ঢাকা ১১:৩৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিশ্বকাপ বাছাইয়ে আর্জেন্টিনার প্রথম জয়

  • Reporter Name
  • আপডেট টাইম : ১০:০৭:১০ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৫
  • ২৮৩ বার

২০১৮ বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের তিন ম্যাচে দুই পয়েন্ট। আর্জেন্টিনার সাথে ঠিক যায় না। পয়েন্ট টেবিলের তলানীর দিকে ছিল তারা। কোচ তাতা মার্তিনোও ছিলেন চাপে। সেই চাপ থেকে আপাতত তাকে উদ্ধার করলেন লুকাস বিগলিয়া। এই মিডফিল্ডারের গোলে এবারের বাছাই পর্বে প্রথম জয়ের দেখা পেয়েছে দুই বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা। গেলো রাতের খেলায় কলম্বিয়াকে তাদের মাঠে ১-০ গোলে হারিয়েছে তারা।

কলম্বিয়া বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে নিজেদের মাঠে সাত ম্যাচে অপরাজিত। তাদের হারানো কঠিনই ছিলো। বারানকুইলায় বিগলিয়া প্রথমার্ধেই গোলটি পেয়েছেন দলগত চেষ্টার ফসল হিসেবে। হোসে প্যাকারম্যানের দল সমতা আনার জোর চেষ্টা করে গেছে। রামিরো ফুনেস মরি ফাউল করেছিলেন তেওফিলো গুতিরেজকে। পেনাল্টি পায়নি কলম্বিয়া। বড় বাঁচা বেঁচে গেছে আর্জেন্টিনা। দ্বিতীয়ার্ধের খেলায় সুযোগ কম এসেছে দুই দলেরই জন্য। আর্জেন্টিনা বক্সের বাইরে থেকে চেষ্টায় ব্যস্ত ছিল।

বলের ওপর দখলে শুরু থেকে মুগ্ধ করেন ইভার বেনেগা। কিন্তু ১২ মিনিটের সময় আর্জেন্টিনার প্রথম সুযোগটা তৈরি করেন আনহেল দি মারিয়া। কিন্তু তাকে দেয়া বলটা ওপর দিয়ে মেরে নষ্ট করেন গঞ্জালো হিগুয়াইন। এর ৮ মিনিট পর গোলের দেখা পেয়ে যায় আর্জেন্টিনা। ইজেকুয়েল লাভেজ্জির একটি ক্রস ঠেকাতে ব্যর্থ হয়েছেন জাপাতা। এটা ছিল আর্জেন্টিনার দ্রুতগতির একটি কাউন্টার অ্যাটাক। বিগলিয়া বলটাকে বেশ সহজেই জালে জড়িয়ে উল্লাসে মাতিয়েছেন দলকে। ওটাই মহা মূল্যবান গোল।

এরপর জাপাতার ভাগ্য ভালো ছিল বলে মাঠ ছাড়তে হলো না। দি মারিয়া উঠে গিয়েছিলেন। ভেঙ্গেছিলেন কলম্বিয়ার ডিফেন্স। তাকে বিপজ্জনক এলাকায় ফাউল করেন জাপাতা। তাকে হলুদ কার্ড দেখান রেফারি।

৩৪ মিনিটে খেলায় ফিরতে পারতো কলম্বিয়া। ফুনেস মরি ও গোলকিপার সার্জিও রোমেরোর মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হয়। কিন্তু দ্রুত নিজেকে সামলে নিয়ে রোমেরো গোলবঞ্চিত করেছেন কার্লোস বাক্কাকে।

এর কিছুক্ষণ পর এভার্টন ডিফেন্ডার ফুনেস মরি বক্সের মধ্যে গুতিরেজকে ফেলে দেন। কলম্বিয়ার পক্ষ থেকে পেনাল্টির জোর আবেদন ওঠে। কিন্তু রেফারি একমত হননি।
বিরতির পাঁচ মিনিট আগে আর্জেন্টিনার লিড দ্বিগুন করতে পারতেন দি মারিয়া। হিগুয়াইনের কাছ থেকে বল পেয়ে সেটিকে গোলবারের বাইরে দিয়ে মেরেছেন দি মারিয়া।

দ্বিতীয়ার্ধের খেলা আরো বিনোদন ছড়ায়। বেনেগা সরাসরি কলম্বিয়ার গোলকিপার ডেভিড ওসপিনার হাতে বল তুলে দেন। ৫০ মিনিটে ফ্রাংক ফাবরা বাইরে মারেন। মাচনেলি তরেসের জায়গায় মাঠে নেমে লুইস মুরিয়েল প্রথম চেষ্টায় বল লক্ষ্যের ওপর দিয়ে মারেন।

ইদউইন কারদোনা গরম করে দেন রোমেরোর গ্লোভস। ২৫ গজ দূর থেকে বিপজ্জনক শট নিলেও কারদোনা গোল করতে পারেননি। খেলা শেষ হওয়ার ৯ মিনিট আগে অফ সাইডের কারণে প্রথম আন্তর্জাতিক গোলের দেখা পাননি পাওলো দিবালা। নির্ধারিত সময়ের খেলার শেষ মিনিটে গিনো পেরুজ্জি বল দেন দিবালাকে। কিন্তু লক্ষ্যভেদ করতে পারেননি তিনি। ৯৩ মিনিটে রোমোরোর ভুলে কপাল পুড়ছিল আর্জেন্টিনার। কিন্তু গোলকিপার জালের সামনে না থাকলেও জেইসন মুরিলো যে শট নেন তা লক্ষ্য থেকে অনেক দূরে চলে যায়। বিগলিয়ার গোলটিই ম্যাচের নির্ধারক হয়ে থাকে। ৪ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের ষষ্ঠ স্থানে এখন আর্জেন্টিনা। কলম্বিয়া সপ্তম।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Haor Barta24

বিশ্বকাপ বাছাইয়ে আর্জেন্টিনার প্রথম জয়

আপডেট টাইম : ১০:০৭:১০ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৫

২০১৮ বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের তিন ম্যাচে দুই পয়েন্ট। আর্জেন্টিনার সাথে ঠিক যায় না। পয়েন্ট টেবিলের তলানীর দিকে ছিল তারা। কোচ তাতা মার্তিনোও ছিলেন চাপে। সেই চাপ থেকে আপাতত তাকে উদ্ধার করলেন লুকাস বিগলিয়া। এই মিডফিল্ডারের গোলে এবারের বাছাই পর্বে প্রথম জয়ের দেখা পেয়েছে দুই বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা। গেলো রাতের খেলায় কলম্বিয়াকে তাদের মাঠে ১-০ গোলে হারিয়েছে তারা।

কলম্বিয়া বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে নিজেদের মাঠে সাত ম্যাচে অপরাজিত। তাদের হারানো কঠিনই ছিলো। বারানকুইলায় বিগলিয়া প্রথমার্ধেই গোলটি পেয়েছেন দলগত চেষ্টার ফসল হিসেবে। হোসে প্যাকারম্যানের দল সমতা আনার জোর চেষ্টা করে গেছে। রামিরো ফুনেস মরি ফাউল করেছিলেন তেওফিলো গুতিরেজকে। পেনাল্টি পায়নি কলম্বিয়া। বড় বাঁচা বেঁচে গেছে আর্জেন্টিনা। দ্বিতীয়ার্ধের খেলায় সুযোগ কম এসেছে দুই দলেরই জন্য। আর্জেন্টিনা বক্সের বাইরে থেকে চেষ্টায় ব্যস্ত ছিল।

বলের ওপর দখলে শুরু থেকে মুগ্ধ করেন ইভার বেনেগা। কিন্তু ১২ মিনিটের সময় আর্জেন্টিনার প্রথম সুযোগটা তৈরি করেন আনহেল দি মারিয়া। কিন্তু তাকে দেয়া বলটা ওপর দিয়ে মেরে নষ্ট করেন গঞ্জালো হিগুয়াইন। এর ৮ মিনিট পর গোলের দেখা পেয়ে যায় আর্জেন্টিনা। ইজেকুয়েল লাভেজ্জির একটি ক্রস ঠেকাতে ব্যর্থ হয়েছেন জাপাতা। এটা ছিল আর্জেন্টিনার দ্রুতগতির একটি কাউন্টার অ্যাটাক। বিগলিয়া বলটাকে বেশ সহজেই জালে জড়িয়ে উল্লাসে মাতিয়েছেন দলকে। ওটাই মহা মূল্যবান গোল।

এরপর জাপাতার ভাগ্য ভালো ছিল বলে মাঠ ছাড়তে হলো না। দি মারিয়া উঠে গিয়েছিলেন। ভেঙ্গেছিলেন কলম্বিয়ার ডিফেন্স। তাকে বিপজ্জনক এলাকায় ফাউল করেন জাপাতা। তাকে হলুদ কার্ড দেখান রেফারি।

৩৪ মিনিটে খেলায় ফিরতে পারতো কলম্বিয়া। ফুনেস মরি ও গোলকিপার সার্জিও রোমেরোর মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হয়। কিন্তু দ্রুত নিজেকে সামলে নিয়ে রোমেরো গোলবঞ্চিত করেছেন কার্লোস বাক্কাকে।

এর কিছুক্ষণ পর এভার্টন ডিফেন্ডার ফুনেস মরি বক্সের মধ্যে গুতিরেজকে ফেলে দেন। কলম্বিয়ার পক্ষ থেকে পেনাল্টির জোর আবেদন ওঠে। কিন্তু রেফারি একমত হননি।
বিরতির পাঁচ মিনিট আগে আর্জেন্টিনার লিড দ্বিগুন করতে পারতেন দি মারিয়া। হিগুয়াইনের কাছ থেকে বল পেয়ে সেটিকে গোলবারের বাইরে দিয়ে মেরেছেন দি মারিয়া।

দ্বিতীয়ার্ধের খেলা আরো বিনোদন ছড়ায়। বেনেগা সরাসরি কলম্বিয়ার গোলকিপার ডেভিড ওসপিনার হাতে বল তুলে দেন। ৫০ মিনিটে ফ্রাংক ফাবরা বাইরে মারেন। মাচনেলি তরেসের জায়গায় মাঠে নেমে লুইস মুরিয়েল প্রথম চেষ্টায় বল লক্ষ্যের ওপর দিয়ে মারেন।

ইদউইন কারদোনা গরম করে দেন রোমেরোর গ্লোভস। ২৫ গজ দূর থেকে বিপজ্জনক শট নিলেও কারদোনা গোল করতে পারেননি। খেলা শেষ হওয়ার ৯ মিনিট আগে অফ সাইডের কারণে প্রথম আন্তর্জাতিক গোলের দেখা পাননি পাওলো দিবালা। নির্ধারিত সময়ের খেলার শেষ মিনিটে গিনো পেরুজ্জি বল দেন দিবালাকে। কিন্তু লক্ষ্যভেদ করতে পারেননি তিনি। ৯৩ মিনিটে রোমোরোর ভুলে কপাল পুড়ছিল আর্জেন্টিনার। কিন্তু গোলকিপার জালের সামনে না থাকলেও জেইসন মুরিলো যে শট নেন তা লক্ষ্য থেকে অনেক দূরে চলে যায়। বিগলিয়ার গোলটিই ম্যাচের নির্ধারক হয়ে থাকে। ৪ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের ষষ্ঠ স্থানে এখন আর্জেন্টিনা। কলম্বিয়া সপ্তম।