রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসী হামলায় চার জন নিহত , আহত ২

হাওর বার্তা ডেস্কঃ কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে পৃথক সন্ত্রাসী হামলায় ৪ জন রোহিঙ্গা নিহত হয়েছেন। হামলায় আরও ২ জন আহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার রাতে উখিয়া উপজেলার ১৫ নাম্বার জামতলী ও ১৭ নম্বর ক্যাম্পে সন্ত্রাসী এই হামলার ঘটনা ঘটে।

হামলাকারীরা মিয়ানমারের রাখাইন স্টেটের সন্ত্রাসী গ্রুপ আরকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি আরসার সদস্য বলে জানিয়েছেন পুলিশ।

উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: শামীম হোসেন জানান, মঙ্গলবার রাতে আরসার ১৫-২০ জনের সন্ত্রাসী দল ১৫ নম্বর জামতলী ক্যাম্পে রোহিঙ্গা গ্রুপ আরএসওর সদস্যদের উপর গুলি ও দা ছুরি দিয়ে হামলা চালায়। এসময় এলোপাতাড়ি হামলায় ৪ জন রোহিঙ্গা গুলিবিদ্ধ ও গুরুতর আহত হয়।

আহতদের ক্যাম্পে অবস্থিত এমএসএফ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মো: জোবায়ের (১৬) ও আনোয়ার সাদেক (১৭) নামের ২ জন রোহিঙ্গা মারা যায়। মো: জোবায়ের ১৫ নম্বর ক্যাম্পের জি ৩ ব্লকের মোহাম্মদ আলীর পুত্র এবং আনোয়ার সাদেক একই ক্যাম্পের বাসিন্দা মোহাম্মদ শফিকের পুত্র।

আহত দুই রোহিঙ্গাকে এমএসএফ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। ঘটনার পরপরই এপিবিএন ও থানা পুলিশ রাতে সন্ত্রাসীদের ধরতে অভিযান চালায় বলে জানিয়েছে পুলিশ।

অপরদিকে, একই রাতে উখিয়ার ১৭ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সি ব্লকে গিয়ে আবুল কাশেম (৪৭) নামে এক রোহিঙ্গাকে তার বাড়ি থেকে বের করে উপুর্যুপরি গুলি করে। এতে সে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। নিহত আবুল কাশেম উক্ত ক্যাম্পের আবুল বশরের পুত্র এবং তিনি দীর্ঘদিন ধরে ক্যাম্পে আরসার বিরুদ্ধে শান্তি শৃংখলা রক্ষায় নিয়োজিত ছিলেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

ঘটনার পরপরই এপিবিএন পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদেহ উদ্ধার করে। এরআগে মঙ্গলবার বিকালে ইমাম হোসেন নামের অপর এক রোহিঙ্গা আরসার গুলিতে নিহত হয়।

পুলিশ রাতে মরদেহ মরদেহগুলো উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

উল্লেখ্য, গত দুদিন আগে বান্দরবান জেলার একটি আদালতে আরসার প্রধান আতাউল্লাহ জুনুনিসহ তার ৪৯ জন সহযোগীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করা হয়। একারণে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আরসা সন্ত্রাসীদের আধিপত্য বিস্তার ও সাধারণ রোহিঙ্গাদের ভয়ভীতি দেখাতে সন্ত্রাসীরা এই হত্যাকাণ্ড চালাচ্ছে বলে পুলিশ ও সাধারণ রোহিঙ্গারা জানিয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর