,

images (3)

হিরো আলমের সঙ্গে অন্যরা সিনেমা মুক্তি দিচ্ছেন না কেন

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ দেশের প্রেক্ষাগৃহে প্রতি শুক্রবার নতুন সিনেমা মুক্তি পেয়ে থাকে। ঈদ উৎসব ছাড়া একসঙ্গে দুইয়ের অধিক সিনেমা মুক্তির অনুমতি দেওয়া হয় না। যে কারণে অন্যান্য সময় সিনেমা মুক্তি নিয়ে কাড়াকাড়ি লেগে যায়।

করোনার কারণে গত মার্চ থেকে সিনেমা হল বন্ধ রয়েছে। আগামী ১৬ অক্টোবর প্রেক্ষাগৃহ খোলার অনুমতি দিয়েছে সরকার। হিরো আলম ঘোষণা দিয়েছেন, এদিন মুক্তি পাবে তার অভিনীত ‘সাহসী হিরো আলম’ সিনেমাটি। এরই মধ্যে সিনেমাটির প্রচারও শুরু করেছেন তিনি।

হিরো আলম অভিনীত এই সিনেমা ছাড়া নতুন আর কোনো সিনেমার নাম এখনো কেউ ঘোষণা করেননি। কিন্তু কেন? এমন প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে এ প্রতিবেদক বাংলাদেশ প্রযোজক ও পরিবেশক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরুর সঙ্গে কথা বলেছেন।

খোরশেদ আলম খসরু রাইজিংবিডিকে বলেন, আমরা তো সিনেমা মুক্তি দিতেই চাচ্ছি। কিন্তু লোকসান করে তো কেউ সিনেমা মুক্তি দেবে না। এক সিট ফাঁকা রেখে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সিনেমা হল চলবে। এতে স্বাভাবিকভাবে দর্শক কম হবে। হল মালিকরা এখন প্রযোজকদের চাহিদামতো রেট দিলে অবশ্যই প্রযোজক সিনেমা মুক্তি দেবেন। আমার মনে হয় এই মুহূর্তে বড় বাজেটের সিনেমা মুক্তি দেওয়া উচিত। দর্শক হলে ফেরাতে হলে ‘মিশন এক্সট্রিম’-এর মতো সিনেমা মুক্তি দিতে হবে। কেউ ৩ কোটি টাকা খরচ করে ৫০ হাজার টাকায় হলে সিনেমা দেবে? বিষয়টি নিয়ে বারবার গলা ফাটিয়েছি। কিন্তু কেউ কর্ণপাত করেননি। করোনাকালে পুরোনো সিনেমা প্রদর্শন করলে তা হবে আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত।

এই সংকট কাটিয়ে উঠার জন্য হল মালিক ও প্রযোজকদের একসঙ্গে বসার আহ্বান জানিয়েছেন খসরু।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম, গণমাধ্যম সর্বত্র আলোচিত ও সমালোচিত অভিনেতা হিরো আলম। মিউজিক ভিডিওর পাশাপাশি বেশ কয়েকটি টেলিফিল্মে অভিনয় করেছেন তিনি। নিজের প্রযোজনায় নির্মাণ করেছেন ‘সাহসী হিরো আলম’ নামে চলচ্চিত্র। এখন পর্যন্ত শুধু হিরো আলমের সিনেমাই মুক্তির তালিকায় রয়েছে। অর্থাৎ এখনো তার কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী নেই!

 ‘সাহসী হিরো আলম’ সিনেমায় হিরো আলমের বিপরীতে অভিনয় করেছেন— সাকিরা মৌ, রাবিনা বৃষ্টি ও নুসরাত জাহান। এছাড়াও অভিনয় করেছেন আমির সিরাজী, তনু পাণ্ডে, রেহেনা জলি, নিরাঞ্জন গুলজার, কালা আজিজ প্রমুখ। সিনেমাটি পরিচালনা করছেন এ আর মুকুল নেতৃবাদি। গল্প লিখেছেন পিজি মোস্তফা। চিত্রনাট্য করেছেন দেলোয়ার জাহান ঝন্টু।গাজীপুর, পুবাইল, রাঙ্গামাটি ও বান্দরবানের বিভিন্ন স্থানে সিনেমার শুটিং সম্পন্ন হয়েছে।
Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর