ঢাকা ০৮:৪৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভেনিস আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে সেরা হলেন যারা

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ১১:২৮:৫৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • ৫৩ বার

হাওর বার্তা ডেস্কঃ শনিবার একরকম নিরবেই শেষ হলো ‘ভেনিস আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব’-এর ৮০তম আসর। হলিউডের চলমান ধর্মঘটের কারণে এবারের উৎসব ছিল প্রায় তারকাবিহীন। গত ৩০ আগস্ট শুরু হওয়া এই উৎসবে মূলত ইতালীয় ও ইউরোপিয়ান কিছু অভিনয়শিল্পীকে দেখা গেছে। তবে জৌলুশহীন উৎসবেও আলোচনা হয়েছে সিনেমা নিয়ে, সমালোচকদের প্রশংসা কুড়িয়েছে বেশ কয়েকটি সিনেমা। এই উৎসবের মর্যাদাসম্পন্ন গোল্ডেন লায়ন (স্বর্ণসিংহ) নিজের করে নিয়েছে ইয়োর্গোস ল্যান্থিমোস নির্মিত ‘পুওর থিংস’।

পরিচালক এই পুরস্কারের কৃতিত্ব দিয়েছেন সিনেমার নায়িকা এমা স্টোনকে। মঞ্চে পুরস্কার গ্রহণ করে পরিচালক বলেন, ‘সিনেমার কেন্দ্রীয় চরিত্র ইসাবেলা ব্যাক্সটার এক দুর্দান্ত সৃষ্টি, এমা স্টোন ছাড়া চরিত্রটি পর্দায় তুলে ধরা সম্ভব হতো না। এটি আসলে তারই সিনেমা-ক্যামেরার সামনে ও ক্যামেরার পেছনে,’ ছবিটির অন্যতম প্রযোজকও এমা। অবশ্য হলিউডের চলমান ধর্মঘটের কারণে ভেনিসে আসতে পারেননি অস্কারজয়ী এই অভিনেত্রী। সেরা অভিনেতার পুরস্কার গিয়েছে পিটার সার্সগার্ডের হাতে। আর সেরা অভিনেত্রীর স্বীকৃতি পেয়েছেন কেইলি স্পেনি। ‘প্রিসিলা’ বায়োপিকে প্রয়াত সংগীতশিল্পী এলভিস প্রিসলির স্ত্রীর ভূমিকায় অভিনয়ের জন্য সেরার পুরস্কারটি অর্জন করেছেন তিনি।

মূল প্রতিযোগিতা বিভাগে এবার ২৩টি চলচ্চিত্র নির্বাচিত হয়েছে। এর মধ্যে এশিয়ার একমাত্র সিনেমা জাপানের রিয়ুসুকে হামাগুচি পরিচালিত ‘এভিল ডাজ নট একজিস্ট’ গ্র্যান্ড জুরি প্রাইজ (রৌপ্যসিংহ) পেয়েছে। সেরা পরিচালকের পুরস্কার পেয়েছেন ইতালির মাত্তেও গারোনে। এতে অভিনয়ের জন্য সেরা নবীন অভিনয়শিল্পীর পুরস্কার জিতেছেন সেনেগালের তরুণ সেদু সার। এ ছাড়া এবাররে আসরে আজীবন সম্মাননা হিসেবে স্বর্ণসিংহ পেয়েছেন ইতালির নারী নির্মাতা লিলিয়ানা কাভানি এবং হংকংয়ের অভিনেতা টনি লিয়াং। একনজরে দেখে নেওয়া যাক ‘ভেনিস আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব’-এর বিজয়ীদের তালিকা।

ভেনিস মূল পুরস্কার

গোল্ডেন লায়ন: ‘পুওর থিংস’

সিলভার লায়ন গ্র্যান্ড জুরি পুরস্কার: ‘এভিল ডাজ নট এক্সিস্ট’

সিলভার লায়ন সেরা পরিচালক: মাত্তেও গ্যারোন (আইও ক্যাপিটানো)

সেরা অভিনেতা: পিটার সার্সগার্ড (মেমরি)

সেরা অভিনেত্রী: কাইলি স্প্যানি (প্রিসিলা)

সেরা নতুন তরুণ অভিনেতা বা অভিনেত্রী: সেইডু সার (আইও ক্যাপিটানো)

বিশেষ জুরি পুরস্কার: গ্রিন বর্ডার (অ্যাগনিসকা হল্যান্ড)

সেরা চিত্রনাট্য: পাবলো লারেন এবং গুইলারমো ক্যাল্ডেরন (এল কন্ডে)

বিদেশি বিভাগে সেরার পুরস্কার

সেরা চলচ্চিত্র: এক্সপ্লেনেশনস ফর এভরিথিং

সেরা পরিচালক: মিকা গুস্তাফসন (প্যারাডাইসেট ব্রিনার / প্যারাডাইস ইজ বার্নিং)

সেরা অভিনেতা: টারগেল বোল্ড-এরডেন (সিটি অফ ওয়াইন্ড)

সেরা অভিনেত্রী: মার্গারিটা রোসা ডি ফ্রান্সিসকো (এল প্যারাইসো)

বিশেষ জুরি পুরস্কার: উনা স্টারমিনাটা ডোমেনিকা  (অ্যালাইন পাররোনি)

সেরা চিত্রনাট্য: এল প্যারাইসো (এনরিকো মারিয়া আর্তালে)

সেরা শর্ট ফিল্ম: এ শর্ট ট্রিপ (এরেনিক বেকিরি)

লায়ন অফ দ্য ফিউচার (ডেবিউ ফিল্মের জন্য ভেনিস অ্যাওয়ার্ড): লাভ ইজ এ গান (লি হং-চ)

দর্শক পুরস্কার: ফেলিসিটা (মাইকেলা রামাজোত্তি)

ভেনিস ক্লাসিক পুরস্কার

সেরা তথ্যচিত্র সিনেমা: থ্যাংক ইউ ভেরি মাচ (এলেক্স ব্রেভারমেন)

সেরা রিস্টোরেড চলচ্চিত্র: ওহিকোশি (শিঞ্জি সোমাই)

ভেনিস ইমারসিভ পুরস্কার

গ্র্যান্ড প্রাইজ পুরস্কার: সংস ফর এ পাসারবাই (সেলিন ডেমেন)

বিশেষ জুরি পুরস্কার: ফ্লো (আদ্রিয়ান লোকমান)

সেরা কৃতিত্ব: এম্পেরর (মেরিয়ন বার্গার, ইলান কোহেন)

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

জনপ্রিয় সংবাদ

ভেনিস আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে সেরা হলেন যারা

আপডেট টাইম : ১১:২৮:৫৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০২৩

হাওর বার্তা ডেস্কঃ শনিবার একরকম নিরবেই শেষ হলো ‘ভেনিস আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব’-এর ৮০তম আসর। হলিউডের চলমান ধর্মঘটের কারণে এবারের উৎসব ছিল প্রায় তারকাবিহীন। গত ৩০ আগস্ট শুরু হওয়া এই উৎসবে মূলত ইতালীয় ও ইউরোপিয়ান কিছু অভিনয়শিল্পীকে দেখা গেছে। তবে জৌলুশহীন উৎসবেও আলোচনা হয়েছে সিনেমা নিয়ে, সমালোচকদের প্রশংসা কুড়িয়েছে বেশ কয়েকটি সিনেমা। এই উৎসবের মর্যাদাসম্পন্ন গোল্ডেন লায়ন (স্বর্ণসিংহ) নিজের করে নিয়েছে ইয়োর্গোস ল্যান্থিমোস নির্মিত ‘পুওর থিংস’।

পরিচালক এই পুরস্কারের কৃতিত্ব দিয়েছেন সিনেমার নায়িকা এমা স্টোনকে। মঞ্চে পুরস্কার গ্রহণ করে পরিচালক বলেন, ‘সিনেমার কেন্দ্রীয় চরিত্র ইসাবেলা ব্যাক্সটার এক দুর্দান্ত সৃষ্টি, এমা স্টোন ছাড়া চরিত্রটি পর্দায় তুলে ধরা সম্ভব হতো না। এটি আসলে তারই সিনেমা-ক্যামেরার সামনে ও ক্যামেরার পেছনে,’ ছবিটির অন্যতম প্রযোজকও এমা। অবশ্য হলিউডের চলমান ধর্মঘটের কারণে ভেনিসে আসতে পারেননি অস্কারজয়ী এই অভিনেত্রী। সেরা অভিনেতার পুরস্কার গিয়েছে পিটার সার্সগার্ডের হাতে। আর সেরা অভিনেত্রীর স্বীকৃতি পেয়েছেন কেইলি স্পেনি। ‘প্রিসিলা’ বায়োপিকে প্রয়াত সংগীতশিল্পী এলভিস প্রিসলির স্ত্রীর ভূমিকায় অভিনয়ের জন্য সেরার পুরস্কারটি অর্জন করেছেন তিনি।

মূল প্রতিযোগিতা বিভাগে এবার ২৩টি চলচ্চিত্র নির্বাচিত হয়েছে। এর মধ্যে এশিয়ার একমাত্র সিনেমা জাপানের রিয়ুসুকে হামাগুচি পরিচালিত ‘এভিল ডাজ নট একজিস্ট’ গ্র্যান্ড জুরি প্রাইজ (রৌপ্যসিংহ) পেয়েছে। সেরা পরিচালকের পুরস্কার পেয়েছেন ইতালির মাত্তেও গারোনে। এতে অভিনয়ের জন্য সেরা নবীন অভিনয়শিল্পীর পুরস্কার জিতেছেন সেনেগালের তরুণ সেদু সার। এ ছাড়া এবাররে আসরে আজীবন সম্মাননা হিসেবে স্বর্ণসিংহ পেয়েছেন ইতালির নারী নির্মাতা লিলিয়ানা কাভানি এবং হংকংয়ের অভিনেতা টনি লিয়াং। একনজরে দেখে নেওয়া যাক ‘ভেনিস আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব’-এর বিজয়ীদের তালিকা।

ভেনিস মূল পুরস্কার

গোল্ডেন লায়ন: ‘পুওর থিংস’

সিলভার লায়ন গ্র্যান্ড জুরি পুরস্কার: ‘এভিল ডাজ নট এক্সিস্ট’

সিলভার লায়ন সেরা পরিচালক: মাত্তেও গ্যারোন (আইও ক্যাপিটানো)

সেরা অভিনেতা: পিটার সার্সগার্ড (মেমরি)

সেরা অভিনেত্রী: কাইলি স্প্যানি (প্রিসিলা)

সেরা নতুন তরুণ অভিনেতা বা অভিনেত্রী: সেইডু সার (আইও ক্যাপিটানো)

বিশেষ জুরি পুরস্কার: গ্রিন বর্ডার (অ্যাগনিসকা হল্যান্ড)

সেরা চিত্রনাট্য: পাবলো লারেন এবং গুইলারমো ক্যাল্ডেরন (এল কন্ডে)

বিদেশি বিভাগে সেরার পুরস্কার

সেরা চলচ্চিত্র: এক্সপ্লেনেশনস ফর এভরিথিং

সেরা পরিচালক: মিকা গুস্তাফসন (প্যারাডাইসেট ব্রিনার / প্যারাডাইস ইজ বার্নিং)

সেরা অভিনেতা: টারগেল বোল্ড-এরডেন (সিটি অফ ওয়াইন্ড)

সেরা অভিনেত্রী: মার্গারিটা রোসা ডি ফ্রান্সিসকো (এল প্যারাইসো)

বিশেষ জুরি পুরস্কার: উনা স্টারমিনাটা ডোমেনিকা  (অ্যালাইন পাররোনি)

সেরা চিত্রনাট্য: এল প্যারাইসো (এনরিকো মারিয়া আর্তালে)

সেরা শর্ট ফিল্ম: এ শর্ট ট্রিপ (এরেনিক বেকিরি)

লায়ন অফ দ্য ফিউচার (ডেবিউ ফিল্মের জন্য ভেনিস অ্যাওয়ার্ড): লাভ ইজ এ গান (লি হং-চ)

দর্শক পুরস্কার: ফেলিসিটা (মাইকেলা রামাজোত্তি)

ভেনিস ক্লাসিক পুরস্কার

সেরা তথ্যচিত্র সিনেমা: থ্যাংক ইউ ভেরি মাচ (এলেক্স ব্রেভারমেন)

সেরা রিস্টোরেড চলচ্চিত্র: ওহিকোশি (শিঞ্জি সোমাই)

ভেনিস ইমারসিভ পুরস্কার

গ্র্যান্ড প্রাইজ পুরস্কার: সংস ফর এ পাসারবাই (সেলিন ডেমেন)

বিশেষ জুরি পুরস্কার: ফ্লো (আদ্রিয়ান লোকমান)

সেরা কৃতিত্ব: এম্পেরর (মেরিয়ন বার্গার, ইলান কোহেন)