ঢাকা ০৫:৩৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সুইডেন সরকারের বৃত্তি পেতে আবেদন করুন

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ১০:৫৩:৩১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২ নভেম্বর ২০১৫
  • ৩৩৯ বার

দ্য সুইডিশ ইনস্টিটিউট স্টাডি স্কলারশিপস (এসআইএসএস) সংক্ষেপে আইএস স্কলারশিপ নামে পরিচিত। এই স্কলারশিপের আবেদন করতে হবে ডিসেম্বরে। প্রস্তুতির সময় এখনই। গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো সংক্ষেপে লিংকসহ নিচে উল্লেখ করা হলো।

১. এই স্কলারশিপ দেওয়া হয় স্নাতকোত্তর পড়ালেখার জন্য। দুই বছরের (চার সেমিস্টার) জন্য বৃত্তি দেওয়া হবে। প্রথমে এক বছরের (দুই সেমিস্টার) বৃত্তি দেওয়া হয়। পরবর্তী সময়ে কোর্স ও সেমিস্টারের অগ্রগতির ওপর ভিত্তি করে দ্বিতীয় বছরের বৃত্তি দেওয়া হয়। কারণ অনেকে যথাসময়ে কোর্স ও পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করতে ব্যর্থ হয়। প্রতি মাসে নয় হাজার সুইডিশ ক্রোনা বৃত্তি দেওয়া হয়। ভ্রমণের জন্য এককালীন ১৫ হাজার সুইডিশ ক্রোনা।

২. বাংলাদেশের জন্য কতটি স্কলারশিপ দেওয়া হবে সেটা উল্লেখ করা থাকে না।

৩. আবেদনের প্রথম ধাপেই একটি সাইট সম্পর্কে খুব ভালো করে জেনে নিতে হবে। সাইটটি হলো https://www.universityadmissions.se ; এখান থেকেই শুরু করতে হবে। প্রথমেই এই সাইটে একটি অ্যাকাউন্ট করতে হবে। এটা আবশ্যক। নিজ নিজ অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে আবেদনসহ সব ধরনের তথ্যাদি পাঠাতে হবে হবে।

৪. আবেদন করতে হবে দুই ধাপে। প্রথম ধাপে আবেদনের সময় চলবে ডিসেম্বরের ১ তারিখ থেকে ১৫ তারিখ পর্যন্ত। প্রথম ধাপে নির্বাচিত হলে দ্বিতীয় ধাপে আবেদন করতে হবে ফেব্রুয়ারির ১ থেকে ১৩ তারিখের মধ্যে। যাঁরা বৃত্তি পাবেন, তাঁদের নাম প্রকাশ করা হবে এপ্রিলে। নির্বাচিতদের আলাদা ই-মেইল করেও জানানো হবে। সেশন শুরু হবে আগামী বছরের আগস্ট মাস থেকে।

৫. প্রথম ধাপে উত্তীর্ণ হলে দ্বিতীয় পর্যায়ে আবেদনের আগে আবেদন ফি বাবদ ৯০০ (নয়শত) সুইডিশ ক্রোনা দিতে হবে। ব্যক্তিগত ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড না থাকলেও ব্যাংকের মাধ্যমে আবেদনের টাকা পে/ট্রান্সফার করা যাবে।

৬. চারটি ডকুমেন্ট প্রস্তুত রাখতে হবে এখনই : মোটিভেশন লেটার/কাভার লেটার (Motivation Letter), CV, দুটি রেফারেন্স লেটার, পাসপোর্ট (স্ক্যান)।

৭. CV হতে হবে ইউরোপিয়ান ফরম্যাটে। যেটা বলা হয় ইউরোপাস (Europass); এই ফরম্যাটে সিভি তৈরির জন্য অনুসরণ করুন এই লিংক: https://europass.cedefop.europa.eu/en/documents/curriculum-vitae

৮. মোটিভেশন লেটার এবং রেফারেন্স লেটারের ফরম্যাট নিজের ইচ্ছেমতো হলে হবে না। সেটার জন্যও নির্দিষ্ট ফরম্যাট (SI format) অনুসরণ করতে হবে। নির্দিষ্ট ফরম্যাট খুঁজে নিন এই লিংকে : https://eng.si.se/?s=Motivation+letter&submit=Search

৯. IELTS/TOFEL ছাড়াও অনেক প্রোগ্রামেই আবেদন করা যায়। সে ক্ষেত্রে আপনার স্টাডি অব মিডিয়াম (স্নাতক/স্নাতকোত্তর) ইংরেজিতে হতে হবে এবং সেটির প্রমাণ লাগবে। বিভাগের প্রধান কর্তৃক স্বাক্ষরিত পত্রের মাধ্যমে সেটি নিশ্চিত করা যেতে পারে।

১০. বৃত্তি পেতে হলে কমপক্ষে দুই বছরের কাজের অভিজ্ঞতা প্রয়োজন। কর্ম-অভিজ্ঞতা শুধু চাকরি নয়; বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী কাজ, ইন্টার্নশিপ কিংবা সামাজিক বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে লিডারশিপও হতে পারে।

১১. এসআই স্কলারশিপ-বিষয়ক বিস্তারিত আরো জানতে হলে অনুসরণ করতে হবে যে লিংক :

