ঢাকা ১১:৫৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিস্ময়কর বালিকা, ৭ মাসেই কোরআনে হাফেজ

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ১০:২৫:১০ অপরাহ্ন, বুধবার, ১১ নভেম্বর ২০১৫
  • ২৮৮ বার

বিস্ময়ের সৃষ্টি করেছে হাফেজা আদিবা তাসনিম। কেননা, মাত্র সাড়ে ছয় বছর বয়সে মাত্র সাত মাসেই পবিত্র আল কোরআন হেফজ করেছে সে। যাত্রাবাড়ীর হাফেজ কারী নেছার আহমাদ আন নাছিরী পরিচালিত মারকাজুত তাহফিজ ইন্টারন্যাশনাল মাদরাসা থেকে সে আল কোরআনে হাফেজ হয়েছে। আদিবা এখন একই মাদরাসায় ভাষাশিক্ষা কোর্সে অধ্যয়ন করছে।ইতোমধ্যে এ অনন্য কৃতিত্বের জন্য সে ও তার শিক্ষকদের ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। হাফেজা আদিবার বাবা হাফেজ মাওলানা নাছিরুদ্দীন খান এবং মা হেলেনা আক্তার। হাফেজ নেছার আহমাদ আন নাছিরী জানান, তার মাদরাসার শিক্ষার্থীরা সৌদি আরব, মিসর, আলজেরিয়া, লিবিয়া, ইরান, দুবাই ও জর্ডানে একাধিকবার বিশ্বকেরাত প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের সম্মান সমুজ্জ্বল করেছে। জাতীয়পর্যায়ে অনুষ্ঠিত বাংলাভিশন, এনটিভি, আরটিভি, মাছরাঙা টিভিতে মাহে রমজানে প্রচারিত হিফজুল কুরআন প্রতিযোগিতায় বিশেষ কৃতিত্ব দেখিয়েছে। ২০১০ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত এনটিভিতে হাফেজ ফাহিম প্রথম স্থান, অন্ধ হাফেজ তানভীর দ্বিতীয় স্থান, হাফেজ এহসান উল্লাহ দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে। বাংলাভিশনে হাফেজ এমদাদুল্লাহ দ্বিতীয়, আর টিভিতে প্রথম, মাছরাঙা টিভিতে হাফেজ হুসাইন প্রথম ও হাফেজ তরিকুল ইসলাম দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে, যার স্বীকৃতিস্বরূপ বাংলাদেশ ও সৌদি সরকার এবং কওমি মাদরাসা শিা বোর্ড (বেফাক) শ্রেষ্ঠ শিাপ্রতিষ্ঠানের অ্যাওয়ার্ড তুলে দেন প্রতিষ্ঠাতা প্রিন্সিপাল হাফেজ কারী নেছার আহমাদ আন নাছিরীর হাতে।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

বিস্ময়কর বালিকা, ৭ মাসেই কোরআনে হাফেজ

আপডেট টাইম : ১০:২৫:১০ অপরাহ্ন, বুধবার, ১১ নভেম্বর ২০১৫

বিস্ময়ের সৃষ্টি করেছে হাফেজা আদিবা তাসনিম। কেননা, মাত্র সাড়ে ছয় বছর বয়সে মাত্র সাত মাসেই পবিত্র আল কোরআন হেফজ করেছে সে। যাত্রাবাড়ীর হাফেজ কারী নেছার আহমাদ আন নাছিরী পরিচালিত মারকাজুত তাহফিজ ইন্টারন্যাশনাল মাদরাসা থেকে সে আল কোরআনে হাফেজ হয়েছে। আদিবা এখন একই মাদরাসায় ভাষাশিক্ষা কোর্সে অধ্যয়ন করছে।ইতোমধ্যে এ অনন্য কৃতিত্বের জন্য সে ও তার শিক্ষকদের ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। হাফেজা আদিবার বাবা হাফেজ মাওলানা নাছিরুদ্দীন খান এবং মা হেলেনা আক্তার। হাফেজ নেছার আহমাদ আন নাছিরী জানান, তার মাদরাসার শিক্ষার্থীরা সৌদি আরব, মিসর, আলজেরিয়া, লিবিয়া, ইরান, দুবাই ও জর্ডানে একাধিকবার বিশ্বকেরাত প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের সম্মান সমুজ্জ্বল করেছে। জাতীয়পর্যায়ে অনুষ্ঠিত বাংলাভিশন, এনটিভি, আরটিভি, মাছরাঙা টিভিতে মাহে রমজানে প্রচারিত হিফজুল কুরআন প্রতিযোগিতায় বিশেষ কৃতিত্ব দেখিয়েছে। ২০১০ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত এনটিভিতে হাফেজ ফাহিম প্রথম স্থান, অন্ধ হাফেজ তানভীর দ্বিতীয় স্থান, হাফেজ এহসান উল্লাহ দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে। বাংলাভিশনে হাফেজ এমদাদুল্লাহ দ্বিতীয়, আর টিভিতে প্রথম, মাছরাঙা টিভিতে হাফেজ হুসাইন প্রথম ও হাফেজ তরিকুল ইসলাম দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে, যার স্বীকৃতিস্বরূপ বাংলাদেশ ও সৌদি সরকার এবং কওমি মাদরাসা শিা বোর্ড (বেফাক) শ্রেষ্ঠ শিাপ্রতিষ্ঠানের অ্যাওয়ার্ড তুলে দেন প্রতিষ্ঠাতা প্রিন্সিপাল হাফেজ কারী নেছার আহমাদ আন নাছিরীর হাতে।