,

10

বাংলাদেশের প্রতি তারা কৃতজ্ঞ

হাওর বার্তা ডেস্কঃ সহিংসতা কবলিত দক্ষিণ সুদানের ওয়াউতে প্রায় ৩০০ লোক এসেছেন বিনা পয়সায় চিকিৎসা নিতে। এদের অধিকাংশই নারী, শিশু ও বৃদ্ধ। আর বিনামূল্যের এই চিকিৎসার আয়োজন করেছে ওয়াউতে নিয়োজিত বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীরা। বৃহস্পতিবার জাতিসংঘের দক্ষিণ সুদানের মিশন তাদের ওয়েবসাইটে বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের এমন প্রশংসনীয় উদ্যোগের খবরটি প্রকাশ করেছে। এই চিকিৎসা সেবার জন্য বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের প্রতি স্থানীয়দের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে হাওয়া ড্যানিয়েল নামের এক নারী বলেন, ‘আমার শিশুর জ্বর ও সর্দি-কাশি হয়েছিল এবং সে কিছু খেতে পারত না। আমার নিজেরও অর্শ্বরোগ শরীরে ব্যথা আছে। ওষুধ কেনার মতো কোনো অর্থ আমার কাছে ছিল না। কিন্তু তারা আমাকে ওষুধ দিয়ে সহযোগিতা করেছে‘

বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের প্রতি প্রবীন লুইস মুঙ্গুর কৃতজ্ঞতাটা যেন আরো বেশি। ক্ষীণ দৃষ্টির মুঙ্গু শান্তিরক্ষীদের কাছ থেকে চশমা পেয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘অনেক দিন কাশিতে ভুগছিলাম। ধন্যবাদ, আজ আমি ওষুধ পেয়েছি। আমার দৃষ্টিশক্তি দুর্বল, তারা আমাকে একটি চশমা দিয়েছে।’

ওয়াউতে বাংলাদেশি শান্তিরক্ষা মিশনের কমান্ডার কর্নেল মাজহারুল বলেন, মূলত শান্তিরক্ষা মিশনে আমরা বাংলাদেশ ব্যাটালিয়নের অংশ এবং এর পাশাপাশি আমরা আমাদের সীমিত সামর্থ্য দিয়ে আমরা এ ধরণের মানবিক সহায়তা কর্মসূচি চালাচ্ছি। এখানে আসা অধিকাংশই ম্যালেরিয়া, ডায়রিয়া, মাথাব্যথার রোগী। আমাদের কেবল প্রাথমিক চিকিৎসার সুবিধা আছে। তারপরও আমাদের সামর্থ্যের মধ্যে থাকলে আমরা রোগীর অবস্থা বুঝে চিকিৎসা করতে পারি। তবে আমরা না পারলে তাদের জানিয়ে দেই, এটা আমাদের সামর্থ্যের মধ্যে নেই।’

বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের এই সহায়তার বিষয়টি জ্ঞাত আছেন ওয়াউর স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. জেমস প্যাট্রিস। তিনি ওই এলাকায় ম্যালেরিয়া রোগীদের চিকিৎসার জন্যও শান্তিরক্ষীদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন।

Print Friendly, PDF & Email

     এ ক্যাটাগরীর আরো খবর