্চির এইচডি রেটিনা ডিসপ্লে, শক্তিশালী অ্যাপল এ ১৩ বায়োনিক প্রসেসর। যা পেয়ার করা থাকছে ৬৪ জিবি, ১২৮ জিবি এবং ২৫৬ জিবি মেমোরি ক্যাপাসিটির সঙ্গে। ডুয়াল সিম সাপোর্টের এই ফোনে একটি ১২ মেগাপিক্সেলের রিয়ার ক্যামেরা এবং সামনে ৭ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা রয়েছে। আইফোন এসই ২০২০ মডেলে আইপি৬৭ ওয়াটার অ্যান্ড ডাস্ট রেজিস্ট্যান্ট বিল্ড, একটি টাচআইডি ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর এবং কিউআই ওয়্যারলেস চার্জিংসহ ১৮ ওয়াটের ফাস্ট-চার্জিং সাপোর্ট দিতে সক্ষম এমন ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে।

​মটোরোলা এজ প্লাস

হাই-এন্ড ডিজাইনের এই ফোনে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্রসেসর রয়েছে। এই চিপসেট আবার পেয়ার করা থাকছে ১২ জিবি র‌্যাম এবং ২৫৬ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজের সঙ্গে। কার্ভড ডিসপ্লে ফিচার্সের এই হ্যান্ডসেটে ১০৮ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি ক্যামেরার সঙ্গে দুটি সেকেন্ডারি ক্যামেরাও দেওয়া হয়েছে।

​স্যামসাং গ্যালাক্সি এ৫১

এই ফোনে ৬.৫ ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস ইনফিনিটি ও সুপার ডিসপ্লে রয়েছে। যার পিক্সেল রেজোলিউশন ২৪০০x১০৮৯। অক্টাকোর এক্সিনোস ৯৬১১ প্রসেসরের এই স্মার্টফোনে ৬ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ দেয়া হয়েছে। কোয়াড রিয়ার ক্যামেরা সেটআপের এই ফোনে ৪৮ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি সেন্সর, একটি ১২ মেগাপিক্সেলের আলট্রা ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স-সহ একটি ৫ মেগাপিক্সেলের ডেপথ সেন্সর এবং আর একটি ৫ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো লেন্সও দেওয়া হয়েছে। ফোনটিতে ৪০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি রয়েছে।

​রেডমি নোট ৯ প্রো ম্যাক্স

দুর্ধর্ষ এই ফোনে ৬.৬৭ ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস ডিসপ্লে রয়েছে, যাতে সুরক্ষার জন্য গরিলা গ্লাস ৫ থাকছে। হার্ডওয়্যারের দিক থেকে এই রেডমি মডেলে অক্টাকোর স্ন্যাপড্রাগন ৭২০জি প্রসেসর দেওয়া হয়েছে। ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজের এই ফোনে ৫০২০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ারের ব্যাটারি থাকছে, যা ৩৩ ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করবে।

অ্যানড্রয়েড ১০ ভিত্তিক মিইউআই ১১ ইন্টারফেস চালিত ফোনটিতে কোয়াড ক্যামেরা সেটআপ রয়েছে। যার প্রাইমারি সেন্সর ৬৪ মেগাপিক্সেলের। এছাড়াও এতে একটি ৩২ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরাও থাকছে।

​রিয়েলমি ৬ প্রো

মিডরেঞ্জের এই স্মার্টফোনে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৭২০জি মডেলের চিপসেট দেওয়া হয়েছে। কোয়াড-রিয়ার ক্যামেরা সেটআপের এই ফোনে ৬৪ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি সেন্সর রয়েছে। ফোনটির সবথেকে আকর্ষণীয় ফিচার হল, এর ডুয়াল সেলফি ক্যামেরা সেটআপ: একটি ৮ মেগাপিক্সেলের এবং অপরটি ১৬ মেগাপিক্সেলের। এর ব্যাটারি ৪৩০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ারের।

অপো এফ১৫

সাশ্রয়ী দামের এই স্মার্টফোনে ৬.৪ ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস অ্যামোলিড ডিসপ্লে রয়েছে। এই নতুন মডেলে অক্টাকোর মিডিয়াটেক হেলিও পি৭০ প্রসেসর দেয়া হয়েছে। যা পেয়ার করা থাকছে ৮জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ স্পেসের সঙ্গে।

অ্যানড্রয়েড ৯ পাই ভিত্তিক কালারওএস ৬.১ চালিত ফোনটিতে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরও রয়েছে। ক্যামেরার দিক থেকে অপো এফ ১৫ এ একটি ৪৮ মেগাপিক্সেলের কোয়াড-ক্যামেরা মডিউল থাকছে। এছাড়াও থাকছে ১৬ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা। ৪০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ারের ফোনটিতে ভোক ৩.০ ফ্ল্যাশ চার্জ সাপোর্ট করে।

পেকো এক্স ২

অনবদ্য এই স্মার্টফোনে রয়েছে ৬.৬৭ ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস রিয়ালিটি ফ্লো এলসিডি ডিসপ্লে। যার রিফ্রেশ রেট ১২০ হার্জ। হার্ডওয়্যার হিসেবে এই পোকো মডেলে অক্টোকোর স্ন্যাপড্রাগন ৭৩০জি প্রসেসর, ৮ জিবি র‌্যাম এবং ২৫৬ জিবি স্টোরেজ অপশন থাকছে।

ফোনটি অ্যানড্রয়েড ১০ ভিত্তিক এমআইইউ ১১ ইউজার ইন্টারফেস দেয়া হয়েছে। ব্যাকআপের জন্য ডিভাইসটিতে ৪৫০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি সংযোজন করা হয়েছে। এই হ্যান্ডসেট ২৭ ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করে। ফটোগ্রাফির জন্য কোয়াড-ক্যামেরা সেটআপের এই মডেলে ৬৪ মেগাপিক্সেল, ৮ মেগাপিক্সেল এবং ২ মেগাপিক্সেলের সেন্সর রয়েছে।

ভিভো এস১ প্রো

ভিভোর একেবারে নতুন এই স্মার্টফোনে ৬.৩৮ ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস সুপার অ্যামোলিড ডিসপ্লে রয়েছে। যার অ্যাসপেক্ট রেশিও ১৯:৫:৯। ফোনটিতে অক্টাকোর স্ন্যাপড্রাগন ৬৬৫ প্রসেসর দেওয়া হয়েছে। যা পেয়ার করা থাকবে ৮ জিবি র‌্যাম এবং ১২৮ জিবি স্টোরেজ স্পেসের সঙ্গে।

ফোনটি চলবে অ্যানড্রয়েড ৯ পাই ভিত্তিক ফানটাচ ওএস ৯.২ ভার্সনে। কোয়াড-রিয়ার ক্যামেরা সেটআপের এই ফোনে ৪৮ মেগাপিক্সেল, ৮ মেগাপিক্সেল, ২ মেগাপিক্সেল এবং ২ মেগাপিক্সেলের সেন্সর রয়েছে। ৩২ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরার ভিভো এস১ প্রো স্মার্টফোনে ৪৫০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ারের ব্যাটারি রয়েছে, যা ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করে।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর