,

দুই শ’ টাকার নিচে মিলছে না গরিবের’ খ্যাত পাঙাশ মাছ

হাওর বার্তা ডেস্কঃ গত কয়েক মাস ধরে প্রায় সব পণ্যেরই দাম বাড়ছে। বাজার করতে গিয়ে রীতিমতো হিমশিম খেতে হচ্ছে নিম্নবিত্ত থেকে মধ্যবিত্ত সবাইকে। ঊর্ধ্বগতির প্রভাব থেকে বাদ পড়েনি পাঙাশ। বর্তমানে বাজারে ২০০ টাকা কেজির নিচে মিলছে না ‘গরিবের মাছ’ খ্যাত এই পাঙাশ।

শুক্রবার (১৮ নভেম্বর) রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে এমন চিত্রই দেখা গেছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, সবচেয়ে কম দামের পাঙাশ বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকা কেজি দরে। এ ছাড়া বিলের পাঙাশ দাবি করা মাছগুলোর দাম চাওয়া হচ্ছে ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা কেজি। অথচ কয়েক মাস আগেও ১২০ থেকে ১৫০ টাকা কেজি দরে পাঙাশ কেনা যাচ্ছিল। মাঝে অবশ্য তা ১৬০ টাকা থেকে ১৮০ টাকায় গিয়ে দাঁড়িয়েছিল।

রাজধানীর শেওড়াপাড়া বাজারে মাছ কিনতে আসা আরিফুর রহমান বলেন, বাজারে সবকিছুরই দাম বেড়েছে। এমনকি সবচেয়ে কম দামের মাছ পাঙাশও বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকা কেজিতে। এমন হলে আমাদের মতো স্বল্প আয়ের মানুষরা মাছই কিনতে পারবে না।

মাছ বিক্রেতা এরশাদ আলী বলেন, ফিডের দাম বাড়ার পর থেকে মাছের দামও বেড়ে গেছে। সেই সঙ্গে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির ফলে পরিবহন খরচও বেড়েছে। সবকিছুর প্রভাব এসে পড়েছে বর্তমান মাছের বাজারে। বলতে গেলে বাজারে সবচেয়ে কম দামের মাছ ছিল পাঙাশ, এখন সেটি ২০০ টাকা কেজিতে গিয়ে দাঁড়িয়েছে।

এদিন বাজার ঘুরে দেখা যায়, তেলাপিয়া ২২০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে, এ ছাড়া চাষের কই ২৫০ টাকা, ছোট কাচকি মাছ ২৮০ থেকে ৩০০ টাকা, কাতলা ২৮০ থেকে ৩২০ টাকা, রুই মাছ ৩০০ থেকে ৩৫০, পাবদা ৩০০ থেকে ৪৫০ টাকা, টাকি মাছ ৩৫০ থেকে ৪০০ টাকা, ছোট টেংরা ৪০০ টাকা, সিং মাছ ৪৫০ টাকা, চিংড়ি ৫৫০ থেকে ৬৫০ টাকা, জাটকা ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা, শোল মাছ ৮০০ থেকে ৯০০ টাকা, এক কেজি ওজনের ইলিশ ১৩০০ থেকে ১৬০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

 

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর