,

image-167784-1621352180

বজ্রপাতে পাঁচ জেলায় ১১ জন নিহত

হাওর বার্তা ডেস্কঃ বজ্রপাতে শুক্রবার (১৭ জুন) দেশের পাঁচ জেলায় ১১ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এর মধ্যে কেবল ময়মনসিংহেই মারা গেছেন ছয়জন। এছাড়া সিরাজগঞ্জে দুইজন এবং বগুড়া, জামালপুর ও চুয়াডাঙ্গায় একজন করে মারা গেছেন।

নিজস্ব প্রতিবেদক ও জেলা প্রতিনিধিদের পাঠানো বিস্তারিত খবর

ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহে মাছ ধরতে গিয়ে পৃথক বজ্রপাতের ঘটনায় তিন শিশুসহ ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (১৭ জুন) সকাল থেকে দুপুরের দিকে জেলা সদর, নান্দাইল ও ধোবাউড়া উপজেলায় এসব ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- সদর উপজেলার দড়ি কুষ্টিয়া ইউনিয়নের দড়ি কুষ্টিয়া গ্রামের কৃষক আবু বাক্কার (৪০) ও জাহাঙ্গীর আলম (৩০), নান্দাইল উপজেলার গাঙ্গাইল ইউনিয়নের কংকরহাটি গ্রামের শহীদুল্লাহর ছেলে সাঈদ মিয়া (১২), হাদিস মিয়ার ছেলে স্বাধীন মিয়া (১১) ও বিল্লাল হোসেনের ছেলে শাওন (৮) এবং ধোবাউড়া উপজেলার গোয়াতলা ইউনিয়নের মাটিখলা গ্রামের আবু সাইদ (৩২)।

ময়মনসিংহ কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ কামাল আকন্দ জাগো নিউজকে বজ্রপাতে দুই কৃষক নিহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

অন্যদিকে গাঙ্গাইল ইউনিয়নের কংকরহাটি গ্রামের ইউপি সদস্য মো. গোলাপ হোসেন  বলেন, বৃষ্টির সময় ওই তিন শিশু একসঙ্গে মাছ ধরতে যায়। দুপুর ২টার দিকে হঠাৎ বজ্রপাত হলে তারা গুরুতর আহত হয়। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে দুজনকে নান্দাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও একজনকে কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতালে নেন। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে, ধোবাউড়ায় মাছ ধরতে গিয়ে বজ্রপাতে আবু সাইদ মারা যান। শুক্রবার সকালে উপজেলার গোয়াতলা ইউনিয়নের মাটিখলা গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। নিহত আবু সাইদ ওই এলাকার মৃত আব্দুল গফুরের ছেলে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সকালের দিকে বাড়ির পাশে নৌকায় করে ছেলেকে নিয়ে কারেন্ট জাল দিয়ে মাছ ধরতে যান সাইদ। এসময় বজ্রপাত হলে নৌকা থেকে পড়ে যান তিনি। পরে ছেলের চিৎকারে স্থানীয়রা উদ্ধার করে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ধোবাউড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জালাল উদ্দীন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সিরাজগঞ্জ

সিরাজগঞ্জে পৃথক স্থানে বজ্রপাতে দুই শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে আরও দুজন।

শুক্রবার দুপুরে সিরাজগঞ্জ শহর থেকে নদীপথে নৌকাযোগে কাওয়াকোলা যাওয়ার সময় বজ্রপাতে আব্দুর রাজ্জাক মুন্সি (৪৫) নামে একজনের মৃত্যু হয়। এসময় আহত হন দুজন।

অপরদিকে, সয়দাবাদ ইউনিয়নের চলমান রেল সেতু প্রকল্পে কাজ করার সময় মো. নাসির (১৭) নামে একজনের মৃত্যু হয়েছে।

সিরাজগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম বলেন, সদর থানার দুটি স্থানে দুজন শ্রমিক বজ্রপাতে নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরও দুজন। তাদের সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বগুড়া

বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলায় মরিচ ক্ষেত পরিচর্যা করতে গিয়ে বজ্রপাতে জহুরুল ইসলাম (২১) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। নিহত জহুরুল উপজেলার ছাতিয়ানগ্রাম ইউপির কোমারভোগ গ্রামের মোসলেম উদ্দিনের ছেলে।

শুক্রবার বেলা ১২টায় নিহতের বাড়ির পাশে ফসলি মাঠে ঘটনাটি ঘটে। আদমদিঘী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) প্রদীপ কুমার বর্মণ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, বেলা ১২টার দিকে জহুরুল বাড়ির পাশে মরিচ ও অন্যান্য সবজি ক্ষেত পরিচর্যা করছিলেন। এসময় বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে।

জামালপুর

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে বিলের পানিতে মাছ ধরতে গিয়ে বজ্রপাতে শাকিল (১৫) নামে এক স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার সকালে উপজেলার কামরাবাদ ইউনিয়নের শুয়াকৈর বিলে এ ঘটনা ঘটে। শাকিল উপজেলার শুয়াকৈর দক্ষিণ পাড়া গ্রামের আনোয়ারের ছেলে ও জমশের আলী উচ্চবিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র।

স্থানীয় সূত্র জানায়, বৃষ্টিতে শাকিল শুক্রবার সকালে শুয়াকৈর বিলে মাছ ধরতে যায়। এসময় হঠাৎ বজ্রপাতে বিলের পানিতে লুটিয়ে পড়ে সে। খবর পেয়ে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

সরিষাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. দেবাশীষ রাজবংশী বলেন, আজ সকালে মৃত অবস্থায় ছেলেটিকে হাসপাতালে আনা হয়েছিল। বজ্রপাতে তার মৃত্যু হয়।

চুয়াডাঙ্গা

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলায় রহিম উদ্দিন (৫৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। শুক্রবার বিকেলে উপজেলার ফরিদপুর গ্রামের দোপের মাঠে বজ্রপাতের এ ঘটনা ঘটেছে। নিহত রহিম উদ্দিন ফরিদপুর গ্রামের বলো জোয়ার্দ্দারের ছেলে।

গ্রামবাসী জানায়, আজ বিকেলে রহিম উদ্দিন মাঠে কৃষি কাজ করছিলেন। এসময় ঝড়-বৃষ্টির সঙ্গে বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে। বজ্রপাতে সে ঘটনাস্থলে নিহত হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)  বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর