,

দাখিল পরীক্ষায় প্রক্সি, সুপারসহ দুই মাদ্রাসা শিক্ষকের কারাদণ্ড

হাওর বার্তা ডেস্কঃ কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে দাখিল পরীক্ষায় অবৈধ পন্থায় বহিরাগত ছাত্রীদের দিয়ে পরীক্ষা দেওয়ানোর অপরাধে উপজেলার হাকিমিয়া হাবিবিয়া মহিলা দাখিল মাদ্রাসার সুপার মো. সোলাইমান (৪৫) কে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও একই প্রতিষ্ঠানের সহকারী শিক্ষক মো. সাদিকুর রহমান (৪২) কে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) কটিয়াদী উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের গাউছিয়া রহমানিয়া হোসাইনিয়া আলিম মাদ্রাসায় দাখিল পরীক্ষা চলাকালে কেন্দ্রটি পরিদর্শনে গিয়ে কটিয়াদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার খানজাদা শাহরিয়ার বিন মান্নান এ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

কারাদণ্ডে দণ্ডিত হাকিমিয়া হাবিবিয়া মহিলা দাখিল মাদ্রাসার সুপার মো. সোলাইমান ও সহকারী শিক্ষক মো. সাদিকুর রহমান গাউছিয়া রহমানিয়া হোসাইনিয়া আলিম মাদ্রাসা কেন্দ্রটির দায়িত্বে ছিলেন।

সুপার মো. সোলাইমান বনগ্রামের মো. নূরুল ইসলামের ছেলে এবং মো. সাদিকুর রহমান একই এলাকার মৃত আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্র জানায়, গাউছিয়া রহমানিয়া হোসাইনিয়া আলিম মাদ্রাসা কেন্দ্রে হাকিমিয়া হাবিবিয়া মহিলা দাখিল মাদ্রাসার ছয়জন ছাত্রীর বদলে মাদ্রাসার সুপার মো. সোলাইমান ও সহকারী শিক্ষক মো. সাদিকুর রহমানের সহযোগিতায় অবৈধ পন্থা অবলম্বন করে বডি পরিবর্তন করে বহিরাগত ছয়জন ছাত্রী দাখিল বাংলা ১ম পত্র পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে।

কটিয়াদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার খানজাদা শাহরিয়ার বিন মান্নান পরীক্ষা কেন্দ্রটি পরিদর্শনকালে বিষয়টি জানতে পেরে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

তিনি পরীক্ষা কেন্দ্রে অবৈধ পন্থায় বহিরাগত ছয় ছাত্রীকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণে সহযোগিতা করার দায়ে পাবলিক পরীক্ষা (অপরাধ) আইন ১৯৮০/১৫ ধারায় অভিযুক্ত মো. সোলাইমানকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড এবং একই প্রতিষ্ঠানের সহকারী শিক্ষক মো. সাদিকুর রহমানকে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডে দণ্ডিত করেন।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর