ঢাকা ০৩:১০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এমন বউ যেন কারো কপালে না জোটে

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ১১:২৭:৪৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০২৪
  • ১২ বার

গাজীপুরের শ্রীপুরে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার পর তাঁকে তালাবদ্ধ করে পালিয়েছেন আল আমিন (২৫) নামের এক যুবক। পরে এক বন্ধুকে ফোন করে বিষয়টি জানালে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। এ সময় লাশের পাশে তাঁর মাকে উদ্দেশ্য করে লেখা পাঁচ পৃষ্ঠার একটি চিরকুট পাওয়া যায়।

গতকাল বুধবার বিকেলে উপজেলার মাওনা ইউনিয়নের মাওনা গ্রামের আব্দুস সামাদের বহুতল ভবনের তৃতীয় তলার একটি রুম থেকে মিম আক্তার (১৮) নামের ওই নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়। তিনি সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার ছোট বেড়াখাড়ুয়া গ্রামের ইউসুফ খানের মেয়ে।

অভিযুক্ত আল আমিন টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার কালাই গ্রামের ইউসুফ আলীর ছেলে। তিনি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন।

চিরকুটে আল আমিন লেখেন, ‘মা, আমারে মাফ কইরা দিও। অনেক স্বপ্ন ছিল তুমাকে কোনদিন কষ্ট দিব না। কিন্তু এমন একজন মানুষ আমারে আইনা দিছ, যাঁর অত্যাচার থেকে বাঁচতে এই সিদ্ধান্ত নিলাম। তিলে তিলে মরার চাইতে একেবারে মরে গেলাম। সবাই আমাকে মাফ কইরা দিও, সে আমাকে কয়েক মাসের মধ্যে মানসিক রোগী বানাইয়া ফালছে। নিজে একাই মইরা যাইতাম, কিন্তু এরে যদি বাঁচাইয়া রাইখা যাই, এ আরো অনেক মানুষের জীবন নষ্ট করবো। তাই মাইরা ফেললাম।’

আরও লেখা ছিল—‘অনেক স্বপ্ন ছিল, রাসূলের সব সুন্নতগুলি আমার জীবনে বাস্তবায়িত করবো। কিন্তু পারলাম না। পরিশেষে সবার জন্য দোয়া করে গেলাম, এমন বউ যেন কারো কপালে না জোটে।’ আল আমিন লিখেছেন, ‘কাওসার ভাইদের দোকান থেকে ৫০০ টাকা নগদ দিয়া ৯০০ টাকা বাকি রাখিয়া চাউলের বস্তা আনছিলাম। রুম ভাড়া রুমের আসবাবপত্র বিক্রি করে দিয়া দিও।’

এ বিষয়ে নিহত মিমের বড় ভাই নাঈম আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘৯ মাস আগে বোনের বিয়ে হয়েছে। বিয়ের পর থেকে সংসারে তেমন বড় কোনো ঝগড়াঝাঁটি হয়েছে বলে আমাদের জানা নেই। ওরা স্বামী-স্ত্রী একটি বাসা ভাড়া নিয়ে থাকত। বুধবার দুপুরের দিকে বাড়ির ভাড়াটিয়া আমাকে ফোন করে বিষয়টি জানায়।’

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকবর আলী খান আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘স্ত্রীকে হত্যার পর ঘরের ভেতরে লাশ রেখে পালিয়েছেন স্বামী। পরে খবর পেয়ে দরজার লক ভেঙে মেঝেতে মরদেহ পাওয়া যায়।’

তিনি আরও বলেন, ‘নিহতের গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। মরদেহের পাশে চিরকুট ও রশি ছিল। অভিযুক্ত স্বামীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।’

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

জনপ্রিয় সংবাদ

এমন বউ যেন কারো কপালে না জোটে

আপডেট টাইম : ১১:২৭:৪৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০২৪

গাজীপুরের শ্রীপুরে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার পর তাঁকে তালাবদ্ধ করে পালিয়েছেন আল আমিন (২৫) নামের এক যুবক। পরে এক বন্ধুকে ফোন করে বিষয়টি জানালে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। এ সময় লাশের পাশে তাঁর মাকে উদ্দেশ্য করে লেখা পাঁচ পৃষ্ঠার একটি চিরকুট পাওয়া যায়।

গতকাল বুধবার বিকেলে উপজেলার মাওনা ইউনিয়নের মাওনা গ্রামের আব্দুস সামাদের বহুতল ভবনের তৃতীয় তলার একটি রুম থেকে মিম আক্তার (১৮) নামের ওই নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়। তিনি সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার ছোট বেড়াখাড়ুয়া গ্রামের ইউসুফ খানের মেয়ে।

অভিযুক্ত আল আমিন টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার কালাই গ্রামের ইউসুফ আলীর ছেলে। তিনি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন।

চিরকুটে আল আমিন লেখেন, ‘মা, আমারে মাফ কইরা দিও। অনেক স্বপ্ন ছিল তুমাকে কোনদিন কষ্ট দিব না। কিন্তু এমন একজন মানুষ আমারে আইনা দিছ, যাঁর অত্যাচার থেকে বাঁচতে এই সিদ্ধান্ত নিলাম। তিলে তিলে মরার চাইতে একেবারে মরে গেলাম। সবাই আমাকে মাফ কইরা দিও, সে আমাকে কয়েক মাসের মধ্যে মানসিক রোগী বানাইয়া ফালছে। নিজে একাই মইরা যাইতাম, কিন্তু এরে যদি বাঁচাইয়া রাইখা যাই, এ আরো অনেক মানুষের জীবন নষ্ট করবো। তাই মাইরা ফেললাম।’

আরও লেখা ছিল—‘অনেক স্বপ্ন ছিল, রাসূলের সব সুন্নতগুলি আমার জীবনে বাস্তবায়িত করবো। কিন্তু পারলাম না। পরিশেষে সবার জন্য দোয়া করে গেলাম, এমন বউ যেন কারো কপালে না জোটে।’ আল আমিন লিখেছেন, ‘কাওসার ভাইদের দোকান থেকে ৫০০ টাকা নগদ দিয়া ৯০০ টাকা বাকি রাখিয়া চাউলের বস্তা আনছিলাম। রুম ভাড়া রুমের আসবাবপত্র বিক্রি করে দিয়া দিও।’

এ বিষয়ে নিহত মিমের বড় ভাই নাঈম আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘৯ মাস আগে বোনের বিয়ে হয়েছে। বিয়ের পর থেকে সংসারে তেমন বড় কোনো ঝগড়াঝাঁটি হয়েছে বলে আমাদের জানা নেই। ওরা স্বামী-স্ত্রী একটি বাসা ভাড়া নিয়ে থাকত। বুধবার দুপুরের দিকে বাড়ির ভাড়াটিয়া আমাকে ফোন করে বিষয়টি জানায়।’

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকবর আলী খান আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘স্ত্রীকে হত্যার পর ঘরের ভেতরে লাশ রেখে পালিয়েছেন স্বামী। পরে খবর পেয়ে দরজার লক ভেঙে মেঝেতে মরদেহ পাওয়া যায়।’

তিনি আরও বলেন, ‘নিহতের গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। মরদেহের পাশে চিরকুট ও রশি ছিল। অভিযুক্ত স্বামীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।’