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

সুইডেন সরকারের বৃত্তি পেতে আবেদন করুন

আপডেট টাইম : ১০:৫৩:৩১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২ নভেম্বর ২০১৫

দ্য সুইডিশ ইনস্টিটিউট স্টাডি স্কলারশিপস (এসআইএসএস) সংক্ষেপে আইএস স্কলারশিপ নামে পরিচিত। এই স্কলারশিপের আবেদন করতে হবে ডিসেম্বরে। প্রস্তুতির সময় এখনই। গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো সংক্ষেপে লিংকসহ নিচে উল্লেখ করা হলো।

১. এই স্কলারশিপ দেওয়া হয় স্নাতকোত্তর পড়ালেখার জন্য। দুই বছরের (চার সেমিস্টার) জন্য বৃত্তি দেওয়া হবে। প্রথমে এক বছরের (দুই সেমিস্টার) বৃত্তি দেওয়া হয়। পরবর্তী সময়ে কোর্স ও সেমিস্টারের অগ্রগতির ওপর ভিত্তি করে দ্বিতীয় বছরের বৃত্তি দেওয়া হয়। কারণ অনেকে যথাসময়ে কোর্স ও পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করতে ব্যর্থ হয়। প্রতি মাসে নয় হাজার সুইডিশ ক্রোনা বৃত্তি দেওয়া হয়। ভ্রমণের জন্য এককালীন ১৫ হাজার সুইডিশ ক্রোনা।

২. বাংলাদেশের জন্য কতটি স্কলারশিপ দেওয়া হবে সেটা উল্লেখ করা থাকে না।

৩. আবেদনের প্রথম ধাপেই একটি সাইট সম্পর্কে খুব ভালো করে জেনে নিতে হবে। সাইটটি হলো https://www.universityadmissions.se ; এখান থেকেই শুরু করতে হবে। প্রথমেই এই সাইটে একটি অ্যাকাউন্ট করতে হবে। এটা আবশ্যক। নিজ নিজ অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে আবেদনসহ সব ধরনের তথ্যাদি পাঠাতে হবে হবে।

৪. আবেদন করতে হবে দুই ধাপে। প্রথম ধাপে আবেদনের সময় চলবে ডিসেম্বরের ১ তারিখ থেকে ১৫ তারিখ পর্যন্ত। প্রথম ধাপে নির্বাচিত হলে দ্বিতীয় ধাপে আবেদন করতে হবে ফেব্রুয়ারির ১ থেকে ১৩ তারিখের মধ্যে। যাঁরা বৃত্তি পাবেন, তাঁদের নাম প্রকাশ করা হবে এপ্রিলে। নির্বাচিতদের আলাদা ই-মেইল করেও জানানো হবে। সেশন শুরু হবে আগামী বছরের আগস্ট মাস থেকে।

৫. প্রথম ধাপে উত্তীর্ণ হলে দ্বিতীয় পর্যায়ে আবেদনের আগে আবেদন ফি বাবদ ৯০০ (নয়শত) সুইডিশ ক্রোনা দিতে হবে। ব্যক্তিগত ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড না থাকলেও ব্যাংকের মাধ্যমে আবেদনের টাকা পে/ট্রান্সফার করা যাবে।

৬. চারটি ডকুমেন্ট প্রস্তুত রাখতে হবে এখনই : মোটিভেশন লেটার/কাভার লেটার (Motivation Letter), CV, দুটি রেফারেন্স লেটার, পাসপোর্ট (স্ক্যান)।

৭. CV হতে হবে ইউরোপিয়ান ফরম্যাটে। যেটা বলা হয় ইউরোপাস (Europass); এই ফরম্যাটে সিভি তৈরির জন্য অনুসরণ করুন এই লিংক: https://europass.cedefop.europa.eu/en/documents/curriculum-vitae

৮. মোটিভেশন লেটার এবং রেফারেন্স লেটারের ফরম্যাট নিজের ইচ্ছেমতো হলে হবে না। সেটার জন্যও নির্দিষ্ট ফরম্যাট (SI format) অনুসরণ করতে হবে। নির্দিষ্ট ফরম্যাট খুঁজে নিন এই লিংকে : https://eng.si.se/?s=Motivation+letter&submit=Search

৯. IELTS/TOFEL ছাড়াও অনেক প্রোগ্রামেই আবেদন করা যায়। সে ক্ষেত্রে আপনার স্টাডি অব মিডিয়াম (স্নাতক/স্নাতকোত্তর) ইংরেজিতে হতে হবে এবং সেটির প্রমাণ লাগবে। বিভাগের প্রধান কর্তৃক স্বাক্ষরিত পত্রের মাধ্যমে সেটি নিশ্চিত করা যেতে পারে।

১০. বৃত্তি পেতে হলে কমপক্ষে দুই বছরের কাজের অভিজ্ঞতা প্রয়োজন। কর্ম-অভিজ্ঞতা শুধু চাকরি নয়; বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী কাজ, ইন্টার্নশিপ কিংবা সামাজিক বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে লিডারশিপও হতে পারে।

১১. এসআই স্কলারশিপ-বিষয়ক বিস্তারিত আরো জানতে হলে অনুসরণ করতে হবে যে লিংক :